ফৌজদারী আইনের ১৮৮১ সালের এনআই অ্যাক্টের ১৩৮ ধারা সংশোধনের দাবি

ফৌজদারী আইনের ১৮৮১ সালের এনআই অ্যাক্টের ১৩৮ ধারা সংশোধনের দাবিতে শনিবার (৯ ফেব্রুয়ারি) টাঙ্গাইল প্রেসক্লাবের বঙ্গবন্ধু অডিটরিয়ামে সংবাদ সম্মেলন করেছে বাংলাদেশ ঘুষ দুর্নীতি নির্মূল পার্টি।

সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ ঘুষ দুর্নীতি নির্মূল পার্টির চেয়ারম্যান আকবর হোসেন ফাইটন লিখিত বক্তব্যে বলেন, ফৌজদারী আইনের ১৮৮১ সালের এনআই অ্যাক্টের ১৩৮ ধারা ব্রিটিশ সাম্রাজ্যবাদীরা ভারতবর্ষের সাধারণ জনগনকে নির্যাতন, অত্যাচার, জমি হাতিয়ে নেয়ার কূটকৌশল হিসেবে তৈরি করেছিল। বর্তমান ডিজিটাল যুগে গ্রীণঅর্থনীতি যখন ভার্চুয়াল মানি তখন এ ধারা কার্যকারিতা অসার হয়ে পড়েছে। ধারাটি দীর্ঘদিন যাবত ঘুষখোর, সুদখোর, জুরাড়ি সহ দুর্নীতিবাজদের হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে।

তিনি বলেন, ওই ধারায় দায়েরকৃত মামলায় সবার পক্ষেই ডিচার্জ করার ও উচ্চ আদালতে যাওয়ার সামর্থ হয়না। ওই আইনের ধারাটি সংশোধনে চেক প্রদানে সাক্ষী, চুক্তিপত্র, বিজনেস রিলেশন, ইন্টারনী পিরিয়ড, লিমিট পিরিয়ড ইত্যাদি বিষয় সংযোজন করা প্রয়োজন। এছাড়া, স্বপ্রণোদিতভাবে হস্তলেখা বিষারদ দিয়ে পরীক্ষা করানো, বাকিতে লেন-দেনের ক্ষেত্রে রেজিস্ট্রিচুক্তি, জামিনদার ও নির্ধারিত অঙ্কের মধ্যে অ্যাকাউণ্ট পে ব্যবস্থা সংযোজন করা দরকার। তিনি এ ধারায় জাল-জালিয়াতির ৫টি মামলার বিবরণ দেন।

সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ ঘুষ নির্মূল পার্টির প্রচার সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. জহুরুল ইসলাম সহ বিভিন্ন সাংগঠনিক পদবীধারীরা উপস্থিত ছিলেন।

(টাঙ্গাইল সংবাদদাতা, ঘাটাইলডটকম)/-

107total visits,1visits today