ভুঞাপুরে অবহেলায় নবজাতকের মায়ের মৃত্যু, শাশুড়ী আটক

টাঙ্গাইল জেলার ভূঞাপুর উপজেলার চর ভরুয়ায় ৭ নভেম্বর (বৃহস্পতিবার) শাশুড়ীর অবহেলায় নবজাতকের মা লিপি খাতুনের মৃত্যু হওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় আজ শুক্রবার ভুঞাপুর থানায় মামলা দায়ের করা হলে গৃহবধূর শাশুড়িকে আটক করে পুলিশ।

ভূঞাপুর থানায় মামলা সূত্রে জানা যায়, টাঙ্গাইল জেলার ভূঞাপুর উপজেলার অর্জুনা ইউনিয়নের চর ভরুয়া গ্রামের লিপি খাতুন (২৫) বৃহস্পতিবার সকালে এক কন্যা সন্তান প্রসব করে। সন্তান প্রসবের পরে ফুল (রিটেইন্ট প্লাসেন্ট) না পড়ায় সকাল সাড়ে ন’টায় ভূঞাপুর থানা স্বাস্থ্য কম্পপ্লেক্সে ভর্তি করানো হয়। ডেলিভারী ওয়ার্ডের কর্তব্যরত ডাক্তার সম্পূর্ণ অপসারণ করে রোগীর অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় টাঙ্গাইল শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজ এন্ড হাসপাতালে রেফার্ড করেন। শাশুড়ী শাহিদা বেগম তাঁকে টাঙ্গাইল হাসপাতালে না নিয়ে বাড়ীতে নিয়ে যায়। পরে নবজাতকের মায়ের অবস্থার অবনতি হলে টাঙ্গাইল হাসপাতালে নিলে ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করে।

এ ব্যাপারে ভূঞাপুর থানায় মামলা হলে আজ শুক্রবার ভোরে শাশুড়ী শাহীদা বেগমকে পুলিশ গ্রেফতার করে জেল হাজতে প্রেরণ করেন। লাশ ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা জানান, শাশুড়ী শাহীদা বেগমকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অন্যান্য আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

লিপি খাতুনের মা জানান, “ প্রায় ৪ বছর পূর্বে ভাতিজা শাহজামাল ও আমার মেয়ে লিপি খাতুন গার্মেন্টেসে চাকুরী করা অবস্থায় মেয়েকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে গোপনে ঢাকায় বিবাহ করে। পরে শাহ জামালের মা শাহীদা বেগম বিষয়টি মেনে নিতে পারে নাই। তাই আমার মেয়েকে সব সময় বিভিন্নভাবে নির্যাতন করেছে। আমার মেয়েকে ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী টাঙ্গাইল হাসপাতালে নিলে মারা যেত না। শাশুড়ীর অবহেলার কারণে আমার মেয়ের মৃত্যু হয়েছে। আমি ন্যায় বিচার চাই।”

জানা যায়, টাঙ্গাইল জেলার ভূঞাপুর উপজেলার ভরুয়া গ্রামের আব্দুল মান্নানের মেয়ে লিপি খাতুনের সাথে একই গ্রামের আবু সামার ছেলে শাহজামালের সাথে গোপনে ঢাকায় বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়।

(আতোয়ার রহমান, ঘাটাইলডটকম)/-