ghatail.com
ঢাকা সোমবার, ৭ আষাঢ়, ১৪২৮ / ২১ জুন, ২০২১
ghatail.com
yummys

ঢাকার বাইরে জেলায় জেলায় ছড়িয়ে পড়ছে করোনা, বাড়ছে মৃত্যু


ghatail.com
অনলাইন ডেস্ক, ঘাটাইল ডট কম
১০ জুন, ২০২১ / ১০৬ বার পঠিত
ঢাকার বাইরে জেলায় জেলায় ছড়িয়ে পড়ছে করোনা, বাড়ছে মৃত্যু

ঢাকার বাইরে জেলায় জেলায় ভয়াবহভাবে ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস। প্রতিদিনই বাড়ছে মৃত্যু ও আক্রান্তের হার। কোনো কোনো জেলায় শনাক্তের হার রীতিমতো অশনিসংকেত দিচ্ছে। হাসপাতালে হাসপাতালে করোনা রোগীতে ঠাঁই নেই অবস্থা। রোগীর সংখ্যা বেশি হওয়ায় অনেক হাসপাতালের মেঝেতে বিছানা পাতা হয়েছে। রোগীর চাপে শয্যা বাড়াতে বাধ্য হচ্ছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। কিন্তু তার পরও সংকট থাকছেই।


রাজশাহী 

রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে গতকাল বুধবার দুপুর পর্যন্ত ২৩২ শয্যার বিপরীতে রোগী ভর্তি ছিল ২৭৭ জন। যাদের অবস্থা বেশি খারাপ, তাদের রাখা হয়েছে আইসিইউ ও সেন্ট্রাল অক্সিজেন সরবরাহের তালিকায়। তুলনামূলক যারা ভালো, তাদের বারান্দায় বেড দিয়ে রাখা হয়েছে সিলিন্ডার অক্সিজেনে। রোগীর চাপ সামলাতে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ গতকাল দুপুরে চালু করেছে এক নম্বর ওয়ার্ডের ৩৬টি নতুন বেড।


চাঁপাইনবাবগঞ্জ 


চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা হাসপাতালেও দুই দফা শয্যা বাড়ানো হয়েছে, তার পরও রোগীদের জায়গা দেওয়া যাচ্ছে না। খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থাপিত করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালে মৃত্যু অতীতের সব সংখ্যা ছাড়িয়ে গেছে। গতকাল বিকেল সাড়ে ৩টা পর্যন্ত এক দিনেই মারা গেছেন ৯ জন।


এখানে ১০০ শয্যার বিপরীতে রোগী ছিলেন ১৩০ জন।


সাতক্ষীরা 


সাতক্ষীরায় গত ২৪ ঘণ্টায় ১৮২ জনের নমুনা পরীক্ষায় ১০৮ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। শনাক্তের হার ৫৯ দশমিক ৩৪ শতাংশ। উপসর্গ নিয়ে সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আরও চারজন মারা গেছেন।


বাগেরহাট


বাগেরহাটে গত ২৪ ঘণ্টায় ১৫৪ জনের নমুনা পরীক্ষায় করোনা শনাক্ত হয়েছে ৬৮ জনের। এই সময়ে মারা গেছেন চারজন। সংক্রমণের হার ৪৪ শতাংশ। কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে এক দিনে চারজনের মৃত্যু হয়েছে।

রোগী বাড়ছে নড়াইল, দিনাজপুর, নাটোর ও জয়পুরহাটেও। করোনা টিকার দ্বিতীয় ডোজ নেওয়ার এক মাস পর আক্রান্ত হয়েছেন ফেনীর দাগনভূঞা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাহিদা আক্তার তানিয়া।


বরগুনার বেতাগীতে মৃত্যু হয়েছে এক ওষুধ ব্যবসায়ীর। মৌলভীবাজারের কুলাউড়ায় করোনায় মৃত্যু হয়েছে এক বৃদ্ধের।

এদিকে, নওগাঁ পৌরসভাসহ নিয়ামতপুর, পোরশা, সাপাহার ও মান্দা উপজেলায় চলমান বিশেষ লকডাউন আরও সাত দিন বাড়িয়ে ১৬ জুন পর্যন্ত করা হয়েছে। আর যশোর ও নওয়াপাড়া পৌরসভায় গতকাল মধ্যরাত থেকে শুরু হয়েছে কঠোর বিধিনিষেধ।


ব্যুরো, নিজস্ব প্রতিবেদক, প্রতিনিধি ও সংবাদদাতার পাঠানো খবরে থাকছে বিস্তারিত :

রাজশাহী :


রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে করোনা রোগী বাড়ছে ভয়ংকর রকমের। রোগীর চাপ সামলাতে এক নম্বর ওয়ার্ডের ৩৬টি নতুন শয্যা চালুর পরও কাটছে না সংকট। তাই ১৫ নম্বর ওয়ার্ডকেও সেন্ট্রাল অক্সিজেনের আওতায় এনে করোনা ওয়ার্ড চালু করার কাজ চলছে।

হাসপাতালের উপপরিচালক ডা. সাইফুল ইসলাম জানান, ভর্তি হওয়া রোগীদের ৩০ থেকে ৮০ শতাংশ পর্যন্ত ফুসফুস অকেজো হয়ে গেছে। তাদের সবারই অক্সিজেন প্রয়োজন হচ্ছে। কিন্তু রোগীর তুলনায় শয্যা কম। বুধবার দুপুরে আরও ৩৬টি বেড চালু করায় এখন পর্যন্ত সেন্ট্রাল অক্সিজেন সরবরাহের আওতায় এসেছে ২৬৮টি বেড।


তিনি জানান, যারা বেড পাননি তাদের বারান্দায় অস্থায়ী বেড দেওয়া হয়েছে। তাদের সেন্ট্রাল অক্সিজেনের আওতায় আনা যায়নি। তবে তাদের সিলিন্ডার অক্সিজেন দেওয়া হয়েছে। স্বাভাবিক সময়ে যেখানে এক হাজার লিটার অক্সিজেন লাগত, সেখানে এখন প্রতিদিন আট হাজার লিটার অক্সিজেন লাগছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় রাজশাহী জেলায় ৩৫৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এটা আগের চেয়ে সর্বোচ্চ। একই সময়ে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে আটজনের মৃত্যু হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন রোগী ৩৫ জন ভর্তি হয়েছেন। এদিকে, বিভাগের আট জেলায় গত এক দিনে ৬৪১ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।

শিবগঞ্জ (চাঁপাইনবাবগঞ্জ) :


জেলা হাসপাতালে দুই দফা শয্যা বাড়িয়েও সংকট কাটেনি। রোগী বাড়তে থাকায় আতঙ্ক কাজ করছে মানুষের মধ্যে। অক্সিজেন স্বল্পতা, বেড ও জনবল সংকট এবং আইসিইউ না থাকায় ভোগান্তি বেড়েছে। যদিও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের দাবি, আইসিইউ ছাড়া জেলার আধুনিক এ হাসপাতালে অন্য কোনো সংকট নেই। জেলা হাসপাতালের বেড সংখ্যা ১৯ থেকে ৩০ এবং ৩০ থেকে ৫০-এ উন্নীত করা হয়েছে। জেলায় প্রথম দিকে সংক্রমণ ঊর্ধ্বমুখী থাকলেও ১৪ দিনের লকডাউন শেষে তা কিছুটা কমে ২০ শতাংশের আশপাশে রয়েছে।

খুলনা :


খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থাপিত করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালে আইসিইউ থেকে শুরু করে এইচডিইউ এমনকি সাধারণ শয্যা কোথাও ফাঁকা নেই। মেঝেতে অস্থায়ী শয্যা তৈরি করে রোগীদের চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। গতকাল বুধবার সকাল পর্যন্ত ১০০ শয্যার হাসপাতালে রোগী ভর্তি ছিলেন ১৩০ জন। আগের দিন ৮ জুন ১২৯ জন রোগী ভর্তি ছিলেন। হাসপাতালের ফোকাল পারসন সুহাস রঞ্জন হালদার বলেন, নির্ধারিত জনবল নিয়ে তাদের চিকিৎসাসেবা দিতে হিমশিম খেতে হচ্ছে।

খুলনার সিভিল সার্জন অফিস থেকে জানা গেছে, জুন মাসের প্রথম ৯ দিনেই খুলনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৭৫৫ জন। এর মধ্যে ৮ জুন সর্বোচ্চ সংখ্যক ১৫১ জনের করোনা শনাক্ত হয়। গতকাল বুধবার ৪১৪ জনের নমুনা সংগ্রহ করে ৮০ জনের করোনা শনাক্ত হয়। আক্রান্তের হার ২৪ শতাংশ। জেলায় এ পর্যন্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১০ হাজার ৯৮২ জনে। মারা গেছেন ১৯১ জন।

সাতক্ষীরা :


জেলায় গতকাল পর্যন্ত করোনা শনাক্ত হয়েছে দুই হাজার ৯৭ জনের। করোনার উপসর্গ নিয়ে সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া চারজনের মধ্যে শহরের রাজার বাগান এলাকার একজন, শ্যামনগর উপজেলার নৈকাটি গ্রামের একজন, জয়নগর গ্রামের একজন এবং সদর উপজেলার আখড়াখোলা গ্রামের একজন। এ নিয়ে জেলায় করোনার উপসর্গ নিয়ে মোট ২৩৬ জনের মৃত্যু হলো।

এমন পরিস্থিতিতে করোনা নিয়ন্ত্রণে প্রশাসনকে কিছুটা কঠোর হতে দেখা গেছে। মোড়ে মোড়ে চলছে তল্লাশি। স্বাস্থ্যবিধি মানতে চলছে মাইকিং। বন্ধ রয়েছে সব ধরনের গণপরিবহন চলাচল।

বাগেরহাট :


গত ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত ৬৮ জন নিয়ে এ পর্যন্ত বাগেরহাট জেলায় আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল এক হাজার ৯৬২ জনে। মারা গেছেন ৫১ জন। সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় জেলা করোনা মনিটরিং কমিটি জরুরি সভা করেছে। বুধবার দুপুরে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সভায় মোংলা বন্দর পৌরসভায় এক সপ্তাহের কঠোর বিধিনিষেধ জারির সিদ্ধান্ত হয়।

সভা শেষে জেলা প্রশাসক মোহাম্মাদ আজিজুর রহমান জানান, বৃহস্পতিবার সকাল ৬টা থেকে আগামী ১৬ জুন মধ্যরাত পর্যন্ত মোংলা বন্দর পৌরসভায় কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে।


যশোর :


গত ২৪ ঘণ্টায় এ জেলায় ৩৮৮ জনের নমুনা পরীক্ষায় ১৪৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ ছাড়া একজন করোনা রোগী এবং একজন করোনা সাসপেক্ট রোগী মারা গেছেন। গতকাল শনাক্তের হার ছিল ৩৬ শতাংশ। জেলায় এ পর্যন্ত সাত হাজার ৭০১ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। মারা গেছেন ৮৪ জন।

কুষ্টিয়া :


শনাক্ত ও মৃত্যু বেড়েছে কুষ্টিয়ায়। জেনারেল হাসপাতালে ৫০ শয্যার বিপরীতে রোগী ভর্তি আছে ৬৭ জন। হাসপাতাল সূত্র জানিয়েছে, রোগীর চাপ বাড়ায় শয্যা বাড়াতে হয়েছে। হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার তাপস কুমার সরকার বলেন, এখন ওয়ার্ড সম্প্রসারণ করা হচ্ছে। ৫০ শয্যার পর নতুন করে আরও ৩০টির বেশি শয্যা প্রস্তুত করা হচ্ছে। অতি জরুরি ছাড়া আর রোগী ভর্তি রাখা হবে না বলে সিদ্ধান্ত হয়েছে।


নওগাঁ :


গত ২৪ ঘণ্টায় জেলায় আক্রান্তের হার ১৭ দশমিক ৮০ শতাংশে দাঁড়িয়েছে। এই সময়ে ২৯২ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৫২ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৫৯২ জনে। এ পর্যন্ত জেলায় মৃত্যু হয়েছে ৪৮ জনের।

এ ছাড়া জয়পুরহাটে গত কয়েক দিনের তুলনায় সোম ও মঙ্গলবার শনাক্তের হার একটু কমেছে। এই দু'দিনে ৩৯৪ জনের মধ্যে শনাক্ত হয়েছে ৯৪ জন। সোমবার ২০৩ জনের মধ্যে ৫২ জন এবং মঙ্গলবার ১৯১ জনের মধ্যে ৪২ জন শনাক্ত হয়েছে। নড়াইল জেলায় গতকাল ৭৬ জনের নমুনা পরীক্ষায় ২৯ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে। শনাক্তের হার ৪০ শতাংশ।

জেলায় এ পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ১৯৫২ জন। মারা গেছেন ২৭ জন। দিনাজপুরে গত দুই সপ্তাহে দুই হাজার ৩৪১ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৪৩১ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। শনাক্তের হার ১৮ দশমিক ৪১ শতাংশ। চলতি দুই মাসে এ জেলায় শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যুহার ৩ দশমিক ৮১ শতাংশ, যা জাতীয় পর্যায়ের মৃত্যুহারের প্রায় আড়াই গুণ।

নাটোর সদর হাসপাতালে মারা গেছেন দুই করোনা রোগী। সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে সিংড়া ও নাটোর পৌরসভায় সাত দিনের বিশেষ লকডাউন চলছে। এদিকে, নাটোরের বড়াইগ্রাম, বনপাড়া ও সিংড়া পৌরসভার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে স্বাস্থ্যবিধি না মানায় ২৯ জনকে জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

(অনলাইন ডেস্ক, ঘাটাইল ডট কম)/-

সর্বশেষ - করোনা