প্রশ্নফাঁস প্রতারণা চক্রের ৬ সদস্য আটক

চলমান এইচএসসি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস রোধে কঠোর সতর্কবস্থানে রয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। ভুয়া প্রশ্নপত্র সরবরাহ ও এর সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে শনি ও রবিবার সারাদেশে অভিযান চালিয়ে ছয় জনকে আটক করা হয়েছে। এবং এ সংক্রান্ত আরো তথ্য ঘাটাইল.কমের কাছে আসছে। র‌্যাব ও পুলিশের পৃথক অভিযানে নারায়ণগঞ্জ, কুমিল্লা, টাঙ্গাইল, বগুড়া, মাদারীপুর ও দিনাজপুর থেকে ছয় জনকে আটক করা হয়েছে।

নারায়ণগঞ্জ:

নারায়ণগঞ্জে র‌্যাব ১১ এর অভিযানে এইচএসসি পরিক্ষার প্রশ্নপত্র ও উত্তরপত্র সংগ্রহ এবং ভূয়া প্রশ্ন আদান প্রদানের সাথে জড়িত সন্দেহে ০১ জনকে আটক করা হয়েছে। শনিবার দুপুর ২টায় নারায়ণগঞ্জের বন্দর থানাধীন হাজী ইব্রাহিম আলমচাঁন মডেল স্কুল এন্ড কলেজ থেকে তাকে আটক করে র‌্যাব-১১। আটককৃতের নাম মোঃ ওয়াসিম আকরাম (২১)। ওয়াসিম নারায়নগঞ্জ জেলার বন্দর নবীগঞ্জ এলাকার মোঃ জালাল উদ্দিনের ছেলে।

সে এবছর বন্দর কদমরসুল কলেজের অনিয়মিত ছাত্র হিসেবে এইচএসসি পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ করে। এসময় তার কাছ থেকে একটি স্মার্টফোন উদ্ধার করা হয়। ওয়াসিম ফোনটি বেআইনিভাবে গোপনে পরীক্ষার হলে নিয়ে যায়।

বিকেলে গণমাধ্যমে প্রেরিত র‌্যাব-১১এর সিনিয়র সহঃ পুলিশ সুপার জসিম উদ্দিন পিপিএম স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

গত ০৩ এপ্রিল ২০১৮ তারিখে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের সাহায্যে ভূয়া প্রশ্ন সংগ্রহ ও প্রচারের সাথে জড়িত থাকায় নারায়ণগঞ্জ জেলার সদর থানাধীন এইচএসসি পরীক্ষা কেন্দ্র নারায়ণগঞ্জ কলেজের সামনে থেকে ০২ জন ও ০৭ এপ্রিল ২০১৮ তারিখ মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখান থানাধীন রামকৃষ্ণপুর এলাকা হতে ০১ জনসহ মোট ০৩ জনকে গ্রেফতার র‌্যাব-১১। এছাড়াও এ ধরনের ভূয়া প্রশ্ন ফাঁস চক্রের সদস্যদের গ্রেফতার করার নিমিত্তে র‌্যাবের অভিযান অব্যাহত আছে বলে জানানো হয় এই এলিট ফোর্স থেকে।

টাঙ্গাইল:

টাঙ্গাইলের সখীপুরে চলতি এইচএসসি পরীক্ষায় প্রশ্নপত্র ফাঁস চক্রের এক সদস্যকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১২ এর সদস্যরা। রবিবার বিকালে সখীপুর উপজেলার কচুয়া গ্রাম থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত রাজু আহমেদ কচুয়া গ্রামের মালদ্বীপ প্রবাসী দুলাল হোসেন ওরফে দুলু মিয়ার ছেলে। এ সময় তার কাছ থেকে একটি মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়। রবিবার রাত ১০টার দিকে র‌্যাব-১২ সিপিসি-৩ এর কোম্পানীর কমান্ডার রবিউল ইসলাম প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এ তথ্য জানান।

কোম্পানী কমান্ডার রবিউল ইসলাম বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলার কচুয়া গ্রামের একটি বসতবাড়ীতে অভিযান চালায় র‌্যাব সদস্যরা। এ সময় তারা রাজু আহমেদকে গ্রেফতার করে এবং প্রশ্নপত্র ফাঁস সংক্রান্ত কাজে ব্যবহৃত মোবাইল ফোন জব্দ করে।

গ্রেফতারকৃতকে জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে সে জানায়, সে তার ব্যবহৃত মোবাইলে হোয়াটসআপ এ্যাপসের মাধ্যমে ছদ্মনাম রাফিও ব্যবহার করে একটি গ্রুপ তৈরি করেছে। এই গ্রুপের সদস্য সংখ্যা প্রায় ১৩০ জন। এতে বেশ কয়েকটি মোবাইল নম্বর ব্যবহার করা হতো। সদস্যরা সাজেশন এবং প্রশ্নপত্র সংগ্রহ করার পরামর্শ দিয়ে পরীক্ষার্থীদের প্রতারণা করে তাদের কাছ থেকে টাকা আদায় করে।

কুমিল্লা:

কুমিল্লায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মেজর মো: আতাউর রহমান এবং এএসপি কল্লোল কুমার দত্ত এর নেতৃত্বে মুরাদনগর এলাকা থেকে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে এইচএসসি পরীক্ষার ভূয়া প্রশ্নপত্র ফাঁসের প্রতারক চক্রের কৃমেল ভৌমিক নামের এক সদস্যকে আটক করেছে র‌্যাব-১১ সদস্যরা।

শনিবার জেলার মরাদনগর থানাধীন ধামগড় মধ্যপাড়া এলাকা থেকে রাত ১টার দিকে প্রশ্নপত্র ফাঁস সংক্রান্ত ব্যবহৃত মোবাইল ফোনসহ র‌্যাব-১১ সিপিসি-২ সদস্যরা তাকে আটক করে।

আটক কৃমেল ভৌমিক ওই গ্রামের কৃষ্ণচন্দ্র ভৌমিকের ছেলে।

র‌্যাব জানায়, বিভিন্ন সামাজিক মাধ্যম ইমো, হোয়াটস্অ্যাপের গ্রুপের মাধ্যমে ভূয়া প্রশ্নপত্র সংগ্রহ করে এইচএসসি পরিক্ষার্থীদের বিতরন করেছিল। এমনকি ম্যাসেঞ্জারের মাধ্যমেও বিভিন্ন জনের সাথে প্রশ্নপত্র ফাঁস সর্ম্পকৃত কথোপকথের তথ্য পাওয়া যায়। এই চক্রের সাথে জড়িত অন্যান্য সদস্যদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনার প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

মাদারীপুর:

গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর থেকে অনুপ বিশ্বাস নামে প্রশ্ন ফাঁসকারী চক্রের এক সদস্যকে আটক করেছে র‌্যাব-৮ সিপিসি-৩ সদস্যরা। রবিবার সন্ধ্যা ৬ টার দিকে তাকে মুকসুদপুর উপজেলার বাটিকামারী এলাকা থেকে আটক করা হয়। সে ওই এলাকার অমল বিশ্বাসের ছেলে।

মাদারীপুর র‌্যাব-৮ এর কোম্পানি কমান্ডার এডি হাসান আলী জানিয়েছেন, আটককৃত অনুপ বিশ্বাসের বিরুদ্ধে ফেসবুক, হোয়াটসঅ্যাপ ও ভাইবার ব্যবহার করে বিভিন্ন গ্রুপের মাধ্যমে এইচএসসি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁসের অভিযোগ রয়েছে।
তিনি আরো জানান, সে প্রশ্ন ফাঁসকারী চক্রের একজন সক্রিয় সদস্য।

দিনাজপুর:

ফেসবুকে ভুয়া প্রশ্ন পত্র ফাঁস চক্রের সঙ্গে জড়িত অভিযোগে এক তরুণকে আটক করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)-১৩ দিনাজপুর ক্যাম্পের একটি দল। রোববার বেলা ১টার দিকে তাকে আটক করা হয়।

আটক তরুণের নাম নির্মল রায়। তিনি জেলার খানসামা উপজেলার টাংগুয়া (বৈরাগীপাড়া) গ্রামের উপনায়ন রায়ের ছেলে।

র‌্যাব দিনাজপুর ক্যাম্পের কোম্পানি কমান্ডার মেজর তালুকদার নাজমুছ সাকিব বলেন, নির্মল বহুদিন ধরে ফেসবুকের মাধ্যমে ভুয়া প্রশ্নপত্র দিয়ে টাকা হাতিয়ে নিচ্ছিলেন। এ-সংক্রান্ত তথ্য-প্রমাণ পাওয়ার পরই নির্মলকে আটক করা হয়েছে। সংশ্লিষ্ট আইনে মামলা দিয়ে নির্মলকে খানসামা থানায় সোপর্দ করা হবে বলে মেজর তালুকদার নাজমুছ সাকিব জানান।

বগুড়া:

বগুড়ায় ভুয়া প্রশ্নফাঁসের চেষ্টার অভিযোগে র‌্যাবের হাতে মাহবুব আলম নামের এক যুবক আটক হয়েছে। চলতি এইচএসসি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র প্রদানের আশ্বাস দিয়ে ফেসবুক গ্রুপে একটি পোস্ট দিয়েছিল। সেখানে এইচএসসি পরীক্ষাসহ সব ধরনের পরীক্ষার প্রশ্নফাঁস করা হয় মর্মে স্ট্যাটাস দেয়। প্রশ্নপত্র পাওয়ার আশায় ইতিমধ্যেই দুই ব্যক্তির কাছ থেকে সে অর্থ হাতিয়ে নিয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে র‌্যাবের কাছে স্বীকার করেছে। সে চলতি এইচএসসি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র প্রদানের আশ্বাস দিয়ে হোয়ার্টস অ্যাপ গ্রুপে একটি পোস্ট দিয়েছিল।

র‌্যাব-১২ বগুড়া ক্যাম্পের একটি দল গোপন সংবাদের ভিক্তিতে শনিবার গভীর রাতে ধুনট উপজেলার বানিয়াগাতী বাজার এলাকা থেকে তাকে আটক করেছে। আটক মাহবুব ওই এলাকার হোসেন আলীর ছেলে। আটকের সময় তার ব্যবহৃত স্মার্ট ফোনটি জব্দ করা হয়। র‌্যাব ১২ ক্যাম্পের কোম্পানি কমান্ডার মেজর এসএম মোর্শেদ হাসান বেলা সাড়ে ১১টায় সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান।

(নিজস্ব প্রতিবেদক, ঘাটাইল.কম)/-