ঢামেক হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ২মে থেকে আজ পর্যন্ত ৯০০ মৃত্যু

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে গত ২৪ ঘণ্টায় আরো ১৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। তাদের মধ্যে করোনা ভাইরাস পজিটিভ ৫ জন পুরুষের। আর অন্যরা করোনার উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন।

ঢামেক হাসপাতালে গত ২মে থেকে শুরু করা করোনা ইউনিটে আজ বৃহস্পতিবার (২ জুলাই) বিকেল সাড়ে ৫টা পযর্ন্ত করোনা ইউনিটে নারী ও পুরুষ মিলে ৯০০ জন মারা গেছেন। তাদের মধ্যে ২১৯ জন করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা যান।

ঢামেক হাসপাতালের মর্গ অফিসের ওয়ার্ড মাস্টার আব্দুল গফুর বৃহস্পতিবার বিকেলে এই মৃত্যুর বিষয়গুলো নিশ্চিত করেন।

তিনি বলেন, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা ইউনিটে নতুন করে আরো ১৭ জন মারা গেছেন। তাদের মধ্যে ৫ জন পুরুষ করোনা পজিটিভ হয়ে মারা যান। ঢামেক হাসপাতালে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের জন্য শিশু করোনা ইউনিটসহ ৩টি ইউনিট চালু করা হয়েছে। এখানে রোগী ভর্তি ও চিকিৎসা কার্যক্রম ২৪ ঘণ্টাই চালু রয়েছে।

তিনি আরো বলেন, যারা করোনাভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন তাদের লাশ তাদের আত্নীয়-স্বজনের কাছে পর্যায়ক্রমে হস্তান্তর করা হয়েছে। আর করোনা পজিটিভ হয়ে যারা মারা গেছেন তাদের লাশ করোনা বিধিমোতাবেক তাদের আত্নীয়-স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হচ্ছে।

(নয়া দিগন্ত, ঘাটাইল ডট কম)/-

ঘাটাইলে এক কেজি গাঁজা সহ মাদক ব্যবসায়ী আটক

টাঙ্গাইলের ঘাটাইলে এক কেজি গাঁজা সহ এক মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে জেলা গোয়েন্দা শাখা ডিবি (উত্তর)। ঘাটাইল ডট কম প্রাপ্ত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য পাওয়া যায়।

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, টাঙ্গাইল জেলা গোয়েন্দা শাখা ডিবি (উত্তর) এর সদস্যরা গতকাল বুধবার (১ জুলাই) ঘাটাইল উপজেলার জোড়দীঘি বাজার এলাকায় বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে। সে সময় সুনামগঞ্জ জেলার ধর্মপাশা উপজেলার শ্রীপুর গ্রামের কার্পু হাজং এর ছেলে রাজীব হাজং কে এক কেজি গাঁজা সহ আটক করা হয়।

জব্দকৃত গাঁজার আনুমানিক বাজার মূল্য ৪০ হাজার টাকা বলে বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়।

গ্রেফতারকৃত মাদক ব্যবসায়ী রাজীব হাজং এর বিরুদ্ধে মামলা রুজু করে আদালতে হস্তান্তর করা হয়েছে বলে বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

(স্টাফ রিপোর্টার, ঘাটাইল ডট কম)/-

রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকল বন্ধ ঘোষণা

শ্রমিকদের পাওনা বুঝিয়ে দিয়ে সংস্কার ও আধুনিকায়নের জন্য রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকলের উৎপাদন কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করেছে সরকার। প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউস এ কথা জানিয়েছেন।

বৃহস্পতিবার (২ জুলাই) প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে ড. আহমদ কায়কাউস বলেন, সংস্কার ও আধুনিকায়নের জন্য রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকলগুলোর উৎপাদন কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। একই সঙ্গে শ্রমিকদের শতভাগ পাওনা বুঝিয়ে দেয়ার ঘোষণাও দেয়া হয়েছে।

মুখ্য সচিব বলেন, রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকলগুলোর আধুনিকায়ন ও রিমডেলিংয়ের জন্য উৎপাদন কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। শ্রমিকদের শতভাগ পাওনা বুঝিয়ে দেয়া হবে। শ্রমিকদের আরও দক্ষ করতে প্রশিক্ষণ দেবে সরকার। পরে এ কারখানাগুলো পুনরায় চালু হলে নিয়োগের ক্ষেত্রে বর্তমান শ্রমিকদের অগ্রাধিকার দেয়া হবে।

তিনি বলেন, শ্রমিকদের পাওনা সরাসরি তাদের অ্যাকাউন্টে দেয়া হবে। এ জন্য পাঁচ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

এক প্রশ্নের জবাবে মুখ্য সচিব বলেন, পাটকল শ্রমিকরা এত দিন ঠিকমতো তাদের পাওনা পেতেন না। এখন তাদের সব পাওনা বুঝিয়ে দেয়া হবে। পাওনার ৫০ শতাংশ টাকা নগদ দেয়া হবে। বাকি ৫০ শতাংশ পারিবারিক সঞ্চয়পত্রের মাধ্যমে দেয়া হবে।

তিনি বলেন, মূলত শ্রমিকদের সুরক্ষার জন্য ৫০ শতাংশ পারিবারিক সঞ্চয়পত্রের মাধ্যমে দেয়া হবে। এতে শ্রমিকরা এখন যে অবস্থায় আছেন তার চেয়ে বেশি ভালো থাকবেন। এর আগে সকালে গণভবনে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। দেশে ২৫টি রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকল রয়েছে।

উল্লেখ্য, ধারাবাহিকভাবে লোকসানে থাকা রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকলগুলোর ২৪ হাজার ৮৮৬ জন স্থায়ী কর্মচারীর চাকরি গোল্ডেন হ্যান্ডশেকের মাধ্যমে অবসায়নের সিদ্ধান্ত গত রোববার এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে জানিয়েছিলেন বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী।

বস্ত্র ও পাট সচিব লোকমান হোসেন মিয়া সেদিন বলেছিলেন, শ্রমিকদের অবসায়নের পর আগামী ছয় মাসের মধ্যে পিপিপির (সরকারি-বেসরকারি অংশীদারিত্ব) আওতায় আধুনিকায়ন করে এসব পাটকলকে উৎপাদনমুখী করা হবে। তখন এসব শ্রমিক সেখানে চাকরি করার সুযোগ পাবেন।

২০১৩ সাল থেকে এ পর্যন্ত যে আট হাজার ৯৫৪ পাটকল শ্রমিক অবসরে গেছেন, তাদের সব পাওনাও একসঙ্গে বুঝিয়ে দেয়া হবে বলে সেদিন জানিয়েছিলেন পাটমন্ত্রী।

তবে বিভিন্ন শ্রমিক সংগঠন এর বিরোধিতায় মিছিল-সমাবেশের মত কর্মসূচি করেছে গত কয়েক দিন ধরে। বিশ্বে পাট ও পাটজাত পণ্যের চাহিদা যেখানে বাড়ছে, সেখানে রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকলগুলোর আধুনিকায়ন হলে শ্রমিক ছাঁটাই নয়, বরং নতুন শ্রমিকের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা হবে বলে যুক্তি দিয়ে আসছেন প্রতিবাদকারীরা।

এ পর্যন্ত এই পাটকলগুলোর পুঞ্জিভূত ক্ষতির পরিমাণ ১০ হাজার ৬৭৪ কোটি টাকা জানিয়ে আহমদ কায়কাউস বলেন, ‘এখানে কাউকে চাকরিচ্যুত করা হচ্ছে না। শ্রমিকদের পাওনা পরিশোধ করে তাদের অবসরে পাঠানো হচ্ছে।’

২০১৫ সালের সর্বশেষ মজুরি কাঠামো অনুযায়ী প্রায় ২৫ হাজার পাটকল শ্রমিক অবসরকালীন সুবিধাসহ প্রায় পাঁচ হাজার কোটি টাকা পাবেন জানিয়ে আহমদ কায়কাউস বলেন, সেজন্য আগামী তিন দিনের মধ্যে শ্রমিকদের তালিকা তৈরি করতে প্রধানমন্ত্রী সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা দিয়েছেন।

বাংলাদেশ পাটকল করপোরেশনের (বিজেএমসি) অধীনে থাকা ২৬টি পাটকলের মধ্যে মনোয়ার জুট মিল ছাড়া সবগুলোতেই উৎপাদন চলছে। এসব কারখানায় ২৪ হাজার ৮৬৬ স্থায়ী শ্রমিকের বাইরে তালিকাভুক্ত ও দৈনিক মজুরিভিত্তিক শ্রমিক আছে প্রায় ২৬ হাজার।

বেসরকারি খাতের পাটকলগুলো লাভ দেখাতে পারলেও বিজেএমসির আওতাধীন মিলগুলো বছরের পর বছর লোকসান করে যাচ্ছে, যার পেছনে অব্যবস্থাপনা, অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ রয়েছে।

বস্ত্র ও পাট সচিব লোকমান হোসেন মিয়া এর আগে জানিয়েছিলেন, রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকলগুলো গত ৪৪ বছরের মধ্যে মাত্র চার বছর লাভ করেছে। ৪৮ বছরে এই খাতে সরকারকে ১০ হাজার ৬৭৪ কোটি টাকা ভর্তুকি দিতে হয়েছে। প্রতি বছর শ্রমিকের মজুরিসহ খরচ মেটাতে সরকারের উপর নির্ভর করতে হয়েছে।

(জাগোনিউজ, ঘাটাইল ডট কম)/-

নাগরপুরে প্রতিবন্দ্বীকে কুপিয়ে জখম দোকানপাট ভাংচুর

তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে টাঙ্গাইলের নাগরপুরে জয়নাল মিয়া (৩২) নামের এক প্রতিববন্দ্বীকে কুপিয়ে জখম করেছে প্রতিপক্ষ । প্রতিপক্ষ ওই প্রতিবন্দ্বীর দোকানে হামলা চালিয়ে ভাংচুরের ঘটনা ঘটায়। এসময় তার ছোট বোন শেফালী আক্তার (১২) আহত হয়।

বুধবার (২ জুলাই) সন্ধ্যায় উপজেলার দপ্তিয়র ইউনিয়নের ধুনাইল গ্রামে এ ঘটনাটি ঘটে।

এ ব্যাপারে আহত প্রতিবন্দ্বীর ছোট ভাই শুকুর আলী বাদী হয়ে নাগরপুর থানায় ৬ জনকে আসামী করে অভিযোগ দেন ।

অভিযোগ সূত্রে জানান যায়, উপজেলার দপ্তিয়র ইউনিয়নের ধুনাইল পূর্ব পাড়া গ্রামের রুপচান মিয়ার শারিরীক প্রতিবন্দ্বী ছেলে জয়নাল নিজ বাড়িতে কাপড় ও মদি দোকান করে আসছিল।

বুধবার সন্ধ্যায় ছাগল নিয়ে একই গ্রামের মো. আলমগীরের ছেলে মো. তানজিদ (১৯) এর কথা কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে তানজিদের পরিবারের লোকজন এসে প্রতিবন্দ্বী জয়নালের দোকানে হামলা করে। এতে জয়নাল ও তার ছোট বোন শেফালী আহত হয়।

হামলাকারীরা দোকানের আসবাবপত্র ও মালামাল ভাংচুর করে। পরে স্বজন ও প্রতিবেশীরা তাদের উদ্বার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যান।

প্রত্যাক্ষদর্শী চান্দু মিয়া জানান, মাগরিব নামাজের আগে তানজিদকে চাপাতি ও ছুরা নিয়ে ঘোরাফেরা করতে দেখিছি।

প্রতিবন্দ্বী জয়নাল মিয়া জানান, হামলাকারীদের হামলায় কমপক্ষে ৩ লক্ষ টাকার মালামাল নষ্ট হয়েছে।

নাগরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আলম চাদঁ জানান, অভিযোগ পেয়েছি আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

(নাগরপুর সংবাদদাতা, ঘাটাইল ডট কম)/-

মধুপুরে শ্রমিক আরশেদ হত্যার বিচার দাবিতে মানববন্ধন

টাঙ্গাইলের মধুপুরে রড কারখানার শ্রমিক আরশেদ আলীর চাঞ্চল্যকর হত্যার বিচার দাবিতে মানববন্ধন কর্মসুচি পালন করেছেন এলাকাবাসী ও তার স্বজনরা।

বৃহস্পতিবার (২জুলাই) সকাল ১০টার দিকে মধুপুর বাসস্ট্যান্ড আনারস চত্বরে মধুপুরবাসীর আয়োজনে এ মানববন্ধন কর্মসুচি পালিত হয়।

মানববন্ধনে নৃশংস এই হত্যা ঘটনায় স্ত্রী রেহেনা, আব্বাছ, শ্বশুর ও শ্যালক স্বপনকে ফাঁসির দাবি জানানো হয়েছে।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, মৃত আরশেদ আলীর স্ত্রী রেহেনা, স্বশুর, দুলাভাই আব্বাছসহ হত্যাকান্ডের সাথে যারা জড়িত সবাইকে অবিলম্বে গ্রেফতার ও বিচারের আওতায় এনে ফাঁসি কার্যকর করা হোক।

উল্লেখ্য: গত ১৮ মে উপজেলার মির্জাপুর ইউনিয়নের থলবাড়ী গ্রামের স্ত্রী রেহেনা অসুস্থ্যতার কথা বলে ডেকে এনে দুলাভাই আব্বাছ, শ্বশুর, শ্যালক স্বপনকে নিয়ে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করে বাড়ীর সুপারি গাছের সাথে গলায় ফাঁস লাগানো ঝুলন্ত অবস্থায় রেখে গেলে মধুপুর থানা পুলিশ আরশেদ আলী (৩২) এর মরদেহ উদ্ধার করে।

(মধুপুর সংবাদদাতা, ঘাটাইল ডট কম)/-

করোনায় রেকর্ড শনাক্তের দিনে আক্রান্ত দেড় লাখ ছাড়ালো, মৃত্যু ৩৮

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনা শনাক্ত হয়েছেন চার হাজার ১৯ জন। এটিই এ পর্যন্ত একদিনে সর্বোচ্চ শনাক্ত। এ নিয়ে দেশে এখন পর্যন্ত মোট শনাক্ত হয়েছেন এক লাখ ৫৩ হাজার ২৭৭ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আরও ৩৮ জন মারা গেছেন। এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা দাঁড়ালো এক হাজার ৯২৬ জনে। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন চার হাজার ৩৩৪ জন। এখন পর্যন্ত মোট সুস্থ হয়েছেন ৬৬ হাজার ৪৪২ জন।

বৃহস্পতিবার (২ জুলাই) বেলা আড়াইটায় কোভিড-১৯ সম্পর্কিত সার্বিক পরিস্থিতি জানাতে স্বাস্থ্য অধিদফতরের নিয়মিত স্বাস্থ্য বুলেটিনের আয়োজন করা হয়। সেখানে এসব তথ্য জানান স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক নাসিমা সুলতানা।

তিনি জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ১৭ হাজার ৯৪৭টি। আগের নমুনাসহ ২৪ ঘণ্টায় মোট নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ১৮ হাজার ৩৬২টি। এখন পর্যন্ত আট লাখ দুই হাজার ৬৯৭টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। নমুনা পরীক্ষার মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত হয়েছেন চার হাজার ১৯ জন।

পরীক্ষার তুলনায় গত ২৪ ঘণ্টায় শনাক্তের হার ২১ দশমিক ৮৯ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৪৩ দশমিক ৩৫ শতাংশ এবং শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যুর হার ১ দশমিক ২৬ শতাংশ।

নাসিমা সুলতানা জানান, মৃত্যুবরণকারীদের মধ্যে ৩২ জন পুরুষ এবং ছয় জন নারী। বয়স বিশ্লেষণে দেখা যায়, ৮১ থেকে ৯০ বছরের মধ্যে দুই জন, ৭১ থেকে ৮০ বছরের মধ্যে সাত জন, ৬১ থেকে ৭০ বছরের মধ্যে আট জন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে দুই জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে ১৬ জন, ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে দুই জন এবং ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে একজন রয়েছেন।

২৪ ঘণ্টায় মৃত্যুবরণকারীদের মধ্যে ঢাকা বিভাগে ১১ জন, চট্টগ্রাম বিভাগে ১২ জন, বরিশাল বিভাগে দুই জন, রাজশাহী বিভাগে পাঁচ জন, খুলনা বিভাগে পাঁচ জন, সিলেট বিভাগে দুই জন এবং রংপুর বিভাগে একজন রয়েছেন। এদের মধ্যে হাসপাতালে মারা গেছেন ৩৩ জন এবং বাসায় মৃত্যুবরণ করেছেন পাঁচ জন।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় আইসোলেশনে রাখা হয়েছে ৯৬০ জনকে। বর্তমানে আইসোলেশনে আছেন ১৫ হাজার ৭৫৭ জন। ২৪ ঘণ্টায় আইসোলেশন থেকে ছাড়া পেয়েছেন ৭৭৫ জন, এখন পর্যন্ত মোট ছাড়া পেয়েছেন ১২ হাজার ৭৭৫ জন। এ পর্যন্ত মোট আইসোলেশন করা হয় ২৮ হাজার ৫০২ জনকে।

তিনি আরও জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় প্রাতিষ্ঠানিক ও হোম কোয়ারেন্টিন মিলে কোয়ারেন্টিন করা হয়েছে দুই হাজার ৮৯৪ জনকে। এখন পর্যন্ত তিন লাখ ৬৯ হাজার ১৮৯ জনকে কোয়ারেন্টিন করা হয়েছে। কোয়ারেন্টিন থেকে গত ২৪ ঘণ্টায় ছাড়া পেয়েছেন তিন হাজার ১৬৮ জন, এখন পর্যন্ত ছাড়া পেয়েছেন তিন লাখ পাঁচ হাজার ১৮১ জন। বর্তমানে মোট কোয়ারেন্টিনে আছেন ৬৩ হাজার ৬০৮ জন।

(বাংলা নিউজ, ঘাটাইল ডট কম)/-

টাঙ্গাইলে করোনা পজিটিভ বেড়ে ৬৬৯

টাঙ্গাইলে প্রতিনিয়তই হুহু করে বাড়ছে করোনায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা। জেলায় নতুন করে আরো ৩২ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এ নিয়ে জেলায় মোট আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়ালো ৬৬৯ জনে।

নতুন আক্রান্তদের মধ্যে মির্জাপুরে ১৮, সদরে ৮, কালিহাতীতে ২, সখীপুরে ১, ধনবাড়ীতে ১, ঘাটাইলে ১, গোপালপুরে ১ জন আক্রান্ত হয়েছেন। এনিয়ে টাংগাইল জেলায় মোট ৬৬৯ জন করোনা পজিটিভ হয়েছেন। এদিকে জেলায় মোট ১৩ জনের করোনা সংক্রমনে মৃত্যু হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (০২ জুলাই) সকালে টাঙ্গাইলের সিভিল সার্জন ডা. মো. ওয়াহীদুজ্জামান আক্রান্ত হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

টাঙ্গাইল সিভিল সার্জন অফিস সূত্র জানায়, ঢাকায় প্রেরিত নমুনার ফলাফল আজ সকালে আসে। এতে নতুন করে ৩২ জনের পজেটিভ আসে। এছাড়া নতুন করে আরো ২৫ জন সুস্থ হয়েছেন। এনিয়ে জেলায় মোট সুস্থ হয়েছেন ২৭৩ জন। আজ টাঙ্গাইলে কোন মৃত্যু নাই।

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার (০২ জুলাই) পর্যন্ত করোনা আক্রান্ত ৬৬৯ জনের মধ্যে মির্জাপুর ২২০, সদর ১৩৭, নাগরপুর ৩৮, কালিহাতী ৪০, দেলদুয়ার ৪২, গোপালপুর ৩৫, মধুপুর ৩৪, ভূঞাপুর ৩০, ধনবাড়ী ২৮, ঘাটাইল ২৭, সখিপুর ২৫ এবং বাসাইল ১৩ জন।

(টাঙ্গাইল সংবাদদাতা, ঘাটাইল ডট কম)/-

করোনায় ব্যর্থতার দায় নিয়ে পদত্যাগ করলেন নিউজিল্যান্ডের স্বাস্থ্যমন্ত্রী

করোনাভাইরাসের বৈশ্বিক মহামারির মধ্যে দায়িত্ব পালনে ব্যর্থতার দায় স্বীকার করে পদত্যাগ করেছেন নিউজিল্যান্ডের স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডেভিড ক্লার্ক।  বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রী জাসিন্ডা আরডার্ন জানিয়েছেন, তিনি ক্লার্কের পদত্যাগপত্র গ্রহণ করেছেন।

গত এপ্রিলে লকডাউন ভেঙে সপরিবারে সমুদ্রসৈকতে বেড়াতে গিয়ে সমালোচিত হয়েছিলেন নিউজিল্যান্ডের স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডেভিড ক্লার্ক। এরপর পাহাড়েও ভ্রমণে গিয়েছিলেন তিনি। সমালোচনার মুখে তখনই তিনি পদত্যাগ করতে চেয়েছিলেন। পদাবনতি হলেও করোনাজনিত সংকটকালে তাকে কাজ করে যেতে বলেছিলেন প্রধানমন্ত্রী জাসিন্ডা।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি জানিয়েছে, করোনাভাইরাস নিয়ন্ত্রণে নিউজিল্যান্ড বিশ্বের কাছে উদাহরণ হিসেবে হাজির হলেও সম্প্রতি  দেশটির সীমান্ত ও আইসোলেশন ব্যবস্থাপনা নিয়ে সরকারি কর্মকাণ্ডের তীব্র সমালোচনা হয়। সম্প্রতি আইসোলেশনে থাকা দুই ব্যক্তি কোনও করোনা পরীক্ষা ছাড়াই তাদের মৃত্যুপথযাত্রী আপনজনের সঙ্গে দেখা করতে যাওয়ার অনুমতি পান। পরে ওই ব্যক্তিদের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়।

এ ঘটনার পর পদত্যাগ করলেন ক্লার্ক। তিনি বলেন, ‘স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে থাকাকালে যেসব সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে, সেগুলোর পুরো দায়ভার আমি নিচ্ছি।’ ক্লার্ক মনে করছেন, এখন কমিউনিটি লেভেলে সংক্রমণ নেই। সরে যাওয়ার জন্য এটা ভালো সময়।

আপাতত স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে শিক্ষামন্ত্রী ক্রিস হিপকিন্সকে। তিনি আগামী সেপ্টেম্বরে অনুষ্ঠিতব্য সাধারণ নির্বাচনের আগ পর্যন্ত এ দায়িত্ব পালন করবেন।

(বাংলা নিউজ, ঘাটাইল ডট কম)/-

ঘাটাইলে প্রাণ কোম্পানিতে চাকুরীরত যুবক করোনা পজিটিভ

টাঙ্গাইলের ঘাটাইলে নতুন করে আরও একজন করোনা ভাইরাস পজিটিভ হয়েছেন। তার বাড়ী চাপাইনবাবগঞ্জ জেলার শিবগঞ্জ উপজেলায়। বিষয়টি ঘাটাইল ডট কমকে আজ বৃহস্পতিবার (২ জুলাই) সকালে নিশ্চিত করেছেন ঘাটাইল উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ সাইফুর রহমান খান।

তিনি বলেন,ঘাটাইলে আরও একজন করোনা ভাইরাস পজিটিভ হয়েছেন। তিনি বহুজাতিক প্রাণ কোম্পানিতে চাকুরির সুবাদে ঘাটাইলে অবস্থান করছিলেন। তার বাড়ী চাপাইনবাবগঞ্জ জেলার শিবগঞ্জ উপজেলায়। তিনি ঘাটাইলের ঝরকা জয়নাবাড়ী এলাকায় বাসা ভাড়া করে থাকতেন।

তিনি আরও জানান, করোনার উপসর্গ দেখা দিলে তিনি গত ২৬ জুন ঘাটাইল স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মাধ্যমে নমুনা দিয়েছিলেন। আজ বৃহস্পতিবার প্রাপ্ত ফলাফলে জানা যায় তিনি করোনা পজিটিভ।

জানা যায়, নতুন করে করোনা পজিটিভ হওয়া ওই ব্যক্তির নাম কামরুজ্জামান (৪৫)। এ নিয়ে ঘাটাইলে করোনা ২৭ জন করোনা পজিটিভ হলেন।

ডাঃ সাইফুর রহমান খান আরও জানান, নতুন করে করোনা পজিটিভ হওয়া ওই ব্যক্তি ঝরকা এলাকার যে বাসায় থাকতেন সেই বাসা ও আশেপাশে লকডাউন করার লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার জন্য ঘাটাইল থানা পুলিশ, পৌরসভা ও উপজেলা প্রশাসনকে পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

(স্টাফ রিপোর্টার, ঘাটাইল ডট কম)/-