চট্টগ্রামে গ্যাস বিস্ফোরণে নিহত ৭

চট্টগ্রামের পাথরঘাটা এলাকায় গ্যাসের পাইপলাইন বিস্ফোরণে ভবনধসে সাতজন নিহত হয়েছেন। এ সময় দগ্ধ হয়েছেন অন্তত ১০ জন। আজ রোববার (১৭ নভেম্বর) সকাল ৯টার দিকে পাথরঘাটা এলাকার ব্রিকফিল্ড রোডে এ বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। তাৎক্ষণিকভাবে হতাহতদের পরিচয় জানা যায়নি। এদিকে এ ঘটনার পর থেকে ব্রিকফিল্ড রোডে যান চলাচল বন্ধ রয়েছে। তবে বিস্ফোরণ গ্যাস সিলিন্ডার থেকে হয়েছে, না গ্যাসের পাইপলাইনে হয়েছে সে বিষয়ে এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

সিএমপির দক্ষিণের ডিসি মেহেদি হাসান বলেন, ৯৯৯-এ ফোন দিয়ে এক ব্যক্তি আমাদের পাথরঘাটা ব্রিকফিল্ড রোডের কুঞ্জমনি ভবনে বিস্ফোরণের ঘটনাটি জানান। এ ঘটনায় ১৭ জন দগ্ধ হন। তাদের উদ্ধার করে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (চমেক) আনা হলে দায়িত্বরত চিকিৎসক সাতজনকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। অন্যরা সেখানেই চিকিৎসাধীন।

পাঁচতলা ওই ভবনের চতুর্থ তলার বাসিন্দা স্কুলশিক্ষক অঞ্জন কান্তি দাশ জানান, সকালে বিকট বিস্ফোরণের সঙ্গে পুরো বাড়ি কেঁপে ওঠে। তার বাসার জানালার কাচ ভেঙে যায় এবং অনেক জিনিসপত্র মেঝেতে পড়ে যায়। বিস্ফোরণের পর ভবনের সীমানাপ্রাচীর ভেঙে রাস্তায় মানুষের ওপর পড়ে। পিকআপভ্যানে বেশ কয়েকজনকে হাসপাতালে পাঠানো হয়। তাদের মধ্যে পথচারীও ছিলেন।

কোতোয়ালি থানার ওসি মো. মহসিন জানান, পাথরঘাটা ব্রিকফিল্ড রোডের কুঞ্জমনি ভবনে গ্যাসের পাইপলাইন বিস্ফোরণে ভবনের একাংশ ভেঙে গেছে। এতে সাতজন মারা গেছেন এবং দগ্ধ হয়েছেন অন্তত ১০ জন। দগ্ধদের উদ্ধার করে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (চমেক) ভর্তি করা হয়েছে।

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক জহিরুল ইসলাম জানান, গুরুতর দগ্ধ সাতজনকে হাসপাতালে আনা হয়। পরে তাদের মৃত ঘোষণা করেন সেখানে দায়িত্বরত চিকিৎসক। অন্য ১০ জন হাসপাতালে ভর্তি আছেন।

ঘটনাস্থলে দায়িত্বরত চট্টগ্রাম ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের উপসহকারী পরিচালক পূর্ণচন্দ্র মুৎসুদ্দী জানান, বড়ুয়া বিল্ডিংয়ের নিচতলায় সীমানাপ্রাচীরের পাশেই হয়তো গ্যাস রাইজারে কোনো সমস্যা ছিল, লিকেজ থেকে গ্যাস বের হয়ে জমে গিয়েছিল। সকালে বাসায় রান্না করার সময় বা বাইরে থেকে কারও ফেলা সিগারেটের আগুন থেকে এ বিস্ফোরণ হতে পারে।

(ইত্তেফাক, ঘাটাইলডটকম)/-