নতুন ৮ জন সহ টাঙ্গাইলে করোনা আক্রান্ত ৯৬

টাঙ্গাইলে গত ২৪ ঘন্টায় শুক্রবার (২২ মে) পর্যন্ত নতুন করে ৮ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। আক্রান্তের মধ্যে দেলদুয়ারের দেউলী ইউনিয়নের বাবুপর ও টেউরিয়া গ্রামের ২ জন, মির্জাপুরে সদরে ও উয়ার্সী ইউনিয়নের মাশদাই গ্রামে ২ জন, টাঙ্গাইল শহরের আকুরটুকুর পাড়ায় ১ জন, গোপালপুরে ১ জন, ভুঞাপুরের বামনহাটায় ১ জন ও ঘাটাইল উপজেলার ডাবড় কাশতলা গ্রামের ১ জন।

টাঙ্গাইল জেলায় মোট এ পর্যন্ত ৯৬ জনের দেহে করোনার ভাইরাসে শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে ভূঞাপুরে ৬, সখীপুরে ৬, নাগরপুরে ৪, মির্জাপুরে ২, সদরে ১ ও মধুপুরে ১ জনসহ মোট ২০ জন সুস্থ হয়েছে।

আর ঘাটাইলে ২, মির্জাপুরে ১ ও ধনবাড়ীতে ১ জন করোনা রোগীর মৃত্যু হয়েছে।

এদিকে গত (৭ এপ্রিল) থেকে টাঙ্গাইল জেলা লকডাউন ঘোষনা করা হয়। শুক্রবার (২২ মে) পর্যন্ত লকডাউনের ৪৫তম দিন অতিবাহিত হয়েছে।

এছাড়া করোনা ভাইরাসের পরীক্ষার জন্য টাঙ্গাইলের বিভিন্ন উপজেলা থেকে ৪২৬৩ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। শুক্রবার (২২ মে) নতুন করে কোন নমুনা ঢাকায় পাঠানো হয়নি। গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে ৮ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছে। হোম কোয়ারেন্টাইনের আওতায় আনা হয়েছে ৫১ জনকে। ছাড়পত্র দেয়া হয়েছে ৪১ জনকে। এর মধ্যে বৃহস্পতিবার (২১ মে) ১২৩ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছিল।

সোমবার (১৮ মে) পাঠানো ১০১ টি স্যাম্পলের রেজাল্ট আজ শুক্রবার (২২ মে) পাওয়া গেছে। এর মধ্যে ৮ জনের করোনার রেজাল্ট পজেটিভ এসেছে। এখন পর্যন্ত ৩৮৬০ জনের রিপোর্ট হাতে পেয়েছে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ। এদের মধ্যে ৯৬ জনের ফলাফল পজেটিভ এসেছে। বাকিগুলোর ফলাফল নেগেটিভ এসেছে।

বর্তমানে জেলায় মোট ৯৬ জন ব্যক্তি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। আক্রান্তদের মধ্যে ৮ জনকে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের ৫০ বেডের করোনা ডেডিকেডেট ইউনিটে ভর্তি করা হয়েছে। আক্রান্ত বাকি ৬৪ জন ঢাকা, ময়মনসিংহ হাসপাতালে ও বাসায় চিকিৎসাধীন রয়েছে।

এ ব্যাপারে টাঙ্গাইলের সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ ওয়াহিদুজ্জামান বলেন, টাঙ্গাইল জেলায় এ পর্যন্ত ৯৬ জন করোনা ভাইরাস রোগী সনাক্ত হয়েছে। এদের মধ্যে মির্জাপুরে ১৮, দেলদুয়ারে ১৬, নাগরপুরে ১০, ভূঞাপুরে ৯, সখীপুরে ৭, গোপালপুরে ৮, ধনবাড়ীতে ৬, টাঙ্গাইল সদরে ৬, কালিহাতীতে ৫, মধুপুরে ৫, ঘাটাইলে ৫ ও বাসাইলে ১ জন রয়েছে। এদের মধ্যে ভূঞাপুরে ৬, সখিপুরে ৬, নাগরপুরে ৪, মির্জাপুরে ২, সদরে ১ ও মধুপুরে ১ জনসহ মোট ২০ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন।

এছাড়া জেলার ঘাটাইলে মহিউদ্দিন, আব্দুল মান্নান খান, মির্জাপুরে রেনু বেগম ও ধনবাড়ীতে আব্দুল করিম ভুইয়া নামে ৪ জন মারা গিয়েছে।

জেলায় এখন পর্যন্ত ৯২৮৫ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনের ও হাসপাতালে কোয়ারেন্টাইনের আওতায় আনা হয়েছিল। এদের মধ্যে ৭ হাজার ৪৩২ জনকে কোয়ারেন্টাইন থেকে ছাড়পত্র নিয়েছে। বর্তমানে কোয়ারেন্টাইনে রয়েছে ১ হাজার ৮৫৩ জন। করোনায় আক্রান্ত হয়ে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের ৫০ বেডের করোনা ডেডিকেডেট ইউনিটে ভর্তি রয়েছে ৮ জন।

উল্লেখ্য, গত (১ মার্চ) থেকে রবিবার (১৭ মে) পর্যন্ত বিদেশে থেকে জেলায় এসেছে ৫ হাজার ৭০৫ জন। কোভিড-১৯ চিকিৎসায় প্রস্তুত রয়েছে জেলার সরকারী হাসপাতালের ৫০টি বেড, উপজেলা পর্যায়ে আইসোলেশন বেড রয়েছে ৫৮টি। ডাক্তার রয়েছে ২৪২ জন, নার্স রয়েছে ৪১৯ জন, ব্যক্তিগত সুরক্ষা সমগ্রী পিপিই মজুদ রয়েছে ৬ হাজার ৭৩৮টি ও করোনা আক্রান্ত রোগী আনা নেয়া করার জন্য এ্যাম্বুুলেন্স রয়েছে ২টি। এছাড়া জেলায় এখন পর্যন্ত ১ লাখ ৭১ হাজার পরিবারের মধ্যে ২০২০ মে.টন চাল ও ৫২ হাজার ৭৫২টি পরিবারের মধ্যে নগদ ১ কোটি ৫ লাখ ৫০ হাজার ৩৬৭ টাকা ও শিশু খাদ্য বাবদ ১৫ হাজার ৯২৫ পরিবারকে ২৭ লাখ ৬০ হাজার ১৮৫ টাকা প্রদান করেছে জেলা প্রশাসন।

(টাঙ্গাইল সংবাদদাতা, ঘাটাইল ডট কম)/-