টাঙ্গাইলে করোনায় মৃত্যু ৬৩, সুস্থ ৩৫২০

টাঙ্গাইলে গত ২৪ ঘন্টায় বুধবার (১৩ জানুয়ারি) নতুন করে ৪ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। এখন পর্যন্ত জেলায় মোট ৩৭৮৮ জনের দেহে করোনার ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এদের মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ৩৫২০ জন। সুস্থতার হার ৯২.৯২ ভাগ। আর টাঙ্গাইল সদরে ২৮, ঘাটাইলে ৮, মির্জাপুরে ৬, দেলদুয়ার ৪, ধনবাড়ীতে ৩, কালিহাতীতে ৩, গোপালপুরে ২, ভুঞাপুরে ২, সখীপুরে ২, বাসাইলে ২, মধুপুরে ২ ও নাগরপুরে ১ জনসহ মোট ৬৩ জন করোনা রোগীর মৃত্যু হয়েছে। মৃত্যুর হার ১.৬৬ ভাগ।

নতুন আক্রান্তদের মধ্যে টাঙ্গাইল সদরে ৩ ও মির্জাপুরে ১ জন রয়েছে। গত ৮ এপ্রিল জেলায় প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয়। জেলায় এপ্রিল মাসে ২৪ জন, মে মাসে ১৪১ জন, জুন মাসে ৪৪৭ জন, জুলাই মাসে ১০২৬ জন , আগস্ট মাসে ৯৬৪, সেপ্টেম্বর মাসে ৫২৯, অক্টোবর মাসে ১৫২, নভেম্বর মাসে ২০৫, ডিসেম্বরে ২১৮ এবং এখন পর্যন্ত (১৩ জানুয়ারি) ৭৫ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।

মাস ভিত্তিক করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা আবার বাড়ছে। এখন পর্যন্ত আক্রান্তদের মধ্যে কোন রোগী টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের ৫০ বেডের করোনা ডেডিকেডেট ইউনিটে ভর্তি নেই।

এদিকে করোনা ভাইরাসের পরীক্ষার জন্য টাঙ্গাইলের বিভিন্ন উপজেলা থেকে ২৫ হাজার ২৪১ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে ৬৭ জনের নমুনা পাঠানো হয়েছে। নতুন করে ১০ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনের আওতায় আনা হয়েছে আর ছাড়পত্র দেয়া হয়েছে ৩৩ জনকে। এখন পর্যন্ত প্রেরিত সকল নামুনার রেজাল্ট এসেছে। বর্তমানে জেলায় মোট ৩৭৮৮ জন ব্যক্তি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।

এ ব্যাপারে টাঙ্গাইলের সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ ওয়াহিদুজ্জামান বলেন, টাঙ্গাইল জেলায় এ পর্যন্ত ৩৭৮৮ জন করোনা ভাইরাস রোগী সনাক্ত হয়েছে। এদের মধ্যে টাঙ্গাইল সদরে ১৩৮৫, মির্জাপুরে ৫৮০, কালিহাতীতে ২৫৪, মধুপুরে ২৪২, ঘাটাইলে ২৪১, সখীপুরে ২৩১, ভূঞাপুরে ১৮৯, ধনবাড়ীতে ১৭০, গোপালপুরে ১৫৭, দেলদুয়ারে ১৪২, নাগরপুরে ১০২ ও বাসাইলে ৯৫ জন রয়েছে। আক্রান্তদের মধ্যে কোন রোগী টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের ৫০ বেডের করোনা ডেডিকেডেট ইউনিটে ভর্তি নেই। আক্রান্তদের মধ্যে ৩৫২০ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছে। এরা হলেন- টাঙ্গাইল সদরে ১২৭৮, মির্জাপুরে ৫৬৩, কালিহাতীতে ২৪৮, ঘাটাইলে ২৩০, মধুপুরে ২৩০, সখীপুরে ২২৬, ভূঞাপুরে ১৭৭, ধনবাড়ীতে ১৬২, গোপালপুরে ১৪০, নাগরপুরে ৯৮ দেলদুয়ারে, ৮৫ ও বাসাইলে ৮৩ জন।

এখন পর্যন্ত ২৪ হাজার ৭৮১ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনের ও হাসপাতালে কোয়ারেন্টাইনের আওতায় আনা হয়েছিল। এদের মধ্যে ২৪ হাজার ১৭১ জনকে কোয়ারেন্টাইন থেকে ছাড়পত্র নিয়েছে। বর্তমানে কোয়ারেন্টাইনে রয়েছে ৬১০ জন। এছাড়া জেলায় করোনা ভাইরাসে এ পর্যন্ত ৬৩ জন মারা গিয়েছে।

(স্টাফ রিপোর্টার, ঘাটাইল ডট কম)/-

Print Friendly, PDF & Email