প্রতারণায় স্বর্ণালঙ্কার নিয়ে পালানোর সময় কালিহাতীতে আটক ছদ্মবেশী

টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলা সদরের দক্ষিণ বেতডোবা গ্রামে বুধবার (২২ জানুয়ারি) দুপুরে অভিনব পদ্ধতিতে প্রতারণা করে কোরআন শরীফের ভিতরে স্বর্ণালঙ্কার নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার সময় জনতার হাতে আটক হয়েছে এক ছদ্মবেশী পাগল। আটককৃত প্রতারক রংপুর জেলার পীরগাছা উপজেলার পশ্চিম বামনীকুন্ডা গ্রামের মৃত ফজলুর রহমানের ছেলে মোঃ নিজাম উদ্দিন (৬৫)।

প্রতারণার শিকার দক্ষিণ বেতডোবা গ্রামের গৃহবধূ কামরুন নাহার জানান, বুধবার দুপুরে পাগল বেশি এক লোক বাড়ির গেটে এসে দশটি টাকা চাচ্ছে। পরে আমার ছেলেকে বলছি ঐ পাগলকে তুমি দশটি টাকা দিয়ে স্কুলে চলে যাও। কিন্তু পাগল আমাকে ডেকে বলতেছে আমি তোর হাত দিয়ে টাকা নিতে চেয়েছিলাম তুই ভুল করছিস তোর টাকা নিব না।

পরে কোরআনের অনেক আয়াত শুনিয়ে ভয়-ভীতি দেখিয়ে এক চিমটি মাটি তুলে সেই মাটি খেতে বলে এবং কাউকে বলতে নিষেধ করে। পরে সেই মাটি খেয়ে দেখি মাটি মিষ্টি লাগে, এতে করে আমার বিশ্বাস চলে আসে। তাতে আরও ভয় দেখায় এবং বলে এ ভুলের কারণে জান্নাতে যেতে পারবি না। তার কথা না শুনলে ২১ দিনের ভিতরে আমার স্বামীর এবং ছেলের গলা দিয়ে রক্ত বের হবে বলে আবারও ভয় দেখিয়ে আমার সকল সোনা-গহনা কোরআন শরীফের ভিতরে নিয়ে আজমীর শরীফ যেতে বলে।

গেলে ওইখান থেকে একটি গায়েবি পাথর দিবে সেটি নিয়ে আমল করলে নাকি আমার সকল ভুল-গুনাহ মাফ হয়ে যাবে। না যেতে পারলে তার কাছে দিতে বলে। পরে আমি বিশ্বাস করে সোনার গহনা কোরআন শরীফের ভিতরে দিয়ে কোরআন শরীফ তার কাছে দিয়ে দিই। পরে ঐ লোক বলে আমি কোন দিকে চলে যাব সেটি দেখবি না তাহলে কিন্তু আমাকে পাবি না এবং তোর ক্ষতি হয়ে যাবে।

এই কথা বলে দৌড়ে পালানোর চেষ্টা করে, পরে আমার সন্দেহ হয় এবং আমি চিৎকার করি। পরে আমার চিৎকারে আশেপাশের লোকজন দৌড়ে গিয়ে ওই পাগলকে ধরে পুলিশে দিয়ে দেয়।

এ বিষয়ে কালিহাতী থানার ওসি হাসান আল মামুন আটকের ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, জিজ্ঞাসাবাদ এবং তদন্ত করে পরবর্তীতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

(কালিহাতী সংবাদদাতা, ঘাটাইলডটকম)/-