সখীপুরে সড়কের কাজ শেষ না করেই ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান লাপাত্তা

টাঙ্গাইলের সখীপুর-সুরুজ জিসি সড়ক হতে শালগ্রামপুর-তেজপুর ফেরিঘাট পর্যন্ত ১১ কিলোমিটার সড়কের কাজ শেষ না করেই ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান লাপাত্তা হয়েছে গেছে। ফলে ক্ষতিগ্রস্ত এবং জরাজীর্ণ সড়কে চলাচলে সীমাহীন দুর্ভোগে পড়েছেন ওই এলাকার জনগণ।

উপজেলা এলজিইডি কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, টেন্ডারের মাধ্যমে ৮কিলোমিটার মেরামত ও ৩ কিলোমিটার নতুনভাবে নির্মাণ কাজ পেয়েছিল মেসার্স ইউনাইটেড কমার্শিয়াল সেন্টার লিমিটেড ও রিচি এন্টাপ্রাইজ নামের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। নর্দান বাংলাদেশ ইন্টিগ্রেটেড ডেভেলপমেন্ট প্রজেক্টের আওতায় এবং বাংলাদেশ সরকার ও জাইকার অর্থায়নে ওই সড়কের নির্মাণ ব্যয় ধরা হয় ৭ কোটি ৯২ লাখ ১৭ হাজার ৫২০ টাকা। কার্যাদেশ মোতাবেক ২০১৭ সালের ৭ মে কাজ শুরু হয়ে ২০১৮ সালের ৬ নভেম্বর কাজটি শেষ হওয়ার কথা। কিন্তু কাজ শুরু করার পর হঠাৎ কাজ বন্ধ করে দেয় ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান।

সরেজমিনে দেখা যায়, ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানটি ১১ কিলোমিটার সড়কের কাজ কোনো কোনো স্থানে অর্ধেক, আবার কোনো স্থানে তার চেয়েও কম কাজ শেষ করেছে। কয়েকটি স্থানে ব্রিজ-কালভার্ট নির্মাণের কাজ শুরু করেও বিধ্বস্ত অবস্থায় তা ফেলে রেখে গেছে। স্থানীয়রা বাধ্য হয়ে কয়েক কিলোমিটার ঘুরে বিকল্প রাস্তায় মালামাল পরিবহন করছেন।

সড়কটির সুপার ভিশনের দায়িত্বে থাকা এলজিইডি সখীপুর উপজেলা প্রকৗশলী কার্যালয়ের সার্ভেয়ার ফরমান আলী বলেন, ঠিকাদারকে কাজটি সমাপ্ত করার জন্য বারবার ফোনে ও চিঠির মাধ্যমে জানানো হলেও তিনি কোনো কর্ণপাত করেননি। এছাড়াও কাজটি বাতিল করার জন্য সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে চিঠি দেওয়া হয়েছে।

কাজ ফেলে রাখার বিষয়ে জানতে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের মালিক আলমগীর হোসেন পিন্টুর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে এ বিষয়ে তিনি মন্তব্য করতে রাজি হননি।

(এম সাইফুল ইসলাম শাফলু, ঘাটাইলডটকম)/-

Views