কালিহাতীতে চাহিদার তুলনায় কুরবানির পশুর ঘাটতি প্রায় চার হাজার

ঈদ-উল আজহাকে সামনে রেখে টাঙ্গাইলের কালিহাতীতে চাহিদার তুলনায় কুরবানির পশুর ঘাটতি রয়েছে প্রায় চার হাজার।

উপজেলা প্রাণি সম্পদ অধিদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী, গেলো বছর উপজেলায় কুরবানির সংখ্যা ছিলো ১২ হাজার ৩ শত ৭৭, তার আগের (২০১৭) বছর এ সংখ্যা ছিলো ১৪ হাজার ৬ শত ৩০। আশা করা হচ্ছে এ বছর কুরবানির সংখ্যা হবে প্রায় ১৩ হাজার, বিপরীতে উপজেলার ৭৩০ টি খামারে কুরবানির পশু লালন-পালন করা হয়েছে ৯ হাজার ৫৫ টি। এর মধ্যে ৮ হাজার ২টি গরু, ৬শত ৮২ টি ছাগল, ৩ শত ৬৫ টি ভেড়া ও ৬টি মহিষ। পশুর সম্ভাব্য ঘাটতি রয়েছে প্রায় ৪ হাজার।

উপজেলা প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ মোঃ শহীদুল্লাহ ঘাটাইলডটকমকে জানান, উপজেলায় এবার দেশীয়, স্বাস্থ্য সম্মত ও বৈজ্ঞানিক পদ্ধতিতে কুরবানির পশু মোটাতাজা ও লালন-পালন করা হয়েছে মোট ৯ হাজার ৫৫ টি। স্থানীয় ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা স্থানীয় ভাবে পশু কেনার পাশাপাশি পার্শ্ববর্তী উপজেলার হাট থেকেও কুরবানির পশু ক্রয় করে থাকেন।

পার্শ্ববর্তী উপজেলার হাটগুলোতেও আমাদের উপজেলায় পালনকৃত পশু বিক্রি হয়। সারা বছর আমরা মনিটরিং করেছি এক্ষেত্রে মানব দেহের জন্য ক্ষতিকর কোন ঔষধ ব্যবহার করেনি স্থানীয় খামারী ও কৃষকরা বলে জানান তিনি।

(এম এম হেলাল, ঘাটাইলডটকম)/-