চাঁদা না পেয়ে মির্জাপুরে গৃহবধূর ওপর সন্ত্রাসী হামলা

চাহিদামতো চাঁদা না পেয়ে সন্ত্রাসী বাহিনী এক গৃহবধূর ওপর হামলা চালিয়েছে। ঘটনার শিকার গৃহবধূর নাম আছমা বেগম (৩৪)। তাকে আশংকাজনক অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনার পর পুলিশ অভিযান চালিয়ে এক চাঁদাবাজ ও সন্ত্রাসীকে গ্রেফতার করেছে। টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার ১০ গোড়াই ইউনিয়নের রাজাবাড়ি (উত্তরপাড়া) গ্রামে এ অমানবিক ঘটনা ঘটেছে।

জানা গেছে, গৃহবধুর স্বামীর নাম আব্দুল লতিফ মিয়া। গোড়াই ইউনিয়নের রাজাবাড়ি (উত্তরপাড়া) গ্রামে তারা বাস করেন। রাজাবাড়ি (উত্তরপাড়া) গ্রামের আজগর আলীর বখাটে ছেলে তুষার(২২), সাহেব আলীর ছেলে আজগর আলী ও রশিদ মিয়া, আজগর আলীর ছেলে মোশারফসহ তাদের সন্ত্রাসী বাহিনী বাড়ির ওপর দিয়ে বৈদ্যুতিক লাইন নির্মাণকে কেন্দ্র করে আছমা বেগমের নিকট ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে আসছিলো।

তাদের চাহিদা মতো চাঁদার টাকা দিতে দেরি হওয়ায় রবিবার (২৩ জুন) দুপুরের দিকে তুষারের নেতৃত্বে একদল চাঁদাবাজ ও সন্ত্রাসী গৃহবধূ আছমা এবং তার তিন বছরের শিশুকন্যা ফায়জার ওপর হামলা চালায়। এতে শিশু কন্যাসহ আছমা গুরুতর জখম হন।

স্থানীয় লোকজন গৃহবধূ আছমাকে উদ্ধার করে কালিয়াকৈর শ্রীফলতলী সরকারী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেছেন। ঘটনার পর চাঁদাবাজ ও সন্ত্রাসীরা গৃহবধূ আছমার স্বামী আব্দুল লতিফকে হুমকি দিয়েছে এ বিষয়ে থানায় মামলা করলে পরিবারের ওপর আবারও হামলা চালানো হবে। ফলে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে আছমার পরিবার।

এদিকে সন্ত্রাসীদের দ্রুত গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে গৃহবধুর ভাই নুরুল ইসলাম সিকদার বাদী হয়ে রবিবার রাতে মির্জাপুর থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

দেওহাটা পুলিশ ফাঁড়ির উপ-পরিদর্শক মো. আলাউদ্দিন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে আজগর আলীর বখাটে ছেলে চাঁদাবাজ ও সন্ত্রাসী তুষারকে(২২) গ্রেফতার করেছে। অন্য আসামিরা পলাতক রয়েছে।

এ ব্যাপারে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মো. আলাউদ্দিন বলেন, গৃহবধূ আছমার চিকিৎসা চলছে। আসামিদের মধ্যে একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অন্য আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

(মির্জাপুর সংবাদদাতা, ঘাটাইলডটকম)/-