ঘাটাইলের সংগ্রামপুর ইউনিয়নে ভোটের আগে এক নারীর প্রার্থীতা বতিল!

টাঙ্গাইলের ঘাটাইল উপজেলার নবগঠিত সংগ্রামপুর ইউনিয়নে সংরক্ষিত মহিলা আসন ১ নং (১, ২ ও ৩ নং) ওয়ার্ডের মাইক প্রতীকের প্রার্থী মোছা. উম্মেতুননেছা বেগমের প্রার্থীতা বাতিল করেছে নির্বাচন কমিশন। জেলা নির্বাচন অফিসার মোহাম্মদ তাজুল ইসলাম বুধবার (২৮ মার্চ) রাতে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, নবগঠিত সংগ্রামপুর ইউনিয়নের টেপিমদন গ্রামের ভোটার মোছা. উম্মেতুননেছা বেগম, তার ভোটার নং- ৯৩১৭০৪০০০৫০৬ (জাতীয় পরিচয়পত্র নং-২৬১৭২৩৯৭৯৮৭২৬, ঠিকানা- ভাদাইল পূর্বপাড়া, গনকবাড়ী, সাভার, ঢাকা), স্বামী- মো. হাবিবুর রহমান শেখ, মাতা-হাছিনা বেগম, পেশা-বেসরকারি চাকুরি, জন্ম তারিখ-২৪/০৩/১৯৮৬খ্রি.। তার ঠিকানা- টেপিমদন, ঘাটাইল, টাঙ্গাইল। অথচ তিনি সংগ্রামপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ১,২,৩ নং ওয়ার্ডে সংরক্ষিত মহিলা আসনে প্রার্থী হন। যথারীতি যাচাই-বাছাইয়ে পরীক্ষিত হয়ে মাইক প্রতীক পান এবং রীতিমত প্রচার-প্রচারণা চালান। প্রচারণা বন্ধের মাত্র ৬ ঘণ্টা আগে তাঁর প্রার্থীতা বাতিল করা হয় বলে অভিযোগ করেন তিনি।

মোছা. উম্মেতুন নেছা বেগম ইতি জানান, রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয় যাচাই-বাছাই করে তাকে মাইক প্রতীক বরাদ্দ দেয়। সে অনুযায়ী তিনি প্রচার-প্রচারণা চালান। বৃহস্পতিবার (২৯ মার্চ) অনুষ্ঠেয় ভোট গ্রহনে তিনি সর্বোচ্চ ভোট পেয়ে বিজয়ী হবেন। অথচ নির্বাচন কমিশন সম্পূর্ণ বেআইনিভাবে তার মনোনয়নপত্র বাতিল ঘোষণা করেছে- যা প্রচলিত আইনের পরিপন্থী।

জেলা নির্বাচন অফিসার মোহাম্মদ তাজুল ইসলাম জানান, নবগঠিত সংগ্রামপুর ইউনিয়নের সংরক্ষিত মহিলা আসনের ২ নং (৪,৫ ও ৬নং) ওয়ার্ডের ভোটার হয়ে তিনি ১নং (১,২ ও ৩নং) ওয়ার্ডের প্রার্থী হন। পরে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর আবেদনের ভিত্তিতে যাচাই-বাছাই করে তার মনোনয়নপত্র বাতিল করে নির্বাচন কমিশন। তিনি এখন আর ওই আসনে আমাদের প্রার্থী নন।

(দৃষ্টি, ঘাটাইল.কম)/-