কালিহাতীতে ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে চা বিক্রিতাকে মারধরের অভিযোগ

টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলা দুর্গাপুর ইউপি চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেনের বিরুদ্ধে চা দোকানদারকে মারধর করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। চেয়ারম্যানকে চা দিতে দেরি হওয়াতে চা বিক্রিতাকে ডেকে নিয়ে মারধর করে দোকান বন্ধ করে দেয় চেয়ারম্যানসহ তার বাহামভুক্তরা। সোমবার (৩০ ডিসেম্বর) সকাল ১১টায় কালিহাতী উপজেলা দুর্গাপুর ইউনিয়নের পটল বাজারে ঘটনাটি ঘটেছে। এ বিষয়ে চা বিক্রেতা বিল্লাল হোসেন কালিহাতী থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

অভিযোগকারী চা বিক্রিতা বিল্লাল হোসেন জানান, সোমবার সকাল ১১টায় দিকে দুর্গাপুর ইউপি চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন চৌকিদার দিয়ে ৪ কাপ চা দিতে বলেন। চা দিতে দেরি হওয়াতে আমাকে ডেকে নিয়ে ওই বাজারের জাহাঙ্গীরের দোকানের সামনে চেয়ারম্যান ক্ষিপ্ত হয়ে কিল ঘুষি লাথি ও গালে এলোপাথারী চরথাপ্পর মারেন। এ সময় বাজারের লোকজন এগিয়ে এসে আমাকে ছাড়িয়ে নেন। পরে কালিহাতী হাসপাতালে জরুরী বিভাগে চিকিৎসা নেই।

চেয়ারম্যান ও তার ভাই আঃ খালেক প্রমানিকসহ তার বাহামভুক্ত লোকজন আমার দোকান বন্ধ করে দেয়। চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন হুমকি দিয়ে বলে এ বাজারে তুই আর চা দোকানদারী করতে পারবি না বলে প্রাণনাশের হুমকি দেয় বলে জানান তিনি।

চা বিক্রিতা বিল্লাল হোসেন আরো জানান, এ ঘটনা যদি থানায় ও সাংবাদিকদের জানাই তাহলে আমাকে এলাকায় থাকতে দেয়া হবে না বলে চেয়ারম্যান হুমকি দেয়।

এ বিষয়ে চা বিক্রেতা বিল্লাল হোসেন কালিহাতী থানায় দুর্গাপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন ও তার ভাই আঃ খালেক প্রমানিককে অভিযুক্ত করে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

কালিহাতী থানা ওসি (তদন্ত) নজরুল ইসলাম জানান, তদন্ত পূর্বক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এবিষয়ে দুর্গাপুর ইউপি চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন মারধর ও হুমকির ঘটনা অস্বীকার করে বলেন, আমার এলাকার ছেলে আমাকে চা দিবে না এ কারণে ধমক দিয়েছি। আমি শাসন করতেই পারি। চেয়ারম্যান হিসেবে সেই অধিকার আমার আছে।

(কালিহাতী সংবাদদাতা, ঘাটাইলডটকম)/-