টাঙ্গাইলে ফেসবুক স্ট্যাটাসে ছেলে ফিরে পেল মাকে

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক মিলিয়ে দিল ছেলের সাথে মাকে। হারিয়ে যাওয়ার দুই মাস পরে টাঙ্গাইলের পুলিশের ফেসবুক পোষ্টের মাধ্যমে মানসিক প্রতিবন্ধি মাকে খুজে পায় ছেলে। আজ বুধবার (১২ জুন) দুপুরে পাবনার ফরিদপুরের রহিম ব্যাপারীর স্ত্রী রোকেয়াকে তার ছেলের কাছে হস্তান্তর করে বঙ্গবন্ধু পূর্বপার থানা পুলিশ।

জানা যায়, গত শুক্রবার ঢাকা-টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু মহাসড়কের সেতু পূর্বপার গোল চত্ত্বরে বাসের ধাক্কায় মানসিক প্রতিবন্ধী এক মহিলা আহত হলে তাকে উদ্ধার করে ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে পুলিশ। সেখানে তাকে চিকিৎসা দেয়া হয়।

গতকাল মঙ্গলবার মহিলার চিকিৎসা শেষে কোন ঠিকানা না পাওয়ায় বিভিন্ন থানায় বেতারের মাধ্যমে এবং ফেসবুকসহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মহিলার ছবি ছড়িয়ে দিয়ে সন্ধান দেওয়ার অনুরোধ জানায় পুলিশ।

মঙ্গলবার আহত মানসিক প্রতিবন্ধি মহিলাটির ছেলে শফিকুল ইসলাম শফু ফেসবুকে মায়ের ছবি দেখে মাকে চিনতে পেরে পুলিশের সাথে সাথে যোগাযোগ করে।

এসময় তিনি তার মায়ের নাম রোকেয়া (৪৭), বাবার নাম রহিম ব্যাপারী ও ঠিকানা পাবনার ফরিদপুর বলে পুলিশকে জানায়।

পরে পুলিশ ছেলের দেওয়া তথ্য নানা ভাবে যাচাই-বাছাই শেষে নিশ্চিত হয়ে ছেলের কাছে তুলে দেয়।

আহত রোকেয়ার ছেলে বলেন, গত দুই মাস যাবৎ মায়ের কোন খোজ পাচ্ছিলাম না। এ ব্যাপারে পুলিশের কাছে কোন লিখিত কাগজ না দিলেও তাদের জানিয়ে রাখি। মঙ্গলবার ফেসবুকে ছবি দেখে মাকে চিনতে পেরে এখানে এসে মাকে নিয়ে যাচ্ছি।

বঙ্গবন্ধুপূর্বপার থানার উপ-পরিদর্শক মেরাজ বলেন, মানসিক প্রতিবন্ধি মহিলাটি দূর্ঘটনার শিকার হওয়ার পর আমরা তাকে উদ্ধার করে চিকিৎসার ব্যবস্থা করি। তিনি সুস্থ হলেও নাম পরিচয় ঠিকানা কোন কিছুই বলতে পারছিলেন না। তাই আমরা তাকে তার পরিবারের কাছে পৌছে দিতে দেশের বিভিন্ন থানায় রেডিও বার্তা পাঠাই।

পাশাপাশি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে তার পরিবারের সন্ধান চেয়ে ছবিসহ একটি পোষ্ট করা হয়। সেই পোষ্ট দেখে তার ছেলে মাকে সনাক্ত করে। আমরা সকল বিষয় খোঁজ খবর নিয়ে ছেলের কাছে মাকে তুলে দেই।

(টাংগাইল সংবাদদাতা, ঘাটাইলডটকম)/-

356total visits,1visits today