১৮ই আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২রা জুলাই, ২০২০ ইং
সর্বশেষ
করোনায় রেকর্ড শনাক্তের দিনে আক্রান্ত দেড় লাখ ছাড়ালো, মৃত্যু ৩৮টাঙ্গাইলে করোনা পজিটিভ বেড়ে ৬৬৯করোনায় ব্যর্থতার দায় নিয়ে পদত্যাগ করলেন নিউজিল্যান্ডের স্বাস্থ্যমন্ত্রীঘাটাইলে প্রাণ কোম্পানিতে চাকুরীরত যুবক করোনা পজিটিভকোন পথে মির্জাপুরের করোনা পরিস্থিতি?রাগবি নিয়ে টাঙ্গাইলের এমপি টিটুর কন্যা আলিশার স্বপ্নপলিটেকনিকে ভর্তিতে বয়সের বাঁধা থাকছে না, শিথিল হচ্ছে যোগ্যতাকিটের ৬০০ কোটি টাকা বাকি, মারাত্মকভাবে বিঘ্নিত করোনা পরীক্ষাকালিহাতীর নারান্দিয়ায় ১৩ দিনে ৬টি দুর্ধর্ষ চুরি ও ছিনতাই, আতঙ্কে স্থানীয়রাভাঙন ঝুঁকিতে ভূঞাপুর-তারাকান্দি সড়ক, আতঙ্কে এলাকাবাসী!

ভুঞাপুরে পচা বেকারী খাবার চুলায় শুকিয়ে পূনরায় বিক্রি!

জানু ২৪, ২০২০

টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর উপজেলায় বিভিন্ন এলাকায় গড়ে ওঠা অসংখ্য বেকারী কারখানাগুলোতে দীর্ঘদিন ধরে বেকারী পণ্য ব্যবসায়ীরা নানা ধরণের কেমিক্যাল, কাপড় ও কাঠে ব্যবহৃত রঙ মিশিয়ে দিনের পর দিন তৈরি করে আসছিল বেকারি পণ্য খাবার। ভোক্তাদের এমন অভিযোগের ভিত্তিতে গত বুধবার (২২ জানুয়ারি) সরেজমিনে বেকারীগুলোতে ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান চালিয়ে উপজেলার বাগবাড়ী, গোবিন্দাসী, কষ্টাপাড়া, রুহুলী (নৌকা মোড়), কয়েড়া ও ভালকুটিয়া গ্রামের ৮টি বেকারিতে অভিযান পরিচালনা করে এর সত্যতার প্রমাণও পায় অনুসন্ধানে।

জানা গেছে, শুধু রঙ আর কেমিক্যাল ব্যবহারী নয়, কয়েক দিনের পোড়া ভেজাল তেল, অস্বাস্থ্যকর ও নোংরা পরিবেশে তৈরি করা হয় বিভিন্ন খাবার সামগ্রী। স্থানীয়রা বলছে, ভেজাল তেল ও কড়াইয়ে জমে থাকা সেই পোড়া তেল এবং চিনিযুক্ত পচা তেলেও এই বেকারী খাবারে ব্যবহার করতো তারা।

এদিকে বেকারী কয়েকজন ব্যবসায়ীরা তাদের অপ-কাজের দায় স্বীকার করে বলেছেন, ইউনিয়ন পরিষদ থেকে নামমাত্রক ট্রেড লাইসেন্স নিয়ে হাতে গোনা কয়েকজন ব্যবসায়ীরা পণ্য উৎপাদন করলেও বাকি বেকারীগুলোর কোনো লাইসেন্স বা (বিএসটিআই) এর অনুমোদনও নেই।

সরেজমিনে আরো জানা গেছে, বেকারি পণ্যগুলোর মেয়াদ নির্ধারিত নিয়মনীতি তোয়াক্কা না করেই মনগড়া সিল বানিয়ে মেয়াদ উত্তীর্ণের তারিখ ও অনুমোদনহীন মনোগ্রাম ব্যবহার করছে। এছাড়াও উৎপাদনের ২/৩ দিন দোকানে রাখা পচে যাওয়া পণ্যগুলোও তারা চুলায় শুকিয়ে পূনরায় বিক্রি করছে।

এ ছাড়াও অভিযোগ উঠেছে উপজেলা খাদ্য কর্মকর্তা মুক্তা রানী সাহার বিরুদ্ধেও।

অস্বাস্থ্যকর নোংরা পরিবেশ ও রঙ মিশিয়ে খাদ্য উৎপাদনের বিষয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ মহী উদ্দিন বলেন, বেকারী পণ্যে রঙ মিশিয়ে ও অস্বাস্থ্যকর নোংরা পরিবেশে খাবার তেরি পেটে ক্যান্সার হওয়া আশঙ্কা দেখা দেয়। বিশেষ করে শিশুদের জন্য এসব খাবার বেশী ক্ষতিকর। তাই সকলের ভেজাল খাবার পরিবহার করা উচিত।

উপজেলার এই ভেজাল বিরোধী অভিযানের বিষয়ে কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আসলাম হোসাইন বলেন, গত বুধবার সারাদিন ব্যাপি উপজেলার বিভিন্ন এলাকার ৮টি বেকারি পণ্য উৎপাদন কারখানায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়। এতে করে বেকারী মালিকদের মোট ১ লাখ ৮০ হাজার টাকা অর্থদন্ড অনাদায়ে বিভিন্ন মেয়াদে বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করা হয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোছাঃ নাসরীন পারভীন বলেন, ভেজাল খাবার খেয়ে মানুষ প্রতিনিয়ত অসুস্থ্য হয়ে পড়ছে। এই উপজেলাকে ভেজাল মুক্ত করার জন্যই আমাদের এ অভিযান। অল্প কিছু জরিমানা করে এদেরকে সতর্ক করা হয়েছে। ভবিষ্যতে আবারো এমন ভেজাল বেকারী উৎপাদন করলে ওই বেকারীগুলোতে সিল গালা করে বন্ধ করে দেওয়া হবে। আমাদের এই অভিযান অব্যাহত থাকবে।

(ফরমান শেখ, ঘাটাইলডটকম)/-

Recent Posts

ফেসবুক (ঘাটাইলডটকম)

Adsense

Doctors Dental

ঘাটাইলডটকম আর্কাইভ

বিভাগসমূহ

পঞ্জিকা

July 2020
S S M T W T F
 123
45678910
11121314151617
18192021222324
25262728293031

Adsense