মির্জাপুরে সাংবাদিক সহ নতুন চারজনের করোনা শনাক্ত, আক্রান্ত বেড়ে ১৪

টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে নতুন করে উপসর্গহীন সাংবাদিকসহ চারজনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে দুইদিনের ব্যবধানে আবারো জেলায় আক্রান্তের শীর্ষে উঠে এসেছে মির্জাপুর উপজেলা। এরই মধ্য দিয়ে করোনামুক্ত মির্জাপুর সদর তথা পৌর এলাকায়ও এই মহামারী ভাইরাসটি হানা দিলো।

আক্রান্ত ব্যক্তিরা হলেন- পৌর এলাকার বাওয়ার কুমারজানী গ্রামের সাংবাদিক (৪৫), ইউএনও অফিসের নৈশ প্রহরী (৩৬), উপজেলা কৃষি অফিসের সহকারী (৪৮) ও সদরের পুরাতন বাসস্ট্যান্ডের আশকবর এলাকার এক ফার্মাসিস্ট এর ছেলে (১৪) করোনায় সংক্রমিত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৪ মে) সকাল ১১টায় এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মাকসুদা খানম।

ডা. মাকসুদা খানম জানান, গত মঙ্গলবার (১২ মে) উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ মোট ২৭ জনের সংগৃহীত নমুনা পরীক্ষার জন্য ঢাকায় প্রেরণ করে স্থানীয় স্বাস্থ্য বিভাগ। আজ বৃহস্পতিবার প্রাপ্ত রিপোর্টে ওই চারজনের করোনা পজিটিভ এসেছে। এ নিয়ে মির্জাপুরে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ১৪ জনে। এদিকে টাঙ্গাইলে আজ একদিনে রেকর্ড সর্বোচ্চ ১৩ জনের নমুনা পজিটিভ শনাক্ত হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, আক্রান্তের মধ্যে বাওয়ার কুমারজানী গ্রামের সাংবাদিকের বসতবাড়িসহ আশপাশের ২৫টি বাড়ি ও মির্জাপুর প্রেসক্লাব, ইউএনও অফিসের নৈশ প্রহরীর বাসস্থানসহ উয়ার্শী গ্রামের ২৫টি বাড়ি, আশকবর ভবন এলাকার বাসিন্দা ফার্মাসিস্টের বাসভবন কাদের এন্ড মুজিব টাওয়ার সম্পূর্ণ বিল্ডিংয়সহ পার্শ্ববর্তী খান সুপার মার্কেট ও আশপাশের ৩টি বাড়ি এবং উপজেলা কৃষি অফিসের কর্মচারীদের আবাসিক ভবনের ৩টি ফ্ল্যাট লকডাউন করা হয়েছে।

এছাড়াও আক্রান্তরা প্রাথমিকভাবে বাড়িতে আইসোলেশনে থেকে চিকিৎসা নিবেন বলে তিনি উল্লেখ করেন।

উল্লেখ্য, মির্জাপুরে এ পর্যন্ত সর্বমোট করোনা শনাক্ত ১৪ জন। এদের মধ্যে একজন মারা গেছেন ও দুইজন সুস্থ্য হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। বাকিরা চিকিৎসাধীন, যার মধ্যে সাতজন বাড়িতে আইসোলেশনে রয়েছেন এবং চারজন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আছেন বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

(আরাফাত ইসলাম শুভ, ঘাটাইল ডট কম)-