আ.লীগের প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদকের ১০১তম জন্মবার্ষিকীতে কালিহাতীতে দোয়া মাহফিল

টাঙ্গাইলের কালিহাতীতে আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক ও ভাষা আন্দোলনের শীর্ষ নেতা শামছুল হকের ১০১তম জন্মবার্ষিকী পালন করা হয়েছে। এ উপলক্ষে আজ শুক্রবার (১ জানুয়ারি) জেলার কালিহাতীতে তার কবর জিয়ারত, দোয়া মাহফিলের আয়োজন করেছে তার পরিবারসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন। ১৯১৮ সালের এই দিনে টাঙ্গাইলের দেলদুয়ার উপজেলার দেওলী ইউনিয়নের মাইঠান গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন তিনি।

সকালে কালিহাতী উপজেলার কদিম হামজানী গ্রামে শামছুল হকের সমাধিস্থলে পুষ্পস্তবক অর্পণ ও মাজার জিয়ারত করে বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলো। পুস্পস্তবক শেষে মাজার প্রাঙ্গণে দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন কবি আল মুজাহিদী ও শামছুল হক ফাউন্ডেশনের সভাপতি ও শামছুল হকের ভাতিজা ডা. সাইফুল ইসলাম স্বপনসহ বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

উল্লেখ্য, শামসুল হকের গ্রামের বাড়ি টাঙ্গাইলের দেলদুয়ার উপজেলার দেওলী ইউনিয়নের মাইঠান গ্রামে। শামসুল হক একজন বাঙালি রাজনীতিবিদ যার রাজনৈতিক জীবন শুরু হয়েছিল ভারতবর্ষে এবং যিনি পরবর্তীতে আওয়ামী লীগ প্রতিষ্ঠায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছিলেন।

তিনি ছিলেন আওয়ামী লীগের পূর্বসূরী আওয়ামী মুসলিম লীগের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক। তিনি পাকিস্তান গণপরিষদের সংসদীয় কমিটির সদস্য ছিলেন। ১৯৫০ সালে বাংলা ভাষা আন্দোলনের সময় বাংলা ভাষার পক্ষে সংগ্রাম করেন তিনি।

আওয়ামী লীগের প্রথম এবং তৃতীয় মেয়াদে সাধারণ সম্পাদক ছিলেন শামসুল হক। পূর্ব পাকিস্তানে সরকারবিরোধী রাজনীতিতে তিনি ছিলেন প্রথম সারির নেতা। তার জনপ্রিয়তা ছিল ঈর্ষান্বিত হওয়ার মতো।

১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলনে অংশগ্রহণের অভিযোগে তাকে গ্রেফতার করা হয়। পরে ১৯৬৪ সালে শামসুল হক হঠাৎ করেই নিখোঁজ হন এবং ১৯৬৫ সালের ১১ সেপ্টেম্বর ইন্তেকাল করেন।

শামসুল হক গবেষণা পরিষদ অনেক খোঁজাখুঁজি করে মৃত্যুর ৪২ বছর পর ২০০৭ সালে কালিহাতী উপজেলার কদিম হামজানিতে শামছুল হকের কবর আবিষ্কার করে।

(কালিহাতী সংবাদদাতা, ঘাটাইলডটকম)/-

178total visits,2visits today