ghatail.com
ঢাকা মঙ্গলবার, ১৯ শ্রাবণ, ১৪২৮ / ০৩ আগস্ট, ২০২১
ghatail.com
yummys

ঘাটাইলে কিন্ডারগার্টেনের দুঃসহ ১৬ মাস


ghatail.com
স্টাফ রিপোর্টার, ঘাটাইল ডট কম
১৭ জুলাই, ২০২১ / ১৩৬ বার পঠিত
ঘাটাইলে কিন্ডারগার্টেনের দুঃসহ ১৬ মাস

করোনাকালে টাঙ্গাইলের ঘাটাইল উপজেলার কিন্ডারগার্টেনগুলোর ভীষণ দুর্দিন যাচ্ছে। দীর্ঘ ১৬ মাসের বেশি সময় বন্ধ থাকায় এসব প্রতিষ্ঠান চরম আর্থিক সংকটে পড়েছে। ফলে প্রতিষ্ঠানের উদ্যোক্তা ও শিক্ষকেরা মানবেতর জীবনযাপন করছেন।

ঘাটাইলের ছয়টি কিন্ডারগার্টেন ইতিমধ্যে বন্ধ হয়ে গেছে। পৌরসভার মধ্যে অবস্থিত এফ মজিদ কিন্ডারগার্টেনে গিয়ে ভবনের বাইরে ভাড়া দেওয়ার বিজ্ঞাপন লাগানো দেখা গেছে।

ড্রিমস্টেয়ার স্কুলের শিক্ষক মোসা. সালমা আক্তার বলেন, ‘অল্প বেতনে কিন্ডারগার্টেনে চাকরি করি। টিউশনি করে বেশ রোজগার করতাম। বর্তমানে আমাদের উপার্জনের সব পথ বন্ধ।’

ঘাটাইল কিন্ডারগার্টেন অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক এস এম আব্দুল লতিফ জানান, এই উপজেলায় বর্তমানে ১০৭টি কিন্ডারগার্টেন আছে। এসব প্রতিষ্ঠানে প্রথম থেকে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত প্রায় ১৫ হাজার শিক্ষার্থী এবং ১ হাজার ২০০ শিক্ষক আছেন। প্রায় সব কিন্ডারগার্টেন ভাড়াবাড়িতে প্রতিষ্ঠিত। লকডাউনের পর থেকে এসব প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম বন্ধ হয়ে যায়।

এই পরিস্থিতিতে কোনো কোনো প্রতিষ্ঠান শিক্ষকদের বেতন বন্ধ করে দিয়েছে। বাড়িভাড়া মওকুফ করার জন্য তাঁরা ইতিমধ্যে উপজেলা চেয়ারম্যানের কাছে আবেদন করেছেন। অনেক উদ্যোক্তা ঋণ করে প্রতিষ্ঠান চালানোর চেষ্টা করছেন। করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হলে ঈদুল আজহার সময় অধিকাংশ প্রতিষ্ঠান শিক্ষকদের ন্যূনতম বেতন দিতে পারবে না। পরিচালক-শিক্ষক সবাই এখন চরম অনিশ্চয়তায় দিনযাপন করছেন বলে তিনি জানান।

প্রভাকর মডেল একাডেমির কবির হোসাইন বলেন, ‘আমার পরিবারের রোজগারের একমাত্র অবলম্বন হচ্ছে এই প্রতিষ্ঠান। এই দীর্ঘ সময় ভবন মালিক ভাড়া কম নেননি। বাধ্য হয়ে শিক্ষকদের বেতন বন্ধ করে দিয়েছি। চলতে খুব কষ্ট হচ্ছে।’

উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মাসুদুর রহমান বলেন, কিন্ডারগার্টেনগুলো ব্যক্তি উদ্যোগে প্রতিষ্ঠিত। কোনো প্রকার আর্থিক বরাদ্দ চাইতে পারবে না মর্মে ঘোষণা দিয়ে তাঁদের রেজিস্ট্রেশন নিতে হয়। তাই সবসময় তাঁদের নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় চলতে হবে।

(স্টাফ রিপোর্টার, ঘাটাইল ডট কম)/-