কালিহাতীতে জীবিতকে মৃত দেখিয়ে অন্যের নামে বিধবা কার্ড ইউপি চেয়ারম্যানের

টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলায় জীবিত পুষ্প বেওয়াকে মৃত দেখিয়ে বিধবা ভাতার কার্ড ঘুষের বিনিময়ে অন্যজনকে দেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। উপজেলার নারান্দিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শুকুর মামুদ ও মহিলা মেম্বার কামরুন নাহারের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ উঠেছে।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন ভুক্তভোগী পুষ্প বেওয়া।

বিষয়টি নিয়ে নারান্দিয়া ইউপি চেয়ারম্যান শুকুর মাহমুদ বলেন, এটি সংশোধন করে দেয়া হবে। সংবাদ না করার অনুরোধ জানিয়ে তিনি বলেন, বিষয়টি সমাধানের প্রক্রিয়া চলছে।

মহিলা মেম্বার কামরুন নাহার দুঃখ প্রকাশ করে বলেন, আমার ভুল হয়েছে। ওই মহিলাকে ক্ষতিপূরণ দেয়া হবে।

এ ব্যাপারে পুষ্প বেওয়া জানান, তার নামে বিধবা ভাতার কার্ড ইস্যুর পর থেকে তিনি নিয়মিত ভাতার টাকা তুলে আসছেন। সম্প্রতি তিনি ভাতার টাকা তুলতে যান নারান্দিয়া জনতা ব্যাংকে। এ সময় ব্যাংক কর্তৃপক্ষ তাকে জানায়, পুষ্প বেওয়া নামের ব্যক্তি মারা গেছে। তার স্থলে এ কার্ড বিলকাচিনা গ্রামের মোসাম্মৎ মালেকা বেগমের নামে ইস্যু করা হয়েছে।

এ সময় তিনি নিজেকে জীবিত দাবি করে বলেন, আমি মারা গেলে এখানে সশরীরে উপস্থিত হলাম কী করে। ভাতা প্রদান বইয়ের ছবির সঙ্গে আমার চেহারা মিলিয়ে নিন। আমিই সেই ব্যক্তি। তার এ দাবির পরিপ্রেক্ষিতে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ তাকে সমাজসেবা অফিস থেকে ঠিক করে আনতে বলে বিদায় করে দেন।

এ ব্যাপারে কালিহাতী উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা জসিম উদ্দিন জানান, বিষয়টি তার নজরে এলে তিনি সংশ্লিষ্ট চেয়ারম্যান-মেম্বারের কাছে এ বিষয়ে জানতে চান। তারা জানান, ভুলক্রমে এমনটি হয়েছে। বিষয়টি তদন্তপূর্বক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শামীম আরা নীপা জানান, সমাজসেবা কর্মকর্তার নিকট জেনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

(কালিহাতী সংবাদদাতা, ঘাটাইল ডট কম)/-