ভুঞাপুরে শায়িত ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে নিহত এসআই কোহিনুর

দেড় বছরের কন্যা সন্তান রেখে টাঙ্গাইলের ভুঞাপুরে চির নিদ্রায় শায়িত হয়েছেন ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে নিহত পুলিশের এসআই কোহিনুর। বুধবার (৩১ জুলাই) সকাল সাড়ে ৯টায় ঢাকা রাজারবাগ পুলিশলাইনসে প্রথম জানাজা এবং জোহরের নামাজের পর তার গ্রামের বাড়ি ভূঞাপুর উপজেলার অর্জুনা গ্রামে দ্বিতীয় জানাজা শেষে অর্জুনা পূর্বপাড়া পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়।

এসআই কোহিনুরের সর্বশেষ কর্মস্থল ছিল পুলিশের স্পেশাল ব্রাঞ্চে।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, গত সোমবার (২৯ জুলাই) রাতে গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় কোহিনুর বেগম নীলাকে রাজারবাগ পুলিশ লাইন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে ওইদিনই রাত সাড়ে ৯টার দিকে সিটি হাসপাতালে নেয়া হয়।

পরে সিটি হাসপাতালে তাকে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্র (আইসিইউতে) রাখা হয়। ক্রমেই তার অবস্থার অবনতি হতে থাকে। সর্বশেষ মঙ্গলবার (৩০ জুলাই) রাত সোয়া ১টার দিকে কোহিনুরকে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসক।

এসআই কোহিনুরের স্বামী জহির উদ্দিন প্রাণ কোম্পানীতে কর্মরত। তাহিয়া নামে ১৮ মাসের একটি কন্যা সন্তান রয়েছে।

তার অকাল মৃত্যুতে নিহতের পরিবারসহ এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে। ঢাকা থেকে তার লাশ গ্রামের বাড়িতে আসার পর সেখানে এক হৃদয়বিদারক দৃর্শের সৃষ্টি হয়।

স‌রেজ‌মি‌নে অর্জুনা গি‌য়ে দেখা গে‌ছে, লাশবাহী গা‌ড়ি থে‌কে যখন নিহত ক‌হিনু‌রের লাশ অ্যম্বু‌লেন্স থে‌কে নামা‌নো হ‌চ্ছিল তখনও টলটল ক‌রে তা‌কি‌য়ে আ‌ছে শিশু জা‌সিয়া আফ‌রিন (১৮মাস)। আবার অ‌নেক সময় এ‌দি‌ক ও‌দিক তা‌কি‌য়ে হাস‌ছে অবুঝ শিশু‌টি। এসময় অন্য একজ‌নের কো‌লে চড়ে ফিডা‌রে দুধ খা‌চ্ছে সে। এই দৃশ্য দে‌খে সেখা‌নে উপ‌স্থিত শত মানুষ চাপা কান্না কর‌ছে। সবাই শিশু‌টি‌কে দেখ‌ছে।

ক‌হিনু‌রের বড় বোন জেবা জানান, শিশু জা‌সিয়া‌কে নি‌য়ে আমার বো‌নের অ‌নেক স্বপ্ন ছিল। বড় হ‌লে মে‌য়ে‌কে সে চি‌কিৎসক বানা‌তে চে‌য়ে‌ছিল। এখন জা‌সিয়ার ভ‌বিষ্যত কি? ও (জা‌সিয়া) জা‌নেই না তার মা আর তার কা‌ছে ফি‌রে আস‌বে না। নিষ্পাপ এই শিশুর দি‌কে তাকা‌লে কান্না ধ‌রে রাখতে পা‌রি না।

(ভুঞাপুর সংবাদদাতা, ঘাটাইলডটকম)/-