টাঙ্গাইলে ছেলে ধরা সন্দেহে পৃথকস্থানে ৩ যুবককে গণধোলাই

টাঙ্গাইলে ছেলে ধরা সন্দেহে পৃথকস্থানে তিন যুবককে গণধোলাই দিয়ে আজ রোববার (২১ জুলাই) পুলিশে সোপর্দ করেছে জনতা। পুলিশ তাদেরকে চিকিৎসার জন্য টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেছে। ঘটনাগুলো ঘটেছে টাঙ্গাইল সদর উপজেলার গালা ইউনিয়নের কান্দিলা বাজারে, টাঙ্গাইল পৌরসভার শান্তিকুঞ্জ মোড়ে এবং কালিহাতী উপজেলার পালিমা বাসস্ট্যান্ড এলাকায়।

টাঙ্গাইল সদর উপজেলার গালা ইউপি সদস্য মো. মজনু মিয়া জানান, রোববার সকালে তিনি জানতে পারেন কান্দিলা বাজারে ছেলে ধরা সন্দেহে আকাশ নামে একজনকে মারধর করা হচ্ছে। তাৎক্ষনিকভাবে বাজারে গিয়ে দেখতে পান ওই লোকটাকে ঘিরে অনেক মানুষ দাঁড়িয়ে আছে। পরে পুলিশে জানানোর পর তারা এসে তাকে উদ্ধার করে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে।

আকাশ গাজিপুর জেলার জয়দেবপুর উপজেলার মৃত আব্দুর রহমানের ছেলে।

টাঙ্গাইল সদর ফাঁড়ির পরিদর্শক মো. মোশারফ হোসেন জানান, ছেলে ধরা সন্দেহে গণধোলাইর শিকার আকাশ খুবই অসুস্থ, কথা বলতে পারছে না। তিনি ছেলে ধরা কিনা এখনই তা বলা যাবে না।

অপরদিকে, টাঙ্গাইল পৌরসভার শান্তিকুঞ্জমোড়ে এক যুবককে ছেলে ধরা সন্দেহে স্থানীয়রা গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে। পুলিশ তাকে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেছে। তার নাম-পরিচয় জানা যায়নি।

টাঙ্গাইল মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক (ইন্টিলিজেন্স অ্যান্ড কমিউনিটি পুলিশিং) মো. সালাউদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এদিকে, কালিহাতী উপজেলার পালিমা বাসস্ট্যান্ড এলাকায় ছেলে ধরা সন্দেহে এক যুবককে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে স্থানীয় জনতা। পুলিশ তাকে প্রথমে কালিহাতী উপজেলা স্বাস্থ কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। খবর পেয়ে স্থানীয় শ’ শ’ জনতা ছেলে ধরা’র শাস্তির দাবিতে হাসপাতাল এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল করে। পরে অতিরিক্ত পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

এ বিষয়ে কালিহাতী থানার এসআই ফারুক জানান, ছেলে ধরা সন্দেহে গণপিটুনির শিকার যুবককে কাইলহাতী উপজেলা স্বাস্থ কমপ্লেক্স থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য পুলিশি প্রহরায় টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে নেয়া হয়েছে।

টাঙ্গাইল জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে আইন হাতে তুলে নিতে নিষেধ করা হয়েছে। কারো আচরণ সন্দেহজনক হলে পুলিশে জানানোর অনুরোধ করা হয়েছে। এ বিষয়ে জেলা পুলিশের তরফে মাইকিং করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

()