টাঙ্গাইল জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট প্রত্যাহারের দাবিতে আইনজীবীদের আদালত বর্জন

টাঙ্গাইলের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট রূপম কান্তি দাসের অশোভন আচরণের প্রতিবাদে তাঁর আদালত স্থায়ীভাবে বর্জন করেছেন জেলা অ্যাডভোকেট বার সমিতি। অশোভন আচরণের প্রতিবাদে মঙ্গলবার (১০ এপ্রিল) বার সমিতির বিশেষ বর্ধিত সভায় সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট রূপম কান্তি দাসের সকল বিচারিক আদালত স্থায়ীভাবে বর্জনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয় বলে নিশ্চিত করেছেন, জেলা অ্যাডভোকেট বার সমিতির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট শামস উদ্দিন।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার সকাল ১১টার দিকে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কড়া পুলিশি নিরাপত্তা বেষ্ঠনীর মধ্য দিয়ে নাগরপুর আমলী আদালতের এজলাসে ওঠেন। এ সময় আইনজীবীরা তাঁর সকল বিচারিক আদালত স্থায়ীভাবে বর্জনের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দিয়ে বেড়িয়ে যান। পরে দুপুরে টাঙ্গাইল অ্যাডভোকেট বার সমিতির সম্মেলন কক্ষে সভাপতি অ্যাডভোকেট ফারুক আহাম্মেদের সভাপতিত্বে বিশেষ বর্ধিত সভায় সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট রূপম কান্তি দাসের অশোভন আচরণের প্রতিবাদে তাঁর সকল বিচারিক আদালত স্থায়ী বর্জনের উল্লেখ করে তাঁকে টাঙ্গাইল থেকে প্রত্যাহরে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য রেজুলেশন করা হয়।

এর আগে গত সোমবার (৯ এপ্রিল) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট নাগরপুর আমলী আদালতে যৌতুক নিরোধ আইনের একটি মামলায় অভিযোগকারীর স্বামী ও শ্বশুর-শাশুড়ি আইনজীবীদের মাধ্যমে আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিনের প্রার্থণা করেন। শুনানি শেষে বিচারক রূপম কান্তি দাস অভিযুক্ত স্বামীকে জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন এবং অপর দুই আসামিকে সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যানের জিম্মায় শর্তযুক্ত জামিনের আদেশ দেন। আইনজীবীরা এই শর্ত পরিবর্তন করার আবেদন করলে বিচারক তাদের ওপর ক্ষেপে যান। এ নিয়ে বিচারকের সাথে আইনজীবীদের যুক্তিতর্কের একপর্যায়ে বিচারক বৃদ্ধাঙ্গুল উঁচিয়ে আইনজীবীদের হুমকি দেন। এ অবস্থায় আইনজীবীরা ক্ষিপ্ত হয়ে তাৎক্ষণিকভাবে তার আদালত বর্জন করে বাইরে বেরিয়ে আসেন। পরে তারা বার ভবনে মিলিত হয়ে ওই আদালত বর্জন অব্যাহত রাখার ঘোষণা দেন।

এ বিষয়ে টাঙ্গাইল জেলা অ্যাডভোকেট বার সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট ফারুক আহাম্মেদ জানান, বারের বিশেষ বর্ধিত সভায় সংশ্লিষ্ট বিচারকের ‘অশোভন আচরণ’- এর বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনান্তে তাঁর সকল বিচারিক আদালত বর্জন সহ অবিলম্বে তাকে প্রত্যাহারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের সিদ্ধান্ত হয়েছে। বিষয়টি চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটকে লিখিতভাবে অবহিত করা হয়েছে।

(দৃষ্টি, ঘাটাইল.কম)/-