সংসদে আবহাওয়া বিল-২০১৮

জলবায়ু সম্পদের যৌক্তিক ব্যবহারের জন্য আবহাওয়া সার্ভিস সংক্রান্ত কার্যক্রম শক্তিশালী, সমন্বিত, লক্ষ্যভিত্তিক ও যুগোপযোগী করার লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় বিধানের প্রস্তাব করে রোববার (৮ এপ্রিল) সংসদে আবহাওয়া বিল, ২০১৮ উত্থাপন করা হয়েছে।

সংসদ কার্যে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক বিলটি উত্থাপন করেন।

প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীন বিদ্যমান বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তরকে বিলে উল্লেখিত আবহাওয়া অধিদপ্তর হিসেবে গণ্য করার বিধানের প্রস্তাব করা হয়েছে। এ অধিদপ্তরের প্রধান কার্যালয় ঢাকায় করা এবং প্রয়োজনে ঢাকার বাইরে যে কোন স্থানে এর আঞ্চলিক বা শাখা কার্যালয় স্থাপনের বিধানের প্রস্তাব করা হয়েছে।

বিলে আবহাওয়া অধিদপ্তরের কার্যাবলী, আবহাওয়া সেবা সংক্রান্ত দায়িত্ব, গবেষণা ও প্রশিক্ষণ কেন্দ্র প্রতিষ্ঠা, অধিদপ্তরের মহাপরিচালক নিয়োগ ও তার দায়িত্ব, এর অন্যান্য কর্মচারী নিয়োগসহ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে সুনির্দিষ্ট বিধানের প্রস্তাব করা হয়।

এছাড়া বিলে আবহাওয়া পর্যবেক্ষণাগার স্থাপন, নেটওয়ার্কের মাধ্যমে আবহাওয়া পর্যবেক্ষণ, পর্যবেক্ষণাগার ও স্থাপনাসমূহের রক্ষণাবেক্ষণ, পর্যবেক্ষণ মানসম্মতকরণ ও পরিকল্পনা প্রণয়ন ও বাস্তবায়নসহ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে বিধানের প্রস্তাব করা হয়।

বিলে আবহাওয়া পূর্বাভাস কেন্দ্র স্থাপন, আবহাওয়া পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ বিজ্ঞপ্তি জারি, নৌযান, জাহাজ ও বিমানের জন্য পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ, সতর্কীকরণ পূর্বাভাস জারি ও প্রত্যাহার, আবহাওয়া পূর্বাভাস প্রচার, জলবায়ু পর্যবেক্ষণ ও সেবা, জলবায়ু পরিবর্তন, জলবায়ু সম্পদ সুরক্ষাসহ অন্যান্য বিষয়ে বিধানের প্রস্তাব করা হয়েছে।

এছাড়া বিলে জাতীয় ভূমিকম্প পর্যবেক্ষণাগার স্থাপন, পর্যবেক্ষণ নেটওয়ার্ক পরিচালনা ও অপারেশনাল কার্যক্রম, ভূমিকম্প ও সুনামি পর্যবেক্ষণ সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি বিষয়ে সুনির্দিষ্ট বিধানের প্রস্তাব করা হয়।

বিলে আবহাওয়া অধিদপ্তরের মহাপরিচলককে আন্তর্জাতিক বিমান চলাচল সংস্থা (ইকাও) এর এনেক্স ৩ অনুযায়ী আবহাওয়া কর্তৃপক্ষ হিসাবে গণ্য করার বিধানের প্রস্তাব করা হয়েছে। এছাড়া বিলে প্রয়োজনে বিধি প্রণয়নের বিধানেরও প্রস্তাব করা হয়েছে।

পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে ৩০ দিনের মধ্যে সংসদে রিপোর্ট প্রদানের জন্য প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটিতে প্রেরণ করা হয়।

বিল উত্থাপনের পর্যায়ে জাতীয় পার্টির ফখরুল ইমাম আপত্তি উত্থাপন করলে তা কণ্ঠভোটে নাকচ হয়ে যায়।

(বাসস, ঘাটাইল.কম)/-