ghatail.com
ঢাকা রবিবার, ২৫ বৈশাখ, ১৪২৮ / ০৯ মে, ২০২১
ghatail.com
yummys

করোনাকালে করুণ দশা টাঙ্গাইলের আইনজীবী সহকারীদের!


ghatail.com
সারোয়ার জাহান
০৪ মে, ২০২১ / 70 views
করোনাকালে করুণ দশা টাঙ্গাইলের আইনজীবী সহকারীদের!

সারাদেশে এক বছরেও বেশি সময় ধরে চলমান করোনাভাইরাসে স্থবির হয়ে পড়েছে সাধারণ মানুষের জীবণ। আয় রোজগারের পথ বন্ধ হয়ে গেছে বহু মানুষের। করুন দশা টাঙ্গাইলের আইনজীবী সহকারীদেরও। এ পরিস্থিতিতে আইনজীবীদের পাশাপাশি তাদের সহকারীরাও চরম বিপাকে রয়েছেন।

বৈশ্বিক করোনার মহামারির কারনে টাঙ্গাইল আইনজীবী সহকারী (অ্যাভভোকেট ক্লার্ক) সমিতির ১৫'শ সহকারী মানবেতর জীবনযাপন করছেন। এছাড়া আইনজীবীদের চেম্বার-সংশ্নিষ্ট আরও কয়েক হাজার কর্মী আছেন, যারা মূলত কম্পিউটার অপারেটর, অফিস সহায়কসহ বিভিন্ন পদে কর্মরত রয়েছেন আরো কয়েক হাজার লোক। তাই করোনাকালে কর্মহীন হয়ে পড়া সকল সদস্য-সদস্যাদের জন্য প্রনোদনা এখন সময়ের দাবি।

করোনাকালে আদালত বন্ধ থাকায় আইনজীবীদের সহকারীরা পেশা পরিচালনা করতে পারছেন না। মামলার কার্যক্রম চলমান না থাকায় তাদের সেরেস্তায় মক্কেলও আসছেন না। এর প্রভাব পড়েছে তাদের আয়ে। দীর্ঘ সময় ধরে আদালত বন্ধ থাকায় আইনজীবীদের সহকারীরা পরিবার-পরিজন নিয়ে আর্থিকভাবে খুবই কষ্টের মধ্যে দিন পার করছেন।

খোঁজ নিয়ে দেখা গেছে, প্রায় নব্বই শতাংশ আইনজীবীর চেম্বারে সবচেয়ে কষ্টে পড়েছেন জুনিয়র আইনজীবী ও আইনজীবীর সহকারী (মুহুরিরা)। আইনজীবীদের সেরেস্তায় কাজ না থাকায় তাদেরও আয় বলতে কিছু নেই। করোনা ঝুঁকির মুখে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করায় গত মাস থেকে কার্যক্রম বন্ধ হয়ে যায়। ফলে দীর্ঘ দিন কঠিন লোকডাউনে দিশেহারা আইনজীবির সহকারী (মুহুরিরা)।


অসহায়ভাবে টাঙ্গাইল আইনজীবী সহকারী (অ্যাভভোকেট ক্লার্ক) সমিতির এক সদস্য বলেন, কোর্ট বন্ধ থাকায় বেকার অবস্থায় বাসায় আছি। একেবারেই আয় বন্ধ। স্ত্রী -সন্তান নিয়ে খুব কষ্টে দিনাপাত করছি। সামনে ঈদ ছেলে মেয়েদের নতুন কাপড় কিনে দিতে পারবনা এটা খুবই কষ্টের ব্যপার।

ইতোমধ্যে আইনজীবির সহকারীদের মধ্যে কেও- কেও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুক এ কষ্ট প্রকাশ করে স্ট্যাটাস আপলোডও করেছেন। আমরা খুব কষ্টকর অবস্থায় আছি।


আরেক সদস্য বলেন, আদালত বন্ধ হওয়ার পরই পরিবার নিয়ে গ্রামের বাড়ি চলে এসেছি। আমাদের এই পেশায় অনেকেই কর্মহীন হয়ে পড়েছেন। অনেকে পেশা ছাড়তেও বাধ্য হবেন।টাঙ্গাইল আইনজীবী সহকারী সমিতির সাধারন সসম্পাদক মো. আরিফ হোসাইন বলেন,বৈশ্বিক করোনার মহামারির কারনে এ সংগঠনের ১৫'শ সদস্য মানবেতর জীবনযাপন করছেন। তিনি সরকারের কাছে করোনায় কর্মহীন হয়ে পড়া সকল সদস্য-সদস্যাদের জন্য প্রনোদনার দাবী জানান।

(ইমরুল হাসান বাবু, ঘাটাইল ডট কম)/-