ghatail.com
ঢাকা বৃহস্পতিবার, ৮ আশ্বিন, ১৪২৮ / ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০২১
ghatail.com
yummys

কালিহাতীতে বিপথগামী স্কুলছাত্রীর বাবার আকুতি


ghatail.com
নিজস্ব প্রতিবেদক, ঘাটাইল ডট কম
০১ আগস্ট, ২০২১ / ২০২ বার পঠিত
কালিহাতীতে বিপথগামী স্কুলছাত্রীর বাবার আকুতি

আমার মেয়েকে বিয়ে দিতে হবে। সমাজে বসবাস করতে হবে। কিন্তু একটি কুচক্রী মহলের কারণে সমাজে বসবাস করা দায় হয়ে দাড়িয়েছে আমাদের। কথাগুলো বলেছেন মোবাইল ফোনে বিপথগামী হওয়া টাঙ্গাইলে কালিহাতী উপজেলার পাইকড়া ইউনিয়নের এক স্কুলছাত্রীর বাবা মোস্তফা।

তিনি জানান, তার স্কুল পড়ুয়া মেয়ে মোবাইলের মাধ্যমে পার্শবর্তী বীরবাসিন্দা ইউনিয়নের আটাবাড়ি গ্রামের আ.ছাত্তার তালুকদারে ছেলে সাজ্জাত তালুকদারের সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে। এর জের ধরে গত ঈদের আগের দিন তার মেয়ে ওই ছেলের বাড়িতে গিয়ে উঠে। খবর পেয়ে আমি স্থানীয় ইউপি সদস্য জালাল উদ্দিন, স্থানীয় মাতাব্বর মোস্তাফা,মঞ্জুর, হারুনসহ অন্যান্যদের সাথে নিয়ে ছেলের বাড়িতে যাই।

পরে ছেলে চাচাতো ভাই বীর বাসিন্দা ইউনিয়নের সদস্য আজাহারুল ইসলাম মাসুদসহ উভয় পক্ষের মাতাব্বরদের নিয়ে শালিসী বৈঠক বসে। ওই বৈঠকে আমার মেয়ে ছেলের সঙ্গে সম্পর্কের কোন প্রমাণ দিতে না পারায় পারিবারিক শান্তির লক্ষে উভয় পক্ষের মাতাব্বরদের উপস্থিতিতে আমার মেয়েকে বাড়িতে নিয়ে আসি।

এরপর একটি কুচক্রী মহলের ইন্দনে কয়েকটি গণমাধ্যমে 'শালিসের টাকা মাতাব্বরদের পকেটে' শিরোনামে সংবাদ প্রকাশ করা হয়। অথচ কোনো টাকা পয়সা লেনদেন না করে মেয়েকে নিয়ে আসি। এই সংবাদ প্রকাশের পর থেকে আমার বাড়িতে বিভিন্ন গণমাধ্যমকর্মী আসতে থাকে ঘটনা জানতে।

তিনি গণমাধ্যম কর্মীদের বলেন, আপনারা আর অপপ্রচার না করে আমার মেয়েকে নিয়ে সমাজে শান্তিতে বসবাস করার সুযোগ দেন।

এ বিষয়ে ছেলের চাচাতো ভাই ইউপি সদস্য মাসুদ জানান, মেয়ে সম্পর্ক প্রমাণ করতে না পারায় মেয়ের বাবা মেয়েকে নিয়ে গেছে। কোনো টাকা পয়সা লেনদেন হয়নি বলেও জানান তিনি।

গত ২৯ জুলাই গণমাধ্যমে 'কালিহাতীতে বিয়ের দাবিতে স্কুলছাত্রীর অনশন, সমঝোতার সাড়ে ৪ লাখ টাকা মাতাব্বরদের পকেটে' শিরোনামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়।

(নিজস্ব প্রতিবেদক, ঘাটাইল ডট কম)/-


সর্বশেষ - প্রচ্ছদ