ghatail.com
ঢাকা বুধবার, ২২ আষাঢ়, ১৪২৯ / ০৬ জুলাই, ২০২২
ghatail.com
yummys

ঘাটাইলে প্রস্তাবিত আইটি সেন্টার মধুপুরে স্থানান্তরের প্রতীবাদ


ghatail.com
নিজস্ব প্রতিবেদক, ঘাটাইল ডট কম
১৮ মে, ২০২২ / ২৫৯ বার পঠিত
ঘাটাইলে প্রস্তাবিত আইটি সেন্টার মধুপুরে স্থানান্তরের প্রতীবাদ

টাঙ্গাইলের ঘাটাইলে সরকার নির্ধারিত ও প্রস্তাবিত ‘শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং অ্যান্ড ইনকিউবেশন সেন্টার’ কৃষিমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক এর হস্তক্ষেপে পার্শ্ববর্তী উপজেলা মধুপুরে স্থানান্তরের প্রতিবাদে আজ বুধবার (১৮ মে) দুপুরে সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে। টাঙ্গাইল প্রেসক্লাবের বঙ্গবন্ধু মিলনায়তনে ঘাটাইল শেখ কামাল আইটি পার্ক রক্ষা কমিটি ওই সম্মেলনের আয়োজন করে।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন- ঘাটাইল শেখ কামাল আইটি পার্ক রক্ষা কমিটির সদস্য সচিব আতিকুর রহমান আতিক।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, ২০১৯ সালের ২৫ জুন ঘাটাইল উপজেলার গৌরিশ্বরে ১২.৭৭ একর জমিতে শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং অ্যান্ড ইনকিউবেশন সেন্টারে জন্য ভূমি মন্ত্রনালয় জমির লিজ হিসেবে এক লাখ এক হাজার টাকা প্রতীকী মূল্য নির্ধারণ করে। পরে ওই বছরের ২৯ ডিসেম্বর জমির নির্ধারিত প্রতীকী মূল্য পরিশোধ করা হয়। এর প্রেক্ষিতে গত বছরের ১৪ ফেব্রুয়ারি সরকারের পক্ষে জেলা প্রশাসক ওই জমিটি হস্তান্তর করেন। লিজ দলিল সম্পাদন প্রক্রিয়ায় গ্রহীতা হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষের প্রতিনিধি উপস্থিত থেকে দলিলে স্বাক্ষর করেন।

তিনি বলেন, ঘাটাইলের জনগন মনে করে- এই উন্নয়নমূলক প্রতিষ্ঠানটি মুজিব বর্ষে তাদের জন্য প্রধানমন্ত্রীর একটি উপহার। জেলা প্রশাসন যাচাই-বাছাই করে প্রতিষ্ঠানের জন্য ঘাটাইলের ওই স্থানটি নির্ধারণ করে সরকারের ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রীর কাছে পাঠানো হয়। পরে সরকারের ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ে যোগাযোগ করা হলে- তারা ঘাটাইল থেকে মধুপুরে স্থানান্তরের বিষয়টি অবগত করেন।

আইটি সেন্টারটি অন্য উপজেলায় নেওয়ার চেষ্টা করা হলে ঘাটাইলবাসী এর প্রতিবাদে মিছিল, মানববন্ধন ও গণস্বাক্ষর করে টাঙ্গাইলের জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে একটি স্মারকলিপি টেলিযোগাযোগ ও তথ্য যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়। পরে হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষ সরেজমিনে টাঙ্গাইলের একাধিক উপজেলার জায়গা পরিদর্শন করেন। একই সাথে ঘাটাইল উপজেলার বর্তমান বরাদ্দকৃত জমিটি যথোপোযুক্ত বলে নির্ধারণ করেন। যার ধারাবাহিকতায় জমি হস্তান্তর সংক্রান্ত সকল প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়।

লিখিত বক্তব্যে আতিক দাবী করেন বলেন, সম্প্রতি একনেক সভায় কৃষিমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাকের হস্তক্ষেপে প্রস্তাবিত আইটি সেন্টারটি ঘাটাইল থেকে মধুপুরে স্থানান্তর করা হয়- যা অত্যন্ত দুঃখজনক। অথচ সেখানে ইতোমধ্যে ‘ইকো পার্ক’ নির্মাণ নিয়ে আদিবাসীদের সাথে জটিলতা দেখা দিয়েছে। আমরা অতিদ্রুত পুনরায় ঘাটাইলেই আইটি সেন্টারটি বাস্তবায়নের জোর দাবি জানাচ্ছি। কৃষিমন্ত্রী তার নিজ নির্বাচনী এলাকায় আলাদাভাবে আইটি সেন্টার স্থাপন করুন- এতে আমাদের কোন বাঁধা নেই। কিন্তু ঘাটাইলের নির্ধারিত আইটি সেন্টারটি বাস্তবায়ন করতে হবে। তা না হলে কঠোর আন্দোলন করা হবে।

আগামি রোববার (২২ মে) মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিলসহ নানা কর্মসূচি পালন করা হবে। আমি এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- ঘাটাইল শেখ কামাল আইটি পার্ক রক্ষা কমিটির আহ্বায়ক জুলফিকার হায়দার, যুগ্ম-আহ্বায়ক ও জিবিজি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক অধ্যক্ষ মতিউর রহমান মিয়া, ঘাটাইল উপজেলা পরিষদের ভাইস-চেয়ারম্যান কাজী আরজু, বিআরডিবি’র চেয়ারম্যান রুহুল আমিন, বীর মুক্তিযোদ্ধা হুমায়ুন খান, আনেহলা ইউপি চেয়ারম্যান তালুকদার মোহাম্মদ শাহজাহান প্রমুখ।

(নিজস্ব প্রতিবেদক, ঘাটাইল ডট কম)/-