সখীপুরে পরিবারের সবাইকে অজ্ঞান করে শ্যালিকাকে ধর্ষণ, আটক ধর্ষক বোনজামাই

টাঙ্গাইলের সখীপুরে মিষ্টির সাথে ঘুমের ওষুধ মিশিয়ে অজ্ঞান করে ১৩ বছরের শিশু শ্যালিকাকে রাতভর ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে বোন জামাই ও তার বন্ধুর বিরুদ্ধে। উপজেলার প্রতিমাবংকী পশ্চিমপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় আজ বুধবার (২০ ফেব্রুয়ারি) ধর্ষিতার বাবা বাদী হয়ে সখীপুর থানায় মামলা করলে পুলিশ ওই দিনই ধর্ষক বোন জামাই আমিনুর রহমানকে গ্রেফতার করেছে।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, উপজেলার বগাপ্রতিমা গ্রামের মৃত আবুল কালামের ছেলে আমিনুর রহমান কিছুদিন আগে একটি নতুন ট্রাক কেনেন। নতুন গাড়ি কেনা উপলক্ষে তিনি গত ১৬ ফেব্রুয়ারি শনিবার রাত ৮টার দিকে পূর্বপরিকল্পিতভাবে তার বন্ধুকে নিয়ে শ্বশুড় বাড়ি একই উপজেলার প্রতিমাবংকী পশ্চিমপাড়া গ্রামে যান। তাদের দেয়া ঘুমের ওষুধ মিশ্রিত মিষ্টি জুস খেয়ে বাড়ির সবাই অচেতন হয়ে পড়ে।

পরে বোন জামাই আমিনুর ও তার বন্ধু মিলে স্কুল পড়ুয়া ১৩ বছর বয়সী শিশু শ্যালিকাকে রাতভর পালাক্রমে ধর্ষণ করে পালিয়ে যায়। দুইদিন পর গত ১৮ ফেব্রুয়ারি সোমবার জ্ঞান ফিরলে তাদেরকে সখীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

এ ঘটনায় ধর্ষিতার বাবা জামাতা আমিনুর রহমানসহ দুইজনকে আসামি করে সখীপুর থানায় ধর্ষণ মামলা করে। পরে ২০ ফেব্রুয়ারি বুধবার মামলার প্রধান আসামি ধর্ষক আমিনুর রহমানকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

সখীপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি তদন্ত) মো লুৎফুল কবির বলেন, ধর্ষণ মামলার প্রধান আসামি আমিনুর রহমানকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অপর আসামিকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। ধর্ষিতার ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

(সখীপুর সংবাদদাতা, ঘাটাইলডটকম)/-

382total visits,1visits today