মধুপুরের গারো পল্লীতে শিশু শ্যালিকাকে ধর্ষণ, দুলাভাই গ্রেফতার

টাঙ্গাইল মধুপুরের গারো পল্লীতে ১০ বছরের শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে প্রশান রেমা নামে একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।  উপজেলার থানারবাইদ গারো পল্লী এলাকা থেকে রোববার (১৫ এপ্রিল) রাতে তাকে গ্রেফতার করা হয়। ধর্ষণের শিকার শিশুটি প্রশান রেমার শ্যালিকা।

আটক প্রশান রেমা (২৮) একই এলাকার রূপেন মৃ-এর ছেলে। পরে আজ সোমবার দুপুরে প্রশান রেমাকে টাঙ্গাইল আদালতে পাঠানো হয়। গারো পল্লীতে শিশু ধর্ষণের ঘটনা ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করেও স্থানীয় মাতব্বরদের চেষ্টা ব্যর্থ হয়।

স্থানীয় ও পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, গত ২ এপ্রিল মধুপুর উপজেলার থানারবাইদ গ্রামের রূপেন মৃর ছেলে প্রশান রেমা (২৮) একই এলাকার ১০ বছর বয়সী তার নিজ শ্যালিকাকে ধর্ষণ করে। ঘটনার পর প্রশেন তার অসহায় শ্বশুর পরিবারকে বিষয়টি কাউকে না জানানোর এবং জানালে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দেয়। এ ঘটনা ৮ এপ্রিল এক কান দুই কান করে এলাকায় ছড়িয়ে পড়ে। এ নিয়ে এলাকার মাতব্বররা মীমাংসার কথা বলে সময়ক্ষেপণ করতে থাকেন।

তরুণ সংগঠনের নেতারা অভিযোগ করেন, স্থানীয় রাগেন্দ্র নকরেকের নেতৃত্বে মাতব্বররা এর কূলকিনারা না করায় ওই নির্যাতিত অসহায় পরিবারের পাশে দাঁড়ান তারা। এ নিয়ে বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন মধুপুর শাখা, সংগঠনসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে বিচারের জন্য আবেদন করে। এমন তৎপরতায় ধর্ষক নানা হুমকি-ধামকি দিতে থাকে। অবশেষে  বাগাছাস, জিএসএফ, সিমসাকবো আচিক মিচিক সংগঠন, চিংআ যুব সংগঠনের নেতা-কর্মীরা একত্রিত হয়ে সিদ্ধান্ত নিয়ে প্রশেনকে পুলিশে দেয়ার উদ্যোগ নেয়। পরে রোববার প্রশেনকে এলাকা থেকে আটক করে স্থানীয়রা পুলিশে সোপর্দ করেন।

এ ব্যাপারে মধুপুর থানার ওসি সফিকুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এ ঘটনায় ধর্ষিতার মা রাতে বাদি হয়ে থানায় মামলা করেছেন। গ্রেফতার প্রশান রেমাকে আজ সোমবার টাঙ্গাইল আদালতে পাঠানো হয়েছে। এছাড়া ধর্ষণের শিকার শিশুটিকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে বলে জানান তিনি।

(মধুপুর সংবাদদাতা, ঘাটাইল.কম)/-