সখীপুরে প্রতিবন্ধী কন্যাশিশুকে রাস্তার ধারে ফেলে রেখে গেছেন মা-বাবা

টাঙ্গাইলের সখীপুরে দুই বছরের প্রতিবন্ধী এক কন্যাশিশুকে রাস্তার ধারে ফেলে রেখে গেছেন মা-বাবা। বৃহস্পতিবার ভোরে সখীপুর-কচুয়া-বড়চওনা সড়কের মোটের পুকুর পাড় এলাকায় ওই শিশুটিকে স্থানীয় লোকজন দেখতে পান। পরে শিশুটিকে উদ্ধার করে সখীপুর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে লালন-পালন করতে না পারায় শিশুটিকে ফেলে রেখে গেছেন মা-বাবা।
প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার ভোরে সখীপুর-কচুয়া-বড়চওনা সড়কের মোটের পুকুর পাড় এলাকায় সড়কের ধারে শিশুটিকে ঘুমানো অবস্থায় স্থানীয় লোকজন দেখতে পান। বড়চওনা গ্রামের মমতাজ বেগম বলেন, শিশুটিকে রাতের কোন এক সময় তার মা-বাবা ফেলে রেখে গেছেন। শিশুটিকে পিঁপড়ায় ও মশায় কামড়িয়েছে। ওই গ্রামের বৃদ্ধা সাবজান বেগম বলেন, তাকে বাড়িতে নিয়ে আমি গোসল করিয়েছি এবং এক মায়ের বুকের দুধ খাওয়ানো হয়েছে।
স্থানীয় ইউপি সদস্য মিজানুর রহমান বলেন, শিশুটিকে আমি উদ্ধার করে সখীপুর হাসপাতালে ভর্তি করেছি।
আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. নাজমুল হোসাইন বলেন, শিশুটিকে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।
এদিকে খবর পেয়ে বৃহস্পতিবার দুপুরে হাসপাতালে শিশুটিকে দেখতে যান উপজেলা নির্বাহী অফিসার মৌসুমী সরকার রাখী ও সমাজসেবা কর্মকর্তা মনসুর আহমেদ। সমাজসেবা কর্মকর্তা বলেন, শিশুটির চিকিৎসাসহ সার্বিক দায়িত্ব নেওয়া হয়েছে। প্রয়োজনে সমাজকল্যাণ অধিদপ্তরের গাজীপুরে ছোটমণি নিবাসে পাঠানো হবে শিশুটিকে। তিনি আরো জানান, উপজেলার বেলতলী গ্রামের লাল বানু নামের এক নারী শিশুটিকে লালন-পালনের আগ্রহ প্রকাশ করায় আপাতত তাকে দেওয়ার চিন্তাভাবনা চলছে।
(ঘাটাইল.কম)/-

112total visits,1visits today