গৌরব আর ঐতিহ্যের ৪২ বছরে ছাত্রদল

৪২ বছরে পা রাখল বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল। দেশের অন্যতম বৃহৎ এই ছাত্রসংগঠনের যাত্রা ১৯৭৯ সালের ১ জানুয়ারি। শিক্ষা, ঐক্য ও প্রগতি- এ তিন মূলনীতিকে ধারণ করে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান ছাত্রদল প্রতিষ্ঠা করেন।

প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আজ সকাল ১০টায় রাজধানী ঢাকার ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে সমাবেশের আয়োজন করেছে ছাত্রদল। এর আগে সকাল ৬টায় নয়াপল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ও সারা দেশে দলীয় কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করে। ২ জানুয়ারি কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের নিচতলায় ফ্রি ব্লাড গ্রুপিং ও স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচির আয়োজন করেছে সংগঠনটি। পাশাপাশি সারা দেশের জেলা, মহানগর, বিশ্ববিদ্যালয়, থানা, কলেজ ও পৌরসভা ইউনিটে ছাত্রদলের উদ্যোগে র‌্যালি, আলোচনা সভা, মিলাদ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হবে।

সোমবার ছাত্রদল পাঠানো বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ১ জানুয়ারি ছাত্রদলের ৪১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন হবে। সারাদেশে জেলা, মহানগর, বিশ্ববিদ্যালয়, থানা, কলেজ ও পৌরসভা ইউনিটে ছাত্রদলের উদ্যোগে স্থানীয় সুবিধা অনুযায়ী র‌্যালি অথবা আলোচনা সভা অথবা মিলাদ ও দোয়া অনুষ্ঠিত হবে।

ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সংসদের সভাপতি ফজলুর রহমান খোকন ও সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামল সংগঠনের সব পর্যায়ের নেতাকর্মীদের কর্মসূচিগুলোতে অংশ নিয়ে সফল করার অনুরোধ জানিয়েছেন।

ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামল বলেন, খালেদা জিয়াকে মুক্ত করা, দেশের মানুষের গণতন্ত্র এবং স্বাধীন সার্বভৌম রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করাই আমাদের প্রতিষ্ঠবার্ষিকীর একমাত্র লক্ষ্য। তবে কিছু সমস্যা থাকায় প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে এবার বড় কোনো অনুষ্ঠেনের আয়োজন করা হচ্ছে না। যেসব কর্মসূচি পালনের ঘোষণা দেওয়া হয়েছে, তা সফল করতে সকল পর্যায়ের নেতাকর্মীদের অনুরোধ জানানো হয়েছে।

এর আগে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে গতকাল মঙ্গলবার সকালে সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের মাজারে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করেন সংগঠনটির নেতাকর্মীরা। বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এসময় উপস্থিত ছিলেন।

নতুন বছরে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের নেতৃত্বে গণঅভ্যূত্থান হবে বলে সে সময় মন্তব্য করেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, নতুন বছরে আমরা সবসময়ই নতুন করে ভাবতে চাই, নতুন করে স্বপ্ন দেখতে চাই এবং নতুন করে এই স্বপ্নকে বাস্তবায়ন করার জন্য আমাদের সংগঠনকে শক্তিশালী করতে চাই। আমরা বিশ্বাস করি, বাংলাদেশে ছাত্রদলের যে ঐতিহ্য রয়েছে, সেই ঐহিত্যকে সমুন্নত রেখে, ছাত্র আন্দোলনের ঐতিহ্যকে সমুন্নত রেখে এই ছাত্রদলের নেতৃত্বে এদেশে গণঅভ্যূত্থানে সূচনা হবে এবং গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করতে সক্ষম হবে।

ছাত্রদলের সভাপতি ফজলুর রহমান খোকন ও সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামলসহ নেতাকর্মীদের নিয়ে জিয়াউর রহমানের সমাধিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন সাবেক ছাত্রনেতাদের মধ্যে আমানউল্লাহ আমান, ফজলুল হক মিলন, খায়রুল কবির খোকন, নাজিম উদ্দিন আলম, শহীদউদ্দিন চৌধুরী এ্যানী, হাবিব উন নবী খান সোহেল, এবিএম মোশাররফ হোসেন, আমিরুল ইসলাম খান আলিম, আকরামুল হাসান।

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল শুরু থেকে আজ অবধি দলীয় সকল কর্মকাণ্ডে অংশ গ্রহণসহ সফলতার সঙ্গে দেশের জাতীয়তাবাদ প্রতিষ্ঠায় অগ্রণী ভূমিকা পালন করে আসছে। এছাড়া দলের সু-সময় ও দুঃসময়ে পাশে থেকে দলের প্রতি সংগঠনের দায়িত্ব ও কর্তব্য পালনে দক্ষতার প্রমাণ দিতে সক্ষম হয়েছে। আগামী দিনেও বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের প্রতিটি নেতাকর্মী দলের প্রতি পূর্ণ আস্থা রেখে দলকে আরও শক্তিশালী করতে এক হয়ে কাজ করবে এমনটাই প্রত্যাশা।

জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল এদেশের মানুষের অধিকার আদায়ের সংগ্রামে সর্বদায় রাজপথে সক্রিয় ছিল, আছে এবং থাকবে। আজ ১ জানুয়ারি ছাত্রদলের ৪২তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী জাঁকঝমকপূর্ণভাবে পালনের মাধ্যমে ছাত্র সমাজকে প্রয়াত প্রেসিডেন্ট জিয়ার হাতে গড়া ছাত্রদলের আদর্শে উজ্জ্বীবিত করার চেষ্টা করতে হবে এবং সারা দেশে ছাত্রদলকে সর্বাধিক শক্তিশালী ও সুশৃঙ্খল ছাত্র সংগঠন হিসেবে পরিণত করতে হবে। জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের ঐতিহ্য ও মর্যাদা রক্ষার দায়িত্ব আমাদেরই।

(স্টাফ রিপোর্টার, ঘাটাইলডটকম)/-