কালিহাতীতে পুকুরের আধিপত্য নিয়ে সংঘর্ষে আহত ৭, এলাকায় চরম উত্তেজনা

টাঙ্গাইলে বাংলাদেশ সেতু কর্তৃপক্ষের (বাসেক) একটি পুকুরে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দু’পক্ষের সংঘর্ষে অন্তত ৭ জন আহত হয়েছেন। এ ঘটনায় উভয় পক্ষই মামলা দায়ের করেছে এবং পুলিশ একজনকে গ্রেপ্তার করে জেল-হাজতে পাঠিয়েছে।

এ নিয়ে এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। যে কোন সময় পুনরায় রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

জানা গেছে, বঙ্গবন্ধুসেতু-ঢাকা মহাসড়কে কালিহাতী উপজেলার আনালিয়াবাড়ি নামক স্থানে (৮নং কালভার্টের পশ্চিমে) বাসেক’র নিয়ন্ত্রণাধীন ধলাটেঙ্গর মৌজার ১.২০ একর পরিমাপের একটি পুকুর গ্রামীণ মৎস্য ফাউন্ডেশন নামক একটি সংগঠনকে ২৫ বছরের জন্য বন্দোবস্ত দেয়।

কয়েক বছর আগে গ্রামীণ মৎস্য ফাউন্ডেশনের বন্দোবস্ত চুক্তির মেয়াদ শেষ হয়।

এরপর থেকে আনালিয়াবাড়ি গ্রামের মোল্লা, ফকির ও প্রামাণিক পরিবারের যাদের জমি বাসেক অধিগ্রহন করেছিল তারা ওই পুকুরে মাছ চাষ করছিল।

গত ৪ সেপ্টেম্বর দিনগত রাতে স্থানীয় ইউপি সদস্য শফিকুল ইসলাম মন্ডল সোনার নেতৃতে ওই পুকুরের মাছ চুরি করা হয়।

এ নিয়ে গত ১৮ সেপ্টেম্বর (শুক্রবার) আনালিয়াবাড়ি ঈদগাঁ মাঠে গ্রাম্য সালিশি বৈঠকের আয়োজন করা হয়।

সালিশি বৈঠকে সল্লা ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল আলীমের সভাপতিত্বে কালিহাতী উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আক্তারুজ্জামান, উপজেলা আ’লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ও দশকিয়া ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল মালেক ভূঁইয়া সহ স্থানীয় গন্যমাণ্য ব্যক্তিরা অংশ নেয়।

বৈঠকে মন্ডল পরিবারের পক্ষে শফিকুল ইসলাম মন্ডল সোনা পুকুরের মাছ চুরি করার কথা স্বীকার করে বক্তব্য উপস্থাপন করেন। এ সময় শফিকুল ইসলাম মন্ডল সোনার ভাই হালিমুজ্জামান মন্ডল হিরোর নেতৃত্বে ১০-১২ ব্যক্তি লাঠি-সোটা নিয়ে সালিশি বৈঠকে হামলা চালায়। এক পর্যায়ে উভয়পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বাঁধে।

সংঘর্ষে ইউপি সদস্য শফিকুল ইসলাম মন্ডল সোনা (৪২), হারুন মন্ডল (২৮), জয়নাল প্রামাণিক (৩৫), মিজানুর প্রামাণিক (৪২) ও শহিদুল ইসলাম মন্ডল (৩৫) আহত হন। আহতদের টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এ ঘটনায় প্রামাণিক ও মন্ডল পরিবারের পক্ষ থেকে কালিহাতী থানায় অভিযোগ দাখিল করে। থানা পুলিশ মন্ডল পরিবারের অভিযোগটি এজাহার হিসেবে গ্রহন করে। পরদিন ১৯ সেপ্টেম্বর (শনিবার) সকালে পুলিশ ময়ছের প্রামাণিককে গ্রেপ্তার করে।

ওইদিন দুপুরে মন্ডল পরিবারের লোকজন আবারও প্রামাণিক পরিবারের সদস্যদের বাড়িতে হামলা চালিয়ে গ্রেপ্তারকৃত ময়ছের প্রামাণিকের স্ত্রী শিউলী বেগম ও শহিদুল প্রামাণিকের স্ত্রী নুরুন্নাহার বেগমকে পিটিয়ে আহত করে। তাদেরকে পুলিশের সহায়তায় উদ্ধার করে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

পরে প্রামাণিক পরিবারের পক্ষ থেকে মো. সুমন প্রামাণিক বাদি হয়ে রোববার (২০ সেপ্টেম্বর) টাঙ্গাইলের জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট (কালিহাতী আমলী) আদালতে মামলা (নং-৩২৬/২০২০ইং) দায়ের করে।

পাল্টাপাল্টি মামলা দায়ের করায় এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। যেকোন সময় পুনরায় উভয়পক্ষের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

বাসেক বঙ্গবন্ধু সেতু সাইট অফিস সূত্রে জানা যায়, পুকুরটি তাদের মালিকানাধীন। গ্রামীণ মৎস্য ফাউন্ডেশনের বন্দোবস্তের মেয়াদ শেষ হওয়ার পর পুকুরটি পরিত্যক্ত অবস্থায় রয়েছে।

কেউ যাতে মাছ না ছাড়ে বা অন্য কোনভাবে দখল-জবরদখল না করে সেজন্য কালিহাতী থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে।

সংঘর্ষে আহত ইউপি সদস্য শফিকুল ইসলাম মন্ডল সোনা জানান, সালিশি বৈঠকে উভয়পক্ষে সংঘর্ষ বাঁধে। গ্রামের কেউ তাকে আঘাত করতে পারেন তা তিনি বিশ্বাস করতে পারছেন না।

সালিশি বৈঠকের সভাপতি সল্লা ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল আলীম জানান, সরকারি পুকুরের মাছ ধরাকে কেন্দ্র করে প্রামাণিক ও মন্ডল পরিবারের মধ্যে বিরোধ। ওই বিরোধ মিমাংসার জন্য সালিশি বৈঠকের আয়োজন করা হয়।

বৈঠকে ইউপি সদস্য শফিকুল ইসলাম মন্ডল সোনা বক্তব্য উপস্থাপনের সময় তার ভাই হালিমুজ্জামান মন্ডল হিরো বৈঠকে হামলা চালায়। এ সময় উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বাঁধে।

কালিহাতী থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) সওগাতুল আলম জানান, আনালিয়াবাড়িতে সংঘর্ষের ঘটনায় উভয় পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় অভিযোগ দিয়েছে।

গুরুত্বর আহত বিবেচনা করে মন্ডল পরিবারের অভিযোগটি এজাহার হিসেবে গ্রহন করা হয়েছে। তবে, দুটি অভিযোগেরই তদন্ত চলছে।

কালিহাতী উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মো. আক্তারুজ্জামান জানান, সালিশি বৈঠকে সংঘর্ষের ঘটনাটি অত্যন্ত দুঃখজনক। সালিশে এ ধরণের সংঘর্ষ সামাজিক অবক্ষয়ের অংশ। তিনি এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানান।

(স্টাফ রিপোর্টার, ঘাটাইল ডট কম)/-