নিজেদের মধ্যে দেশপ্রেমের স্পৃহা বজায় রাখতে হবে: মির্জাপুরে সেনাবাহিনী প্রধান

টাঙ্গাইলের মির্জাপুর ক্যাডেট কলেজের প্রাক্তন ক্যাডেটদের ১৩তম পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে সেনা প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ ক্যাডেটদের উদ্দেশে বলেছেন, ‘জীবনে উচ্চ লক্ষ্য নির্ধারণ করে ও তা অর্জনে কঠোর পরিশ্রম করতে হবে। তোমাদের মতো মেধাবী নেতৃত্বের জন্য জাতি অপেক্ষা করছে। বড়দের অনুসরণ করে নতুনদের এগিয়ে যেতে হবে। সর্বোপরি তোমাদের প্রতি আমার উপদেশ প্রথমে তোমরা ভালো মানুষ হও। ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি চর্চা করো, নৈতিকতা ধরে রাখো এবং নিজেদের মধ্যে দেশপ্রেমের স্পৃহা বজায় রাখো।’

শুক্রবার (২৪ জানুয়ারি) মির্জাপুর ক্যাডেট কলেজের প্রাক্তন ক্যাডেটদের তিনদিন ব্যাপী ১৩তম পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় দিনে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় সেনা প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ একথা বলেন।

শুক্রবার সকাল এগারোটা ৫মিনিটে সেনাবাহিনীর প্রধান হেলিকপ্টার যোগে ক্যাডেট কলেজের পাশ্ববর্তী স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যাল হেলিপ্যাডে নামেন। সেখান থেকে গাড়ি যোগে তিনি এগারোটা ১০ মিনিটে মির্জাপুর ক্যাডেট কলেজে ফটকে পৌছালে ক্যাডেটরা বাইসাইকেল শোভাযাত্রার মাধ্যমে তাকে অভ্যর্থনা দিয়ে অনুষ্ঠানস্থলে নিয়ে আসেন। সেখানে সাভার সেনানিবাসের জিওসি ৯ পদাতিক ডিভিশনের জিওসি মেজর জেনারেল মো. আকবর হোসেন, কলেজের অধ্যক্ষ বিমান রায় চৌধুরী, মির্জাপুর ক্যাডেট কলেজের এক্স ক্যাডেট এ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি বিগ্রেডিয়ার জেনারেল (অব) সুলতান উদ্দিন ইকবাল ও আগত অতিথিবৃন্দ তাকে স্বাগত জানান।

পুনর্মিলনী অনুষ্ঠান উপলক্ষে প্রাক্তন ক্যাডেটদের উপস্থিতিতে মির্জাপুর ক্যাডেট কলেজ ক্যাম্পাস মুখরিত হয়ে উঠে।

প্রধান অতিথি সেনা প্রধান পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানের উদ্বোধন এবং প্যারেড সালাম গ্রহণ করার পর বেলুন উড়িয়ে মূল অনুষ্ঠানের সুচনা করেন। পরে তিনি খোলা জিপে চড়ে ক্যাডেট ও প্রাক্তন ক্যাডেটদের প্যারেড পরিদর্শন শেষে ক্যাডেট ও প্রাক্তন ক্যাডেটদের উদ্দেশ্যে বক্তৃতা করেন।

এরপর তিনি কলেজের বীরশ্রেষ্ঠ মোস্তফা মিলনায়তনে ক্যাডেটদের বর্ণাঢ্য চিত্র প্রদর্শনী ও বিভিন্ন উদ্ভাবনী পরিদর্শন করেন। প্রধান অতিথি ও প্রাক্তন ক্যাডেটবৃন্দ পুনর্মিলনীর স্মৃতি রক্ষার্থে কলেজের শহীদ মিনার এলাকায় বৃক্ষরোপন করেন।

এসময় সাবেক সেনাপ্রধান জেনারেল এম এ মুবিন, মেজর জেনারেল মোহাম্মদ হুমায়ুন কবির, ডিজিএফআইয়ের প্রধান মেজর জেনারেল মো. সাইফুল আবেদীন, মেজর জেনারেল মো. মোসফেকুর রহমান, বিগ্রেডিয়ার জেনারেল মো. মিজানুর রহমান ও টাঙ্গাইল-২ আসনের সাংসদ তানভীর হাসান ছোট মনির উপস্থিত ছিলেন।

সন্ধ্যার পর সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে সামরিক ও অসামরিক উচ্চপদস্ত কর্মকর্তাগণ, স্থানীয় বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ, প্রাক্তন অধ্যক্ষ, উপাধ্যক্ষ ও অনুষদ সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

ক্রিকেট বোর্ডের সাবেক পরিচালক শফিকুর রহমান মোন্না বলেন, অনুষ্ঠানের মাধ্যমে নতুনেরা কোন দিকে যাবে, কোন পেশা বেছে নিবে তার ইঙ্গিত পাচ্ছে। নবম ব্যাচের প্রাক্তন ক্যাডেট সাংবাদিক জাকারিয়া কাজল বলেন, শিক্ষা জীবনের পুরনো বাড়ি পেয়ে মনটা উচ্ছাসিত হয়েছে। এছাড়া তখনকার বন্ধুদের সঙ্গে দেখা করতে পেরে খুবই আনন্দ লাগছে।

বর্তমান ক্যাডেট অষ্টম শ্রেণির ছাত্র নাহিয়ান বলে, পুনর্মিলনী অনুষ্ঠান নি:সন্দেহে আনন্দের। এক্স এসোসিয়েশনের উদ্যোগে পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে আসা প্রাক্তন ক্যাডেটদের কাছ থেকে অনেক জানার এবং শেখার আছে।

এসএসসি পরীক্ষার্থী ক্যাডেট সিয়াম বলে, বর্তমান এবং প্রাক্তন ক্যাডেটরা একত্র হতে পেরে আমরা নিজেদের গর্ববোধ মনে করছি।

(মির্জাপুর সংবাদদাতা, ঘাটাইলডটকম)/-