সখীপুরে স্মার্টফোন দেখে লেখা ও নকলের দায়ে ৬ শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার

টাঙ্গাইলের সখীপুর উপজেলায় পরীক্ষার হলে স্মার্টফোন দেখে উত্তর লিখতে গিয়ে এক শিক্ষার্থী বহিষ্কৃত হয়েছেন। একই কেন্দ্রে স্মার্টফোন কাছে রাখার দায়ে আরেক শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার করা হয়েছে। এ ছাড়া বিভিন্ন উপায়ে নকল করার দায়ে চার শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার করা হয়েছে। সখীপুরের সূর্যতরুণ শিক্ষাঙ্গন স্কুল অ্যান্ড কলেজ কেন্দ্রে আজ বুধবার (১৩ নভেম্বর) সকালে এ ঘটনা ঘটে।

ওই কেন্দ্রে এসএসসি (ভোকেশনাল) নবম শ্রেণির সমাপনী পরীক্ষা চলছিল। আজ সকালে ড্রেস মেকিং-১ প্রথমপত্রের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।

বহিষ্কৃত শিক্ষার্থীরা হলো সানস্টার টেকনিক্যাল অ্যান্ড বিএম কলেজের শিক্ষার্থী মো. রাকিব, সূর্যতরুণ শিক্ষাঙ্গন অ্যান্ড কলেজের ভোকেশনাল শাখার আল আমিন, হতেয়া এইএইচইউ উচ্চবিদ্যালয়ের আবদুর রাহিম, একই বিদ্যালয়ের রাকিব মিয়া, ভুয়াইদ টেকনিক্যাল ইনস্টিটিউটের শেখ ফরিদ ও মো. রাসেল।

উপজেলা একাডেমিক সুপারভাইজার আনোয়ার হোসেন বলেন, ‘আমি হঠাৎ ওই কেন্দ্র পরিদর্শনে গিয়ে জানালা দিয়ে দেখি, এক শিক্ষার্থী স্মার্টফোন বের করে তাতে থাকা ছবি দেখে দেখে উত্তরপত্রে লিখছে। হলে ঢুকেই ওই ফোনটি জব্দ করে ওই ফোনে থাকা প্রশ্নোত্তরের সঙ্গে উত্তরপত্রের লেখা হুবহু মিলে যাওয়ায় তাকে বহিষ্কার করা হয়। এরপর নকল করার অপরাধে আরও পাঁচজনকে বহিষ্কার করা হয়েছে।’

সূর্যতরুণ শিক্ষাঙ্গন স্কুল অ্যান্ড কলেজ কেন্দ্রের সচিব ও কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আবু নাসের ফারুক ছয় শিক্ষার্থীকে বহিষ্কারের তথ্য নিশ্চিত করেন।

(সখীপুর সংবাদদাতা, ঘাটাইলডটকম)/-