কোটা সংস্কার দাবিতে অবরোধ: জনজীবনে ভোগান্তি

রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে কোটা সংস্কারের দাবিতে পদযাত্রা কর্মসূচি পালন করেছে সাধারণ শিক্ষার্থী ও চাকরিবঞ্চিতরা। রোববার থেকে শাহবাগে সড়ক অবরোধ করে ৫ দফা দাবির পক্ষে স্লোগান ও বিক্ষোভ করে আসছে আন্দোলনকারীরা।

শিক্ষার্থীরাও কোটা পদ্ধতি সংস্কার ও ঢাকায় কোটা বিরোধী আন্দোলনে আটকৃতদের মুক্তির দাবিতে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে ও রাজধানীর গুরুত্বপূর্ণ মহাসড়ক অবরোধ করে রেখেছেl ফলে চারদিকের সড়কে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। এতে চরম ভোগান্তিতে পড়ছে দেশের সর্বস্তরের সাধারণ জনগণ। বিশেষ করে এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের জন্য এ বিক্ষোভ-কর্মসূচি খুবই বেদনাদায়ক।

বিভিন্ন গন্তব্যের যাত্রীদের ভোগান্তিতে পড়তে দেখা গেছে। গন্তব্যে পৌঁছাতে অনেকে বিকল্প রাস্তা ব্যবহার করছেন। তবে এক সড়কে হঠাৎ গাড়ি বেড়ে যাওয়ায় যানচলাচলে কিছুটা ধীর গতি দেখা গেছে।

আগে থেকেই রাজধানীতে গণপরিবহন কম থাকায় গাড়ি পেতে মানুষকে ভোগান্তিতে পড়তে হয়। এর বাইরে কোনো রাজনৈতিক দলের কর্মসূচি বা অরাজনৈতিক কোনো কর্মসূচি থাকলে ভোগান্তির মাত্রা যেন আরো বেড়ে যায়।

সৈকত আমিন নামের এক ছাত্র বলেন, ‘কোটা সংস্কার হোক, আমিও চাই। এর জন্য আন্দোলনও হোক। কিন্তু এভাবে সড়ক অবরোধ করে? তারা তো মানুষের ভোগান্তি কমাতে অন্য কোনো জায়গায় অবস্থান নিতে পারত’।

কোটা পদ্ধতির সংস্কারের দাবিতে বেশ কিছুদিন ধরে আন্দোলন চলছে। সরকারের পক্ষ থেকে বার্তা আসলেও কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনকারীরা পিছু হটতে চাইছে না। জনসাধারণকে ভোগান্তিতে ফেলে তাদের এই আন্দোলন কতটুকু সার্থক হবে? একজন শ্রমজীবী মানুষের যে ক্ষতি হচ্ছে তা কি পূরণ করতে পারবে? দেশের মানুষের স্বার্থ হাসিলে তারা শান্তিপূর্ণ আন্দোলন করবে এমনটাই প্রত্যাশা সকলেরl

(নিজস্ব প্রতিবেদক, ঘাটাইল.কম)/-