ঘাটাইলে ভোগান্তির আরেক নাম নয়াপাড়া-নারাঙ্গাইল রাস্তা

টাঙ্গাইলের ঘাটাইল উপজেলার দিঘর ইউনিয়নের নারাঙ্গাইল গ্রামে দুই সহস্রাধিক গ্রামবাসী তাদের চলাচল অনুপযোগী নয়াপাড়া নারাঙ্গাইল রাস্তাটি পাকা করণের জন্য সরকারের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে দীর্ঘদিন ধরে জোড় দাবী জানিয়ে আসছে।.কিন্তু এখন পর্যন্ত এর কোন বিধি ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। এতে করে চরম দুর্ভোগে দিনাতিপাত করছেন এই গ্রামের বাসিন্দারা।

সরেজমিনে গিয়ে এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে জানা যায়, তারা প্রতিদিন দুই কিলোমিটার পথ পায়ে হেটে নয়াপাড়া পৌছে হামিদপুর বাজার এবং উপজেলার সদরে যাতায়াত করেন। তারা আজও অবহেলিত। যাতায়াত ব্যবস্থা খারাপ থাকার দরুন কোন মানুষের অসুখ বিসুখ হলে সহজে চিকিৎসা দিতে অসুবিধা হয়। এ গ্রামে কোন কমিউনিটি ক্লিনিক না থাকায় তারা স্বাস্থ্য সেবা থেকেও বঞ্চিত। একটু বৃষ্টিতে রাস্তা কর্দমাক্ত হয়ে যায় কোন রিক্সা ভ্যান চলাচল করতে পারে না। এমনকি ছোট ছোট কোমলমতি শিক্ষার্থীরা তাদের পড়াশোনার জন্য একমাত্র স্কুলটি যাতায়াতের জন্য অসুবিধা হয়।

নারাঙ্গাইল গ্রামে গিয়ে দেখা যায়, এখানে একটি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ও দুটি মসজিদ রয়েছে। সম্প্রতি নয়াপাড়া–নারাঙ্গাইল রাস্তার ধারে একটি ছোট বাজার বসিয়েছে গ্রামবাসী। প্রতিদিন দুই কিলোমিটার পথ পায়ে হেটে শিক্ষক শিক্ষার্থী নারাঙ্গাইল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পৌছে।

এ বিদ্যালয়ে তাদের স্থানীয় ও জাতীয় সরকার গঠনের ভোট কেন্দ্র। ভোট কেন্দ্রে মালামাল আনা নেওয়া সহ নানা রকম কাজ করতে নানারকম ভোগান্তির মধ্যে পড়তে হয়। ঐ এলাকার গ্রামবাসী নয়াপাড়া থেকে ইদ্রিসের বাড়ি পর্যন্ত প্রায় তিন কিলোমিটার পথ দ্রুত সময়ের মধ্যে পাকাকরণ করে তাদের দীর্ঘদিনের কষ্ লাঘব করার জন্য সরকারে উর্ধ্বতন কতৃপক্ষের কাছে জোড় দাবী জানিয়েছে।

এ গ্রামের মাতাব্বর আবুল কাশেম বলেন, আমরা সত্যি খুব অবহেলিত। যুগের পর যুগ ধরে আমাদের যোগাযোগ ব্যবস্থা নাজুক। কেউ দেখার নেই। রাস্তার এ করুন অবস্থার কারণে গ্রামের জনগণের জন দুর্ভোগ চরম পর্যায় এসে দাড়িয়েছে।

এ গ্রামের সমাজ সেবক আবুল হোসেন জানায়, গ্রামের অসুস্থ রোগীরা তিন কিলোমিটার পথ পায়ে হেটে নয়াপাড়া গিয়ে অটোভ্যান নিয়ে উপজেলা সদর কিংবা পার্শ্ববর্তী কালিহাতী সদরে চিকিৎসা সেবা নিতে যেতে হয়। আমরা এ কষ্টকর অবস্থা থেকে মুক্তি চাই।

আব্দুর রাজ্জাক নামে গ্রামের এক শিক্ষানুরাগী বলেন, নয়াপাড়া নারাংগাইল কাচা সড়কটি পাকাকরণ খুবই জরুরী। এখানে নারাঙ্গাইল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় গ্রামের দুটি মসজিদ অবস্থিত। গ্রামবাসী রাস্তাটির পাশে একটি নতুন বাজার বসিয়েছে। নানাবিধ কারণ সরকার আমাদের দিকে নজর দিবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

এ ব্যাপারে দিঘর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ মামুন জানান, আমরা রাস্তাটির জন্য স্থানীয় সংসদ সদস্য সাহেবকে জানিয়েছি। দ্রুত রাস্তাটি ঠিক করার ব্যাবস্থা করে দেবেন বলে তিনি আমাদের আশ্বস্ত করেছেন।

(রবিউল আলম বাদল, ঘাটাইলডটকম)/-