রাণীনগরে রেলওয়ের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান শুরু

অবশেষে রেলওয়ে পশ্চিমাঞ্চলের ঘুম ভাঙ্গতে শুরু করেছে। মঙ্গলবার (৮ সেপ্টেম্বর) বেলা ১১টা থেকে রেলওয়ের কর্তৃপক্ষ নওগাঁর রাণীনগর উপজেলার রেলওয়ে স্টেশন এলাকায় অবৈধ ভাবে রেলের জায়গা দখল করে গড়ে তোলা স্থায়ী-অস্থায়ী ও পাকা-আধাপাকা স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান শুরু করেছে।

রেলওয়ে পশ্চিমাঞ্চল পাকশির বিভাগীয় ভূ-সম্পত্তি কর্মকর্তা ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ নূরুজ্জামানের নেতৃত্বে অবৈধ স্থাপনাগুলো উচ্ছেদ অভিযান শুরু করা হয়।

এসময় নওগাঁ জেলা প্রশাসকের পক্ষে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রাকিবুল ইসলাম, সান্তাহার রেলওয়ের ফিল্ড কানুনগো মহসিন আলীসহ বিভিন পর্যায়ের কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন।

প্রথম দিকে দোকান ঘর মালিকরা জোট বদ্ধ হয়ে বাধা ও প্রতিবাদের চেষ্টা করলেও পুলিশের তোপের মুখে তারা টিকতে পারেনি। এক পর্যায়ে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ স্কেবেটার মেশিন দিয়ে নওগাঁ-নাটোর আঞ্চলিক মহা সড়কের দুই পাশে অবৈধ স্থাপনা গুড়িয়ে দেওয়া শুরু করে।

এক পর্যায়ে দোকান মালিকরা নিরব দর্শকের মতো হতাশা নিয়ে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায়। দোকান মালিকদের অভিযোগ, নির্মাণ কাজের সময় বাধা না দিয়ে হঠাৎ করে স্থাপনাগুলো গুড়িয়ে দেওয়ায় কয়েক কোটি টাকার ক্ষতি হবে। রেলওয়ের তালিকায় প্রায় আড়াই শ’ অবৈধ স্থাপনার ও দোকান ঘরের তালিকা রয়েছে যা পর্যায়ক্রমে ভাঙ্গা হবে। ।

দোকান মালিক মন্টু জানান, পাঁচ মাস আগে বিশেষ এক নেতাকে ৫০হাজার টাকা দিয়ে একটি দোকান ঘর নির্মান করি। লাইসেন্স পেতে রাজশাহী এবং পাকশীতে করার জন্য যোগাযোগ করলে কাগজ করে দেওয়ার আশ্বাস দিলেও আজ ঘর ভেঙ্গে ফেলায় আর্থিক ভাবে ক্ষতির সম্মুখিন হয়েছি।

রাণীনগর সদর ইউনিয়নের চেয়াম্যান আসাদুজ্জামান পিন্টু জানান, জনগণের পক্ষ থেকে দাবী করবো রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ শর্ত স্বাপেক্ষে কাগজপত্র করে দিলে অন্ততপক্ষে তাদের জীবন জীবিকার হবে।

রাজশাহী বিভাগীয় ভূ-স্পত্তি কর্মকর্তা ও এক্্িরকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ নূরুজ্জামান বলেন, রেলের সম্পত্তির উপর স্থানীয়রা কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া নির্মাণ করা স্থাপনা সড়িয়ে নেওযার জন্য নোটিশ দিলেও অবৈধ স্থাপনা সরে না নেওয়ায় অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হচ্ছে।

(রাজেকুল ইসলাম, রাণীনগর, নওগাঁ/ ঘাটাইল ডট কম)/-