দেশী মুরগি চাষের উদ্যোক্তা ঘাটাইলের রায়হান পেলেন জনপ্রশাসন পদক

জাতীয় পাবলিক সার্ভিস দিবস উদযাপন ও জনপ্রশাসন পদক প্রদান অনুষ্ঠান ২০১৯ এর জাতীয় পর্যায়ে জনপ্রশাসন পদক পেয়েছেন টাঙ্গাইল জেলার ঘাটাইল উপজেলার কৃতি সন্তান জনাব ডাঃ মোঃ রায়হান (PAA)। তিনি ভেটেনারি সার্জন হিসেবে বগুরার শেরপুরে কর্মরত রয়েছেন। গত ২৩ জুলাই মঙ্গলবার ঢাকার বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ খান ভেটেরিনারি সার্জন ডাঃ মোঃ রায়হানের হাতে গোল্ড মেডেল, ক্রেষ্ট,সনদ ও নগদ চেক (প্রধানমন্ত্রী সাক্ষরিত) হাতে তুলে দেন।

জানা যায়, ‘স্বপ্ন ছোয়ার সিড়ি’ শেরপুর উপজেলার বাণিজ্যিক ভিত্তিক দেশী মুরগি চাষের প্রধান উদ্যোক্তা ভেটেরিনারি সার্জন ডাঃ মোঃ রায়হানের মাধ্যমে ২০১৫ সালে স্বল্প আকারে বাণিজ্যিক ভিত্তিক দেশী মুরগীর খামার শুরু করলেও আজ অনেক বড় বিস্তার লাভ করে। ইতিমধ্যে বিভিন্ন জেলার বেকার জনগোষ্ঠী এবং নারীরা বাণিজ্যিক ভিত্তিক দেশী মুরগি চাষ পালনে “স্বপ্ন ছোয়াঁর সিঁড়ি’র” সম্পৃক্ত হয়ে আত্মকর্মসংস্থানের পথ খুঁজে পেয়েছে। বিভিন্ন জেলার বহু পরিবার আজ কেবল বাণিজ্যিক ভিত্তিক দেশী মুরগীর পালন করে স্বাবলম্বিতার মুখ দেখেছেন।

সকল স্তরের শতশত মানুষের প্রাকৃতিক বিপর্যয় উপেক্ষা করে ‘স্বপ্ন ছোয়ার সিড়ি’ বাণিজ্যিক ভিত্তিক দেশি মুরগীর (অরগানিক) খামারের কার্যক্রমটি সারাদেশব্যাপি সম্প্রসারণের ভুয়ষি প্রশংসা করেন। ডাঃ রায়হানের এই উদ্যোগে সারাদেশের বেকার যুবকদের আত্মকর্মসংস্থানের সৃষ্টি হয়েছে।

সংগঠনটি বেকার যুবকদের কর্মসংস্থান সৃষ্টি, নারীর ক্ষমতায়ন, পুষ্টির নিরাপত্তা, আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে এবং নিরাপদ প্রাণি আমিষের (এন্টিবায়োটিক ও স্টেরয়ড মুক্ত) নিশ্চয়তার জন্য নিরলস কাজ করে যাচ্চে। ফলে দেশে বাণিজ্যিক ভিত্তিক দেশী মুরগি চাষ একটি সম্ভাবনাময় ও লাভজনক হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। সেই সাথে উপযুক্ত প্রযুক্তির উদ্ভাবন এবং বাণিজ্যিক ভিত্তিক দেশী মুরগি চাষকে আজ কর্মসংস্থান ও গ্রামীণ দারিদ্র্য বিমোচনের একটি অন্যতম হাতিয়ারে পরিণত করেছে।

ডাঃ মোঃ রায়হান ঘাটাইলডটকমকে জানান, বাণিজ্যিক ভিত্তিক দেশী মুরগী চাষে শেরপুর উপজেলায় প্রায় ৫’শ বেকার যুবক, যুব মহিলাকে সম্পৃক্ত করে আত্মকর্মসংস্থান সৃষ্টির মাধ্যমে দেশের গ্রামীণ জনগোষ্ঠীর দারিদ্র্য বিমোচনের প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।

তিনি জানান, বিগত চার বছরের মধ্যে ‘স্বপ্ন ছোয়াঁর সিঁড়ি’র দেশী মুরগী বাণিজ্যিক চাষের কারিগরি প্রশিক্ষণ, স্বল্প বিনিয়োগে গ্রামীণ মানুষের আর্থিক সাবলম্বিতা অর্জন, প্রাণিসম্পদের সকল সেবা প্রাপ্তি সহজীকরণ, নিরক্ষরদের স্বাক্ষরতা জ্ঞান প্রাদাণের জন্য পাঠশালা, ৯টি হ্যাচারী, নিরাপদ মুরগীর খাবার তৈরীর কারখানা, বায়োগ্যাস প্লান্ট তৈরী করা হয়েছে।

তিনি ঘাটাইলডটকমকে বলেন, দেশের বিভিন্ন জেলায় এই পাঠশালা স্থাপনের কার্যক্রম চলমান আছে, যা বাস্তবায়ন হলে বেসরকারি পর্যায়ে প্রাণিসম্পদের ব্যাপক উন্নয়ন ও কর্মসংস্থান সৃষ্টি হবে।

ডাঃ মোঃ রায়হানের নিজ উদ্যোগে এ সকল কার্যক্রম করে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়র অবদান রাখায় জাতীয় পার্যায়ে জনপ্রশাসন পদক (ব্যাক্তিগত শ্রেনী) ২০১৯ লাভ করেন। গত ২৩ জুলাই মঙ্গলবার বিকাল ৩টায় রাজধানী ঢাকার বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ খান ভেটেরিনারি সার্জন ডাঃ মোঃ রায়হানের হাতে গোল্ড মেডেল, ক্রেষ্ট,সনদ ও নগদ চেক (প্রধানমন্ত্রী সাক্ষরিত) হাতে তুলে দেন।

(নিজস্ব প্রতিবেদক, ঘাটাইলডটকম)/-