ghatail.com
ঢাকা শনিবার, ১ কার্তিক, ১৪২৮ / ১৬ অক্টোবর, ২০২১
ghatail.com
yummys

ঘাটাইল প্রেস ক্লাবে সাংবাদিকদের সাথে ওসির মত বিনিময়


ghatail.com
নিজস্ব প্রতিবেদক, ঘাটাইল ডট কম
২০ সেপ্টেম্বর, ২০২১ / ৩৯৮ বার পঠিত
ঘাটাইল প্রেস ক্লাবে সাংবাদিকদের সাথে ওসির মত বিনিময়

টাঙ্গাইলের ঘাটাইল প্রেস ক্লাবে সৌজন্য সাক্ষাৎ ও এক মতবিনিময় অনুষ্ঠানে নানা বিষয়ে পুলিশকে সহযোগিতা করার আহব্বান জানিয়েছেন ঘাটাইল থানায় সম্প্রতি যোগদান করা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আজহারুল ইসলাম সরকার পিপিএম।

আজ সোমবার (২০ সেপ্টেম্বর) সন্ধায় ঘাটাইল প্রেস ক্লাব অফিস কক্ষে আয়োজিত এক মত বিনিময় সভায় সাংবাদিকদের প্রতি এই আহব্বান জানান তিনি।

ঘাটাইল থানার অফিসার ইনচার্জ আজহারুল ইসলাম সরকার পিপিএম বলেন, নানা যায়গায় চাকুরির অভিজ্ঞতা থেকে ঘাটাইলে যোগদানের পর এখানে অপরাধ প্রবণতা অনেকটা কম লক্ষ্য করলেও বিস্তীর্ণ পাহাড়িয়া অঞ্চলে মাদক ও জুয়ার একটা অভয়ারণ্য রয়েছে। আমরা ঘাটাইলে এসব সমূলে নিপাত করতে সঠিক এবং কার্যকর পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করছি। এর ফলাফলও ইতোমধ্যে আমরা পেতে শুরু করেছি বলে তিনি সে সময় উল্লেখ করেন।

তিনি বলেন, 'পুলিশই জনতা, জনতাই পুলিশ' এ স্লোগানকে বাস্তবে রূপ দিতে পুলিশ-জনতা একত্রিত হয়ে দেশের সার্বিক আইন-শৃঙ্খলা রক্ষায় কাজ করে যাচ্ছে। পুলিশের কাছে গিয়ে কোন মানুষ যাতে কষ্ট না পায়, হয়রানি ও ভোগান্তির শিকার না হয় সে লক্ষ্যে পুলিশ বাহিনীকে সৎ ও নিষ্ঠার সাথে নিরপেক্ষ হয়ে কাজ করার কঠোর নির্দেশনা দেয়া আছে।

অফিসার ইনচার্জ আজহারুল ইসলাম সরকার পিপিএম বলেন, সমস্যায় মামলা গ্রহণ থেকে স্থানীয়ভাবে বিষয়টি মীমাংসার দিকে আমি নজর দিচ্ছে বেশী। কারও কোন সমস্যায় সেখানে তৃতীয় পক্ষ বা দালাল শ্রেণীর কোন লোক যেন আমাদের বিভ্রান্ত করে ভুক্তভোগীর ক্ষতি করতে না পারে সেদিকে সাংবাদিকদের বিশেষ লক্ষ্য রাখার আহব্বান জানান তিনি। জনগণ নির্ভয়ে সেবার জন্য যেন থানায় যায়, সেই ম্যাসেজটি সঠিকভাবে জনগণের নিকট পৌঁছে দেয়ার জন্যও সাংবাদিকদের প্রতি সে সময় তিনি আহব্বান জানান।

পুলিশ বাহিনীর প্রধান কাজ হচ্ছে নাগরিকদের নিরাপত্তা সুরক্ষিত করা এবং আইনের যথাযথ প্রয়োগের মাধ্যমে অপরাধ দমন ও অপরাধীকে বিচার ব্যবস্থার আওতায় আনা। জায়গা-জমি নিয়ে ভাইয়ে-ভাইয়ে/বোনে মারামারি, খুনখারাবি হয়ে যায়। এমনকি সন্তান পিতা-মাতাকে নির্যাতন করতেও দ্বিধাবোধ করে না। ধর্ষণকারী, শিশু নির্যাতনকারীর পক্ষেও একটা দল তৈরি হয়ে যায় আমাদের সমাজে। তারপর বাদি-বিবাদি দু'পক্ষই চিন্তায় নেমে যায় কীভাবে পুলিশকে নিজের অনুকূলে আনা যায়। তখন আর সভ্য মানুষের বিবেকবোধ কাজ করে না, নিজের সামান্য স্বার্থসিদ্ধির জন্য হেন কোনো কাজ নেই যা অধিকাংশ মানুষ করে না। বিভিন্নভাবে সংশ্লিষ্ট পুলিশ সদস্যকে প্রলুব্ধ করার চেষ্টা করা হয়। আমরা এসব থেকে পুলিশ ও জনগণকে মুক্তি দেয়ার সংকল্প নিয়েছি বলে জানান আজহারুল ইসলাম সরকার পিপিএম।

মত বিনিময় সভায় সে সময় উপস্থিত ছিলেন, ঘাটাইল উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান কাজী আরজু, প্রেস ক্লাবের সভাপতি খান ফজলুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক রবিউল আলম বাদল, সহ সভাপতি উত্তম কুমার, যুগ্ম সম্পাদক আব্দুল লতিফ, খাদেমুল মামুন, সারোয়ার জাহান, শফিকুল ইসলাম, সবুজ সরকার, হেলাল তালুকদার, আল আমীন প্রমুখ।

(নিজস্ব প্রতিবেদক, ঘাটাইল ডট কম)/-