সখীপুরে মাকে খুনের অভিযোগ ছেলে-মেয়ের বিরুদ্ধে

টাঙ্গাইলের সখীপুরে সৎছেলের হাতে মাকে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত বৃহস্পতিবার (১ ফেব্রুয়ারি) রাতে মা রেখা বেগম (৩৫) ঢাকার সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

নিহত রেখা বেগম উপজেলার প্রতিমাবংকী গ্রামের মীর ওসমান গণির স্ত্রী।

গত ২৮ নভেম্বর রাতে জমিজমা সংক্রান্ত সৃষ্ট বিরোধে সৎ মাকে পুত্র সোহেল রানা, তার স্ত্রী, মা সাজেদা বেগম, বোন আছমা আক্তার ব্যাপক মারধর করে। গুরুতর আহত অবস্থায় প্রথমে সখীপুর ও পরে ঢাকার সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাকে। এ ঘটনায় ওই রাতেই বাবা মীর ওসমান গণি ছেলে সোহেল রানাকে প্রধান আসামি করে চারজনের নামে সখীপুর থানায় অভিযোগ করেন।

পুলিশ ও সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, মীর ওসমান গণি ও তার পূর্বের স্ত্রী সাজেদা কয়েক বছর আগে মালয়েশিয়া চাকরি করতে যায়। মালয়েশিয়ায় থেকে মীর ওসমান দেশে ফিরলেও সাজেদা তাকে ছেড়ে অন্যত্র বিয়ে করে চলে যায়।

মীর ওসমান গণি জানান, সোহেল তার আগের ঘরের সন্তান। সোহেল জমি দখলের চেষ্টা করায় ঝগড়ার সূত্রপাত শুরু হয়। এ বিরোধে ঘটনার রাতে কথাকাটাকাটিতে নিহত রেখা বেগমকে তলপেটসহ শরীরের বিভিন্ন অংশে বেদম মারধর করা হয়। আহত হওয়ার দুইমাস ৫দিন পর বৃহস্পতিবার রাতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রেখা বেগম মারা যান।

মীর ওসমান গণি আরও বলেন, স্ত্রীকে সুস্থ করতে অনেক টাকা গেলেও বাঁচাতে পারলাম না।

সখীপুর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাকছুদুল আলম বলেন, এ বিষয়ে আগেই মামলা করা আছে। আসামিরা জামিনে আছেন। গতকাল শুক্রবার দুপুরে লাশ টাঙ্গাইল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

(সাজ্জাত লতিফ, সখীপুর, ঘাটাইল ডট কম)/-

148total visits,2visits today