নারী থেকে পুরুষে রূপান্তর সিরাজগঞ্জের খাদিজার

সিরাজগঞ্জের তাড়াশে খাদিজা খাতুন (২১) নামের এক কলেজ ছাত্রী  পুরুষে রুপান্তর হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার গভীর রাতে তাড়াশ সদরের সর্দার পাড়ায়।বিষয়টি  ওই এলাকায় ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি হয়েছে, খাদিজাকে দেখার জন্য শতশত উৎসক জনতা বাড়িটিতে ভিড় জমাচ্ছে। এতে কৌতুহল মানষের মাঝে ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

জানা যায়, তাড়াশ সদরে বসবাসরত অবসরপ্রাপ্ত সেনা সৈনিক হাসমত আলীর ৩য় কন্যা খাদিজা খাতুন (সেতু) এসএসসি ও এইচএসসি তে জিপিএ ৫ পেয়ে উর্ত্তীন্ন হওয়ার পর ঢাকাতে একটি প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ে টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে পড়ালেখা করছে। থাকতেন একটি মহিলা হোষ্টেলে।

সরেজমিনে দেখা গেছে, তরুণীর বাড়িতে হাজারো মানুষের ভির। প্রতিবেশীরা গাদাগাদি করে দাঁড়িয়ে আছেন বাড়ির সামনের উঠানে। দূর-দূরান্ত থেকেও দলবেধে উৎসুক জনতা ছুটে আসছেন তাদের বাড়িতে। আগের জীবন এবং বদলে যাওয়া জীবন নিয়ে প্রশ্নের যেন শেষ নেই মানুষের। জনতার ভিড় সামলাতে হিমশিম খেতে হচ্ছে পরিবারকে।

খাদিজা জানান, প্রায় ছয় মাস পূর্বে তার শারীরিক অবস্থার পরিবর্তন হতে থাকে, লজ্জায় কাউকে না বলে বিষয়টি গোপন রাখে। এদিকে সেতু বিষয়টি গোপন রাখলেও ধিরে ধিরে তার শারীরিক ও মানুষিক অবস্থার  পরিবর্তন ও গতিবিধি হোষ্টেলে অবস্থানরত অন্য মেয়েদের সন্দেহ হলে সেতু তার এই বিষয়টি সবাইকে বলে দেয়। পরে সেতু বাড়িতে এসে তার মায়ের কাছে ঘটনাটি বলে। তার মা – বাবা ও অন্য সদস্যদের সাথে আলোচনা করে ঢাকার একটি ক্লিনিকে ডাক্তারকে দেখান।

এ বিষয়ে খাদিজার ভগ্নীপতি নাসির উদ্দিন বলেন, ঢাকায় ডাক্তারকে দেখানোর পরে খাদিজার পুরুষ হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এদিকে নারী থেকে পুরুষে রুপান্তর হলে খাদিজা খুশি হয়ে নিজের নাম রেখেছেন সাহুল সিদ্দিক।

(সিরাজগঞ্জেরকণ্ঠ, ঘাটাইল.কম)/-