আইনজীবীরা আদৌ কি বেগম জিয়ার জামিন চান!

আইনজীবীরা আদৌ কি বেগম জিয়ার জামিন চান! জামিন শুনানীর জন্য আইনজীবীদের প্রস্তুতি এবং আদালতে দেয়া জয়নুল আবেদিনের সাবমিশন শুনে অন্তত: আমার মনে এই সন্ধেহের উদ্রেক করে।

মেডিকেল গ্রাউন্ডে বেগম জিয়ার জামিনের আরজি করেছেন। দুই দফা তারিখও পিছিয়েছে, অথচ এতদিনেও মেডিকেল বোর্ডের অরজিনাল রিপোর্টটি সংগ্রহ করে আদালতে দাখিল করতে পারেননি। রিপোর্টটি আজ আদালতে দাখিল করা হলে তো, আপিল বিভাগ আজ রিপোর্টের জন্য ফার্দার সময় হয়তবা দিতেন না।

জয়নুল আদালতে বলেছেন, আমরা মেডিকেল বোর্ডের রিপোর্ট থেকে জেনেছি তাতে তাঁর ( বেগম জিয়ার) ফিজিক্যাল থেরাপির দরকার। (সূত্র প্রথম আলো)। এই রেজিমে এদেশের আদালতের চরিত্র কেমন সেটা সবারই জানা। নানা কৌশলে একজন বর্ষিয়ান রাজনীতিককে আটকে রাখার তারা পণ করে রেখেছে। সেই অবস্থায় বিএনপির আইনজীবীরা যদি অপ্রস্তুত হয়ে আদালতে গিয়ে তাদের কোয়ারিগুলোর যথাযথ উত্তর না দিতে পারেন,তবে এমন সন্ধেহ করা কি অমূলক হবে!

অবশ্য, বেগম জিয়ার জামিন আদালত থেকে পাওয়া যাবে বলে আমি বিশ্বাস করি না। কারণ কে না জানে বেগম জিয়ার মামলা, দন্ড যতটানা বিচারিক বিষয়, তারচেয়ে ঢের বেশী রাজনীতিক। আর তাই ক্ষমতাসীন দল যতদিন, তাদের অবস্থান পরিবর্তন না করবে ততদিন বেগম জিয়ার জামিন সুদুর পরাহত! আর ক্ষমতাসীনদের সেই পরিবর্তনটা কিভাবে আসবে,সেটা বিএনপি নেতারা নিশ্চই বুঝেন।

চিন্তা করুন, আজ বিএনপি সরকার, আর শেখ হাসিনা কারাগারে, তার জামিন শুনানী বার বার পেছাচ্ছে, তখন আওয়ামী লীগের আচরণ কেমন হতো! তাই বলি ভদ্রলোকের সাথে ভদ্র আচরন ঠিক আছে, কিন্তু বুনো ওলের সাথে যুঁছতে হলে বাঘা তেতুলের কোনো বিকল্প নেই।

বিএনপি যতদিন এটা বুঝতে না পারবে ততদিন দেশের জনগনের কোনো মুক্তি নেই। দুর্ভাগ্যজনক হলেও দলটির জয় পরাজয়ের সাথে দেশের মানুষের ভাগ্যও সমানভাবে জড়িয়ে আছে। এসব আর কবে বুঝবেন দলটির নীতিনির্ধারকরা!

(মুজতবা খন্দকার, ঘাটাইলডটকম)/-