৩ টাকা কাবিনে পরীমনি বিয়ে ভাঙলো ৬ মাসেই!

জানেন, আমরা তিন টাকায় বিয়ে করেছি! কিউট না? আমাদের বিয়ের দেনমোহর তিন টাকা’—এভাবেই গত মার্চ মাসে হঠাৎ বিয়ের খবর জানিয়েছিলেন ঢালিউডের আলোচিত নায়িকা পরীমনি।

নির্মাতা কামরুজ্জামান রনির সঙ্গে বিয়ের পর পাঁচ মাস কেটে গেলেও পরীমনির স্বামী বা সংসারের কোনো খবর নেই।

এমনকি নানা সময়ে ফেসবুকে নিজের অনেক ছবি পোস্ট করলেও স্বামীর সঙ্গে কোনো ছবি শেয়ার করেননি পরীমনি।

শুধু তা–ই নয়, স্বামী ও সংসার নিয়ে কিছু জানতে চাইলেও এড়িয়ে যাচ্ছেন তিনি।

তবে কি তিন টাকা দেনমোহরের সেই বিয়ে ভেঙেই গেল?

যোগাযোগ করা হলে স্ত্রী পরীমনি বা দাম্পত্য জীবন নিয়ে কোনো কথা বলতে চাননি কামরুজ্জামান রনি।

বিয়ে ভেঙে গেছে কি না, জানতে চাইলেও তিনি ছিলেন নিশ্চুপ।

পরীমনির ঘনিষ্ঠ অনেকেই নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেছেন, পরীমনি আসলে হুজুগে বিয়েটা করেছেন। বিয়ের পর কয়েক দিন তাঁকে স্বামীর সঙ্গে দেখা গেছে। তারপর আর কোনো খবর নেই।

ঈদুল আজহায় সহকারী শিল্পীদের জন্য এফডিসিতে কোরবানি দিয়েছেন পরীমনি। নিজের হাতে সবার হাতে মাংস তুলে দিয়েছেন তিনি।

গত কয়েক বছর কোরবানির মাংস বিতরণের সময় তাঁর সঙ্গে থাকতেন তাঁর প্রেমিক। কিন্তু বিয়ের পর প্রথম কোরবানিতে এফডিসিতে তাঁর সঙ্গে তাঁর বরকে দেখা যায়নি।

এতে বিয়ে ভেঙে যাওয়ার সন্দেহ আরও ঘনীভূত হয়েছে সবার মধ্যে।

চলচ্চিত্রসংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের প্রতিক্রিয়া, তিন টাকার বিয়ে কি তবে তিন মাসও টিকল না!

বরের কথা জানতে চাইলে এড়িয়ে যান পরীমনিও।

তাঁর সাবেক বন্ধুদের অনেকেই মনে করেন, ইচ্ছা হয়েছিল, তাই বিয়ে করেছিলেন তিনি। বরের সঙ্গে তাঁর কোনো যোগাযোগ নেই।

গণমাধ্যমে বরের প্রসঙ্গ এলে সাফ জানিয়ে দেন, স্বামীর বিষয় যেন না টানা হয়। বিয়ে নিয়ে তিনি কথা বলতে চান না।

তবে পরীমনির বর কামরুজ্জামান রনি বলেন, ‘বিয়ের সময়ও আমি কোনো কথা বলিনি। এখনো বলতে চাই না। আমি কাজে মনোযোগ দিয়েছি। কাজ নিয়েই থাকতে চাই।’

২০১৬ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারি এক সাংবাদিকের সঙ্গে পরীমনির প্রেমের খবর প্রকাশিত হয়।

২০১৯ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারি বেশ ঢাকঢোল পিটিয়ে তাঁদের বাগদান সম্পন্ন হয়।

শোনা গিয়েছিল, পরের বছর ভালোবাসা দিবসে বিয়ে করবেন তাঁরা।

সে বছর জুনে এক সাক্ষাৎকারে পরীমনি তাঁদের সম্পর্ক ভেঙে যাওয়ার ইঙ্গিত দেন।

এর আগেও একাধিক ব্যক্তির সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে পরীমনির। ভেঙেও যায়।

গত ৯ মার্চ দিবাগত রাতে অভিনয়শিল্পী ও পরিচালক হৃদি হকের অফিসে কাজি ডেকে বিয়ে করেন পরীমনি ও পরিচালক কামরুজ্জামান রনি।

সে সময় পরীমনি বলেন, ‘অনেক হিসাব–নিকাশ করে তো জীবনের পরিকল্পনা করাই যায়। কিন্তু জীবন চলে তার নিজস্ব পথে। জন্ম, মৃত্যু ও বিয়ে সবই আল্লাহর হাতে—এটা আমি খুবই মানি। আমার কাছে মানুষের প্রতি মানুষের বিশ্বাসও অনেক গুরুত্বপূর্ণ। এটার ওপর নির্ভর করে মানুষ জীবনকে এগিয়ে নিয়ে যায়।’

২০১৫ সালে ‘ভালোবাসা সীমাহীন’ চলচ্চিত্রের মাধ্যমে বড় পর্দায় অভিষেক হয় পরীমনির। সে বছর ‘রানা প্লাজা’ ছবিতে চুক্তিবদ্ধ হয়ে আলোচনায় আসেন তিনি, যদিও এখনো মুক্তি পায়নি ছবিটি।

পরীমনি অভিনীত অন্য ছবিগুলো হলো ‘ভালোবাসব তোমায়’, ‘মহুয়া সুন্দরী’, ‘রক্ত’ ও ‘স্বপ্নজাল’।

(অনলাইন ডেস্ক, ঘাটাইল ডট কম)/-

Print Friendly, PDF & Email