ভূঞাপুরে গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু

টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে খাদিজা ওরফে ফুলতুলি নামে এক গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। বুধবার (২২ জানুয়ারি) দুপুরে ভূঞাপুর উপজেলার ধুবলিয়া গ্রামে স্বামী ফারুক হোসেনের বাড়ি থেকে খাদিজার ঝুলন্ত লাশ পাওয়া যায়।

বৃহস্পতিবার (২৩ জানুয়ারি) ময়নাতদন্তের জন্য গৃহবধূর লাশ টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ।

গৃহবধূর বাবার দাবি, এ ঘটনায় গৃহবধূর শশ্বর বাড়ির লোকজন আত্মগোপন করেছে বলে জানাগেছে।

খাদিজার বাবা হুরমুজ আলী দাবি করেন, তার মেয়ে খাদিজাকে যৌতুকের জন্য হত্যা করে ফাঁসিতে ঝুঁলিয়ে রাখে তার শশুর বাড়ির লোকজন। বিয়ের সময় খাদিজার স্বামী ফারুককে দুই কিস্তিতে দেড় লাখ টাকা ও এক ভরি স্বর্ণের অলঙ্কার যৌতুক হিসেবে দেয়া হয়। এখন আবার নতুন করে যৌতুকের দাবি করে মাঝে মাঝেই নির্যাতন করে আসছিল। যৌতুক না পেয়ে গত ২২ জানুয়ারি তাকে হত্যা করে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে রাখে।

ভূঞাপুর থানার উপ পরিদর্শক (এসআই) আনিছুর রহমান জানান, আত্মহত্যা প্ররোচণার অভিযোগে থানায় একটি মামলা (জিডি নং ৮০৭/ ২২/০১/২০২০) দায়ের করা হয়েছে।

খাদিজার মামা আসাদুজ্জামান বলেন, আমার ভাগনিকে আজ থেকে ৫ মাস পূর্বে ভূঞাপুর উপজেলা ফলদা ইউনিয়ন পূর্ব দুপুরিয়া গ্রামের ফারুক হোসেনের সাথে বিবাহ দেই। বিয়ের সময় নগদ ২লক্ষ ৫০ হাজার টাকা যৌতুক হিসাবে দেওয়া হয়, আরো টাকা যৌতুক দাবি করে বিয়ের কিছুদিন পর থেকেই মানুষিক ও শারিরীক নির্যাতন করে যাচ্ছে। আমার দুলাভাই কৃষক জমি চাষ করে কোন রকম সংসার চালায়, তার পক্ষে আরো টাকা দেওয়া সম্ভব না।

তিনি আরও বলেন, টাকা দিতে পারবেনা এই কথা শুনে ফারুক গত ২২ জানুয়ারি বুধবার দুপুরে খাদিজাকে শারিরিকভাবে আঘাত করে মৃত্যু নিশ্চিত করে ঘরের ধর্নার সাথে ঝুলিয়ে ডাকাডাকি করে বলে খাদিজা আত্মহত্যা করেছে। আমরা সংবাদ পাওয়ার সাথে সাথে গিয়ে দেখি লাশ ভূঞাপুর থানায় আনা হয়েছে।

(ভুঞাপুর সংবাদদাতা, ঘাটাইলডটকম)/-