নানা সমস্যায় জর্জরিত দেলদুয়ার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স

নানা সমস্যা ও সীমাবদ্ধতায় জর্জরিত টাঙ্গাইলের দেলদুয়ার উপজেলা হাসপাতালের চিকিৎসা ব্যবস্থা। পর্যাপ্ত চিকিৎসা সেবা না পাওয়ায় অবহেলিত এই উপজেলার সাধারণ মানুষদের দুর্ভোগের শেষ নেই।

৩১ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালটি ৫০ শয্যায় উন্নীত করণের দাবি থাকলেও তা বাস্তবায়ন হচ্ছে না। ফলে পর্যাপ্ত চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে দরিদ্র এ জনপদের মানুষ। এ হাসপাতালে গাইনী চিকিৎসা ছাড়া অন্য কোন চিকিৎসা সেবা না থাকায় রোগীদের ছুটতে হচ্ছে বিভিন্ন ক্লিনিক ও জেলা সদরের হাসপাতালে।

জানা যায়, টাঙ্গাইল জেলার ১২টি উপজেলার মধ্যে সবচেয়ে অবহেলিত দেলদুয়ার উপজেলা। এ উপজেলায় প্রায় পৌনে দুই লাখ মানুষের বসবাস। এই উপজেলায় মোট ২৬টি কমিউনিটি ক্লিনিক ও তিনটি সাব সেন্টারসহ একটি ৩১ শয্যা বিশিষ্ট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স রয়েছে। এ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সটি এতো বড় জনগোষ্ঠিকে চিকিৎসা সেবা দিতে গিয়ে ব্যাপক হিমশিম খাচ্ছে।

যে পরিমান সুযোগ-সুবিধা, চিকিৎসা সেবা ও জনবল থাকার কথা তার চেয়ে অধিক রোগী থাকায় চিকিৎসা সেবা প্রতিনিয়ত ব্যাহত হচ্ছে। দেলদুয়ারবাসীর দীর্ঘদিনের দাবী এ হাসপাতালটি ৫০ শয্যায় উন্নীতকরণ করা হোক। কিন্তু তা আজো বাস্তবায়ন হবে কিনা তা জানেন না উপজেলার মানুষ।

সরেজমিন ঘুরে দেখা যায়, এ হাসপাতালটিতে জরুরী বিভাগের মাধ্যমে সাধারণ চিকিৎসা প্রদান করা হলেও শুধুমাত্র গাইনী, যক্ষ্মা ও কুষ্ঠ রোগের চিকিৎসা রয়েছে। অর্থোপেডিক, নাক-কান-গলা, শিশু ও চক্ষু রোগের কোন চিকিৎসা ব্যবস্থা নেই। ফলে এসব রোগীদের অধিক খরচে জেলা সদর হাসপাতাল অথবা বেসরকারি ক্লিনিকে গিয়ে চিকিৎসা নিতে হচ্ছে।

আবার অনেক সাধারণ মানুষ টাকার অভাবে জেলা শহরের গিয়ে ভালো চিকিৎসা সেবা পাচ্ছে না। ফলে প্রতিনিয়ত চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে সাধারণ মানুষ।

হাসপাতালে আসা রোগী ও স্বজনরা বলেন, আমাদের এই দেলদুয়ার উপজেলায় হাসপাতালটি ৩১ শয্যার। যদি এ হাসপাতালটি ৫০ শয্যায় করা যায় তাহলে হয়তো আমরা আমাদের কাঙ্খিত চিকিৎসা সেবা পেতাম। এখানে যেসকল ডাক্তার রয়েছে তারা হাসপাতালে অবস্থান করে না। যদি এখানে ঠিকমত ডাক্তার অবস্থান করতো তাহলে অবশ্যই আমাদের জন্য ভালো হতো। আমরা সঠিক চিকিৎসা সেবা পেতাম। আর ডাক্তার না থাকার কারনে আমাদের জেলা শহরের হাসপাতাল কিংবা বিভিন্ন ক্লিনিকে যেতে হচ্ছে।

এলাকাবাসী বলেন, আমরা সব সময় অবহেলিত। আমাদের উপজেলায় হাসপাতাল থাকলেও পর্যাপ্ত ডাক্তার না থাকায় সঠিক চিকিৎসা সেবা পাচ্ছি না। একটি উপজেলায় সেকল ডাক্তার থাকার কথা তা এ হাসপাতালে নেই। অনেক জটিল রোগের চিকিৎসা আমরা এখানে পাই না। আমাদের জেলা শহরে যেতে হয়।

এ হাসপাতালে সিজার করার কোন ব্যবস্থা নাই। প্রথমে এ হাসপাতালে ভর্তি করালে পরবর্তীতে জেলা শহর হাসপাতাল কিংবা ক্লিনিকে নিয়ে যেতে হয়। এভাবে আর কতোদিন আমরা চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত হবো।

দেলদুয়ার উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. প্রবীর কুমার সরকার বলেন, আমরা সব সময় এ এলাকার মানুষদের সুচিকিৎসা সেবা প্রদান করার চেষ্ঠা করে যাচ্ছি। আমাদের যতটুকু সম্ভব তার চেয়ে বেশি সেবা প্রদান করছি। আমাদের এই হাসপাতালটি ৩১ শয্যার। যদি এই হাসপাতালটি ৫০ শয্যায় রূপান্তরিত করা যেত তাহলে সকল প্রকার চিকিৎসক ও জনবল পেতাম তাহলে এ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সটি আরো ভালো ভাবে সাধারণ মানুষের চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করতে পারতো।

(মাসুদ রানা, ঘাটাইল ডট কম)/-

Print Friendly, PDF & Email