সখীপুরে ১০ হজযাত্রীর হজে যাওয়া অনিশ্চিত!

প্রতারণার শিকার হয়ে টাঙ্গাইলের সখীপুর উপজেলার বিভিন্ন গ্রামের ১০ জন হজযাত্রীর হজে যাওয়া অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। গত ২৮ জুলাই বিকেলে তাদের ফ্লাইট হওয়ার কথা থাকলেও, এখনও পর্যন্ত ভিসা পাননি। এর আগে গত ২০ ও ২৬ জুলাইও হজ এজেন্সি ফ্লাইটের তারিখ দিয়ে ছিলেন। তাদের ভিসা করা অনিশ্চিত হয়ে পড়ায় এ নিয়ে অনিশ্চয়তায় হজযাত্রীরা এখন বাড়িতে অবস্থান করে দু:শ্চিন্তায় ভোগছেন। ১০ হজযাত্রীদের বাড়ি সখীপুর উপজেলার বিভিন্ন এলাকায়।

প্রতারিত হজযাত্রীরা স্থানীয় হাজী আবদুল বাছেদ নামের এক (মোয়াল্লেম) এজেন্সির কাছে হজের টাকা প্রদান করেন। তিনি ঢাকার মারিয়া ট্যুরস এন্ড ট্রাভেলসের কাছে এসব হজযাত্রীদের ভিসা করার জন্য টাকা জমা দিয়েছেন বলে জানা গেছে।

প্রতারিত হজযাত্রীদের একজন আনোয়ার হোসেন তালুকদার জানান, ১লা আগস্ট পর্যন্ত আমরা ভিসা ও টিকেট পাইনি। হজে যাওয়ার জন্য তারা ১০জন হাজী আবদুল বাছেদ নামের এক (মোয়াল্লেম) এজেন্সির কাছে হজের টাকা প্রদান করেছেন। তিনি তাদেরকে ঢাকার মারিয়া ট্যুরস এন্ড ট্রাভেলসের কাছে এসব হজযাত্রীদের ভিসা করার জন্য টাকা জমা দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন।

হজ যাত্রীরা সবাই ওই ট্রাভেলসের কাছে যোগাযোগ করলে তারা এসএমএসের মাধ্যমে ‘হজ এজেন্সি এখনো আপনার ভিসা/আবাসন কার্যক্রম শুরু করেনি। হজ এজেন্সির সাথে যোগাযোগ করে হজ যাত্রা নিশ্চিত করুন’ এই তথ্য জানাচ্ছেন।

প্রতারিত হজযাত্রীরা আরও জানান, এজেন্সি ট্রাভেলস মালিকের হাতে তাদের ভিসার টাকা পৌঁছেনি বলে ধারনা করা হচ্ছে। এমন জটিলতা তৈরি করে (দালাল) এজেন্সি পারবেনা বলেও জানান তারা। আগামি ৫ আগস্ট হজ ফ্লাইটের শেষ ফ্লাইট হবে বলেও তারা জানান।

এ নিয়ে এজেন্সি হাজী আবদুল বাছেদের সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ওই ১০ হজ যাত্রীর ভিসা, টিকেট ওকে। এসব কাগজপত্রাদি হজ যাত্রীদের হাতে পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। তারা ৬ আগস্ট হজ ফ্লাইটে চলে যাবেন।

এ নিয়ে ঢাকার মারিয়া ট্যুরস এন্ড ট্রাভেলসের কাছে এসব হজযাত্রীদের বিষয়ে জানার জন্য বারবার যোগাযোগ করেও তাদের বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

(সখীপুর সংবাদদাতা, ঘাটাইলডটকম)/-