টাঙ্গাইলে শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগ

টাঙ্গাইলে ১০ বছরের এক শিশুর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শান্তার পরিবারের অভিযোগ তাকে ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ ৪ জনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে।

বৃহস্পতিবার (১০ সেপ্টেম্বর) সকালে নিহতের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

বুধবার রাতে টাঙ্গাইল সদর উপজেলার চৌধুরী মাল মিরপুর মধ্যপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। শিশু শান্তা ওই গ্রামের সাদেক আলীর মেয়ে।

শান্তার চাচাতো ভাই রফিক মিয়া বলেন, বুধবার দুপুরের পর থেকে শান্তাকে কোথায় খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিলো না। সন্ধ্যার আগে বাড়ির কাছে কচু ক্ষেতে শান্তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। তার অভিযোগ, তার বোনকে ধর্ষণের পর হত্যা করে সেখানে ফেলে রাখা হয়েছে।

নিহতের ভগ্নিপতি আজিজুল হক বাবু বলেন, শান্তাকে কোথাও খুঁজে না পাওয়ায় এলাকায় মাইকিং করা হয়। পরে বাড়ির পাশের কচু ক্ষেত থেকে শান্তার লাশ উদ্ধার করা হয়। খবর পেয়ে পুলিশ এসে তাৎক্ষণিক চারজনকে থানায় নিয়ে যায়।

শান্তার বাবা সাদেক আলী বলেন, আমার মেয়েকে ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে। আমি এ ঘটনায় জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করছি। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

এ ব্যাপারে টাঙ্গাইল সদর থানার (ওসি) মীর মোশারফ হোসেন জানান, নিহতের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৪ জনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। ময়নাতদন্তের রির্পোট পাওয়ার পর এটি ধর্ষণের পর হত্যা নাকি অন্য কিছু তা জানা যাবে।

(টাঙ্গাইল সংবাদদাতা, ঘাটাইল ডট কম)/-