ঘাটাইলে নানা কর্মসূচিতে আ’লীগ নেতা বাপ্পী’র মৃত্যুবার্ষিকী পালিত

টাঙ্গাইলের ঘাটাইলে নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে আওয়ামী লীগ নেতা আমিনুর রহমান খান বাপ্পী’র ১৭তম শাহাদৎ বার্ষিকী পালিত হয়েছে।

শনিবার (২১ নভেম্বর) বিকেলে ঘাটাইলে সাবেক সংসদ সদস্য আমানুর রহমান খান রানার বাসভবন এলাকা থেকে একটি শোক র‍্যালি বের করা হয়। র‍্যালিটি ঘাটাইল পৌরসভার গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে আবার রানার বাসভবন এলাকায় গিয়ে শেষ হয়। পরে সেখানে এক দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। দোয়া মাহফিল শেষে গণভোজের আয়োজন করা হয়েছে।

এছাড়া বাপ্পি স্মৃতি সংসদের উদ্যোগে উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় দোয়া মাহফিল, আলোচনা সভা ও গণ ভোজের আয়োজন করা হয়।

ঘাটাইলে শনিবার অনুষ্ঠিত কর্মসূচীতে উপস্থিত ছিলেন ঘাটাইলের সাবেক এমপি আমানুর রহমান খান রানা, উপজেলার সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান মুহাম্মদ আরিফ হোসেন, ইউপি চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম সহ উপজেলা, পৌরসভা ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ সহ অন্যান্য সহযোগী সংগঠনের বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী।

টাঙ্গাইল-৩ (ঘাটাইল) আসনের সংসদ সদস্য আতাউর রহমান খানের ছেলে এবং সাবেক সংসদ সদস্য আমানুর রহমান খান রানার বড় ভাই এই আওয়ামী লীগ নেতা আমিনুর রহমান খান বাপ্পি ২০০৩ সালের ২১ নভেম্বর সন্ধ্যায় সন্ত্রাসী হামলায় টাঙ্গাইল শহরের কলেজপাড়া এলাকায় তাঁদের বাসার কাছে নিহত হন। এ সময় বাপ্পির সঙ্গী আবদুল মতিন নামের এক ব্যক্তিও নিহত হন।

বাপ্পি হত্যার দুইদিন পর ২৩ নভেম্বর আমিনুরের বাবা আতাউর রহমান খান বাদী হয়ে টাঙ্গাইল থানায় মামলা করেন। মামলায় কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ সভাপতি আবদুল কাদের সিদ্দিকী ও আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতা আবদুল লতিফ সিদ্দিকীর দুই ভাই মুরাদ সিদ্দিকী ও আজাদ সিদ্দিকী, টাঙ্গাইল পৌরসভার মেয়র জামিলুর রহমান, জেলা বিএনপির নেতা আলী ইমাম তপন, পৌর কমিশনার রুমি চৌধুরী, ছাত্রদল নেতা আবদুর রৌফসহ ২০ জনকে আসামি করা হয়।

তদন্ত শেষে সিআইডির সহকারী পুলিশ সুপার খোরশেদ আলম ২০০৭ সালে আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেন।

এই মামলার আসামি রুমি চৌধুরী ও আব্দুর রৌফ ২০০৪ সালের অক্টোবরে সশস্ত্র হামলায় নিহত হন। এই দুজনের হত্যা মামলায় সাবেক এমপি রানা ও তার ভাইদের আসামি করে মামলা করা হয়।

(স্টাফ রিপোর্টার, ঘাটাইল ডট কম)/-

Print Friendly, PDF & Email