ঘাটাইলে প্রশাসনের নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও ঋণের টাকা আদায় করছে গ্রামীণ ব্যাংক

সব ধরণের এনজিও প্রতিষ্ঠানগুলোকে গ্রাহকদের কাছ থেকে ঋণ আদায় কার্যক্রম স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেণ টাঙ্গাইলের ঘাটাইল উপজেলা প্রশাসন। গতকাল সোমবার (২৩ মার্চ) উপজেলা প্রশাসন থেকে ওই নিদের্শনা জারি করা হয়। কিন্তু প্রশাসনের এ নির্দেশনাকে অমান্য করে আজ মঙ্গলবার (২৪ মার্চ) গ্রামীণ ব্যাংকের কর্মীদের উপজেলার বিভিন্ন স্থানে ঋণের টাকা আদায় করতে দেখা গেছে। এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চলছে আলোচনা সমালোচনা ঝড়।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে জাহান কলি নামে একজন লিখেছেন, ’প্রশাসনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে আজ মঙ্গলবার সুইদাখোর গ্রামীণ ব্যাংক কিস্তির টাকা আদায় করছে ঘাটাইলের পাহাড়িয়া অঞ্চলে’। তিনি এ বিষয়ে প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।

এসএন রানা নামে একজন লিখেছেন, ’ টাঙ্গাইলে ঘাটাইল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নির্দেশক্রমে সকল ধরনের এনজিওদের ঋণ আদায় বন্ধ করা হয়েছে, কিন্তু গ্রামীণ ব্যাংকসহ বেশ কিছু এনজিও এখনো কিস্তি আদায় চালিয়ে যাচ্ছে। সরকারের নির্দেশকে তোয়াক্কা করছেন না তারা। এদের বিরুদ্ধে দ্রুত আইনী ব্যবস্থা নেওয়া হোক।

ঋণ আদায়ের বিষয়ে ঘাটাইল গ্রামীণ ব্যাংকের ম্যানেজার আহসান হাবীব বলেন, ঋণ আদায় বন্ধ করতে হবে এমন কোনো নির্দেশনা উপজেলা প্রশাসন থেকে আমরা পাইনি। আমাদের কর্মীরা মাঠে গেছেন, যদি কেউ কিস্তি দেন তবে নিবেন। কারো প্রতি তারা জোর করবেন না। তবে এ সপ্তাহ আমাদের কার্যক্রম চলবে। উপরের নির্দেশনা পেলে ঋণ আদায় বন্ধ করা হবে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মবর্তা অঞ্জন কুমার সরকার বলেন, ব্র্যাক, গ্রামীণ ব্যাংকসহ উপজেলার সব এনজিও প্রতিষ্ঠনকে ডেকে পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত সকল ধরণের ঋণ আদায় কার্যক্রম বন্ধ রাখার জন্য বলা হয়েছে। তাদেরকে চিঠিও দেওয়া হয়েছে। সরকারিভাবে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। মানুষ যেন টাকা না দেয়।

(মাসুম মিয়া, ঘাটাইল ডট কম)/-