ভূঞাপুরে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণার প্রতিবাদে বিক্ষোভ

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরের জনসাধারণের স্বাস্থ্য সুরক্ষা ঝুঁকি বিবেচনা করে আজ মঙ্গলবার (১৯ মে) থেকে সকল ধরণের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকার নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে প্রশাসন। সোমবার বিকালে এক গণবিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোছা. নাসরীন পারভীন এ গণবিজ্ঞপ্তি জারি করেন। এদিকে মার্কেট ও শপিংমল বন্ধের নির্দেশনার প্রতিবাদে ব্যবসায়ীরা আজ মঙ্গলবার সকালে টাঙ্গাইল-তারাকান্দী সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ প্রদর্শণ করে। পুনরায় মার্কেট ও শপিংমল খুলে দেয়ার দাবী জানান তারা।

জানা যায়, করোনা ভাইরাসের কারনে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক গত ১০ মে থেকে মার্কেট ও শপিংমল খোলা হয়। কিন্তু মার্কেট ও শপিংমলগুলোতে কোন ধরনের স্বাস্থ্যবিধি মানা হচ্ছিল না। বিরাজ করছিলো জনস্রোত। এতে মারাত্মক স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে পরে সাধারণ মানুষ। বিষয়টি নজরে আসে প্রশাসনের। ৯০ ভাগ লোকজন ও ব্যবসায়ীরা সরকারি নির্দেশনা মানছিলোনা।

এরই প্রেক্ষিতে সোমবার বিকালে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোছা. নাসরীন পারভীন মার্কেট ও শপিংমল মঙ্গলবার (১৯ মে) থেকে বন্ধ রাখার নির্দেশনা দিয়ে গণবিজ্ঞপ্তি জারি করেন। তবে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি, ওষুধ ও কাঁচাবাজারের দোকান এ নির্দেশনার আওতামুক্ত থাকবে।

এ বিষয়ে ভূঞাপুর বাজার সমিতিরি সভাপতি নুরুজ্জামান চকদার বলেন, প্রশাসনের শর্ত সাপেক্ষেই স্বাস্থ্যবিধি মেনেই আমরা মার্কেট ও শপিংমলগুলো খোলা রেখেছিলাম। কিন্তু হঠাৎ করেই উপজেলা নির্বাহী অফিসার সোমবার গণবিজ্ঞপ্তি জারির মাধ্যমে সকল ধরনের দোকানপাট বন্ধ করে দেন।

সাধারণ দোকানদাররা দাবী জানিয়েছেন, মার্কেট খুলে দেয়া না হলে তারা বিক্ষোভ অব্যাহত রাখবেন।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোছা.নাসরীন পারভীন বলেন, মার্কেট ও শপিংমলগুলো খোলার পর থেকে কোন ধরনের স্বাস্থ্যবিধি মানা হচ্ছিলনা। বিরাজ করছিলো জনস্রোত। এতে মারাত্মক স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে পরে সাধারণ মানুষ। বিষয়টি নজরে আসে প্রশাসনের। ৯০ ভাগ লোকজন ও ব্যবসায়ীরা সরকারি নির্দেশনা মানছিলোনা। আর এ কারনেই মার্কেট, শপিংমলগুলো ও দোকানপাট বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

(কামাল হোসেন, ঘাটাইল ডট কম)/-